kalerkantho

বুধবার । ২০ শ্রাবণ ১৪২৮। ৪ আগস্ট ২০২১। ২৪ জিলহজ ১৪৪২

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলতে নামলে ভারতীয়দের হাঁটু কাঁপত : ব্র্যাড হগ

অনলাইন ডেস্ক   

১৮ জুলাই, ২০২১ ১৮:০২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলতে নামলে ভারতীয়দের হাঁটু কাঁপত : ব্র্যাড হগ

তখন ছিল সর্বজয়ী অস্ট্রেলিয়া দল। তাদের সামনে কেউ দাঁড়াতেই পারত না। ভারতও নয়। কিন্তু ভারতীয় ক্রিকেটকে বদলে দিয়েছিলেন সৌরভ গাঙ্গুলী। অস্ট্রেলিয়ার চোখে চোখ রাখতে শিখিয়েছিলেন সৌরভ গাঙ্গুলী। বিদেশের মাটিতে জিততে শিখিয়েছিলেন সৌরভ গাঙ্গুলী। এই নামটা যে আজও অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটাররা ভুলতে পারেন না তা আরও একবার প্রকাশ্যে বললেন ব্র্যাড হগ। তার মতে, আজকের ভারতীয় দল তৈরিই হয়েছে সৌরভের হাতে ধরে। 

খেলা ছেড়ে সৌরভ এখন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান। কিন্তু ২০ বছর আগে এই নামটাই অজিদের কাছে ত্রাস হয়ে উঠেছিল। ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সেই সিরিজ জয় ভারতীয় দলের মনের মধ্যে ঢুকিয়ে দিয়েছিল- যে কোনো পরিস্থিতি থেকেই ম্যাচ জেতা সম্ভব। এই বিশ্বাসটাই কয়েক মাইল এগিয়ে দিয়েছিল ভারতীয় দলকে। সেখান থেকেই তারা ভয়ডরহীন ক্রিকেট খেলতে শিখেছে। আজ সেই ভারত বিশ্বের সবচেয়ে প্রতাপশালী দলগুলোর একটি। 

অস্ট্রেলিয়ার স্পিনার বলেন, 'সৌরভ অস্ট্রেলিয়ার পরীক্ষা নিয়েছিল। নিশ্চয়ই মনে থাকবে ২০০১ সালের ওই সিরিজের একটি টেস্টে স্টিভ ওয়াহকে দাঁড় করিয়ে রেখেছিল সৌরভ। সে হয়তো ইচ্ছা করেই ব্লেজার না পরে টস করতে এসেছিল। সে জানত অস্ট্রেলিয়া এটা অন্য ভাবে নেবে। আমার মনে হয় সৌরভ আসার আগে ভারত আমাদের সঙ্গে খেলতে ভয় পেত। সে এসে লড়াই করতে শিখিয়েছে। আমাদের স্লেজিং পর্যন্ত করেছে! সে যেন আমাদের মাথায় চেপে বসেছিল। তার উপস্থিতিতে পরিস্থিতিটাই বদলে যায়।'

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সেই সিরিজ জয় থেকে শুরু করে বিদেশের মাটিতে ভারতের হার না মানা লড়াই- সৌরভ গাঙ্গুলী ভারতীয় ক্রিকেটে একটা বিশাল এক পরিবর্তন এনে দেয়। হগের মতে, ভারত-অস্ট্রেলিয়া সিরিজ তখন অ্যাশেজের সমান হয়ে গিয়েছিল। তিনি বলেন, 'ভারত-অস্ট্রেলিয়া সিরিজও অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ড সিরিজের মতো কঠিন হয়ে উঠেছিল। প্রচুর কথা, প্রচুর আবেগ তৈরি হলো এই সিরিজ ঘিরে। সৌরভ এমন একটা আবহাওয়া তৈরি করে দিয়েছিল, যার সুফল বর্তমান ভারতীয় দল এখনও ভোগ করছে।'



সাতদিনের সেরা