kalerkantho

শনিবার । ১৬ শ্রাবণ ১৪২৮। ৩১ জুলাই ২০২১। ২০ জিলহজ ১৪৪২

ভায়রা-ভাইয়ের রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে জয় হলো মুশফিকের

অনলাইন ডেস্ক   

২১ জুন, ২০২১ ২০:৩৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভায়রা-ভাইয়ের রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে জয় হলো মুশফিকের

জাতীয় দলের হয়ে বিখ্যাত ভায়রা-ভাই জুটি কত বিপদেই না হাল ধরেছেন। ব্যক্তিগত জীবনের 'ভায়রা-ভাই' সেই মুশফিকুর রহিম আর মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ বাংলাদেশের ক্রিকেটের নয়নের মণি। চলতি ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে দুজন দুই দলের প্রতিনিধিত্ব করছেন। আবাহনীকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন মুশফিক আর মাহমুদউল্লাহ নেতৃত্ব দিচ্ছেন গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সকে। তাই দুজনে আজ একে অপরের বিরুদ্ধেই লড়াই করলেন। শেষ পর্যন্ত জয় হলো মুশফিকুর রহিমের।

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ টি-টোয়েন্টির রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সকে ১ উইকেটে হারিয়েছে আবাহনী। পুরোটা সময় রোমাঞ্চ ছড়িয়ে ম্যাচের ফয়সলা হয়েছে শেষ ওভারে। আজ সোমবার মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে আগে ব্যাট করতে নেমেএ গাজী গ্রুপ ১৩০ রানে অল-আউট হয়। মেহেদি ৩ রানে আউট হলেও আরেক ওপেনার সৌম্য সরকার করেন সর্বোচ্চ ৩০ রান। মাহমুদউল্লাহ আউট হন ১৬ রানে। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২৭ রান করেন জাকির। সাইফউদ্দিন নেন ১৮ রানে ৪ উইকেট, আর মেহেদি রানা নেন ৩টি।

এই ছোট্ট পুঁজিতেই যে ম্যাচ এতটা জমে উঠবে তা কে জানত? রান তাড়ায় নেমে ওপেনার মুনিম 'ডাক' মারেন। আরেক ওপেনার লিটন দাস ফেরেন ২২ রানে। তবে তিনে নেমে শান্ত খেলেন ৫৮ রানের ইনিংস। যা তাকে ম্যাচসেরার পুরস্কার এনে দেয়। শেষ ওভারে জয়ের জন্য আবাহনীর প্রয়োজন ছিল ৯ রানের। হাতে ছিল ২ উইকেট। বাঁহাতি স্পিনার নাসুম আহমেদের করা ওভারের প্রথম বলে সিঙ্গেল নেন তানজিম হাসান সাকিব। পরের বলে মেহেদি রানা বাউন্ডারি হাঁকান।

ওভারের তৃতীয় বলে দুই রান নিতে গিয়ে রান-আউট হয়ে যান মেহেদি। শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে উইকেটে আসেন আরাফাত সানি। ম্যাচে তখন টানটান উত্তেজনা। চতুর্থ বলে সিঙ্গেল নিয়ে তানজিমকে স্ট্রাইক দেন সানি। দুই বলে আবাহনীর চাই ২ রান। পঞ্চম বলে তানজিমের ব্যাটের ওপরের দিকে লেগে বল যায় এক্সট্রা কাভারের দিকে। দুইবার প্রান্ত বদল করে নাচতে নাচতে প্যাভিলিয়নের দিকে হাঁটা দেন তানজিম ও আরাফাত সানি। 



সাতদিনের সেরা