kalerkantho

রবিবার । ১০ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৫ জুলাই ২০২১। ১৪ জিলহজ ১৪৪২

অধিনায়ক সোহানের তাণ্ডবে শেখ জামালের দুর্দান্ত জয়

অনলাইন ডেস্ক   

২০ জুন, ২০২১ ১৯:৩১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অধিনায়ক সোহানের তাণ্ডবে শেখ জামালের দুর্দান্ত জয়

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের (ডিপিএল) সুপার লিগে দেখা গেল নুরুল হাসান সোহানের ব্যাটে ঝড়। জয়ের জন্য শেখ জামালের ওভার প্রতি ৯.৬ আক্সিং রেট থাকা অবস্থায় জ্বলে উঠেন নুরুল হাসান সোহান। মাত্র ১৭ বলে ৪৪ রানের হ্যারিকেন ইনিংস খেলে প্রাইম ব্যাংকের স্বপ্নভঙ্গ করে তিনি শেখ জামালকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন। তার সামনে বিধ্বস্ত হয় রুবেল-মুস্তাফিজ-শরিফুলদের নিয়ে গড়া প্রাইম ব্যাংকের দুর্দান্ত বোলিং লাইন-আপ।

১৬৪ রানের বড় টার্গেট তাড়া করতে নেমে শেখ জামালের শুরুটা ভালো হয়নি। উদ্বোধনী জুটি ভাঙ্গে মাত্র ১০ রানে। শরিফুলের বলে ফিরে যান মোহাম্মদ আশরাফুল (৪ বলে ৫ রান)। এরপর হাল ধরেন আরেক ওপেনার সৈকত আলী। তাকে সঙ্গ দেন ইমরুল কায়েস। এই জুটি ১১.৫ ওভারে ঠিক ১০০ রানের জুটি গড়েন। অবশ্য সেখানে প্রাইম ব্যাংক ফিল্ডারদের অবদানও আছে। ৩৬ বলে ৬০ রান করা সৈকত আলী আর ৪৩ বলে ৪৪ রান করা ইমরুল দুজনেই একবার করে জীবন পান।

মুস্তাফিজের করা ইনিংসের পঞ্চম ওভারে দুটি বাউন্ডারি ও এক ছক্কাসহ সৈকত আলী ১৬ রান তুলে নেন সৈকত। এরপর পেসার শরিফুলের শর্ট অফ লেন্থের ডেলিভারিকে পয়েন্টের ওপর দিয়ে ছক্কা হাঁকিয়ে ২৮ বলে পঞ্চাশ পূর্ণ করেন। শেষ পর্যন্ত পেসার রুবেল হোসেনের বলে ওয়াইড লং অনে ক্যাচ দিয়ে আউট হন ৩৬ বলে ৪ বাউন্ডারি ও ৩ ছক্কায় ৬০ রান করা সৈকত। অন্যদিকে ২১ রানে জীবন পাওয়া ইমরুল আউট হওয়ার আগে খেলেন ৪০ বলে ৪৪ রানের ইনিংস।

দুই সেট ব্যাটসম্যান আউট হয়ে যাওয়ায় শেখ জামালকে জেতানোর দায়িত্ব নেন অধিনায়ক সোহান। মিরপুরে শুরু হয় ব্যাটিং ঝড়। রুবেলকে ছক্কা মেরে তিনি দলের জয় নিশ্চিত করেন। তানবির হায়দারকে নিয়ে বিজয়ীর বেশে সোহান যখন সাজঘরে ফিরছেন, তখনো ইনিংসের ১১ বল বাকি! অধিনায়কের ইনিংসটি সাজানো ৪ ছক্কা ও ২ চারে। প্রথম পর্বে ৯ ম্যাচ জিতে সবার ওপরে থাকা প্রাইম ব্যাংকের সুপার লিগ শুরুই হলো হার দিয়ে।



সাতদিনের সেরা