kalerkantho

শনিবার । ৫ আষাঢ় ১৪২৮। ১৯ জুন ২০২১। ৭ জিলকদ ১৪৪২

কোয়ারেন্টিনের গ্যাঁড়াকলে প্রস্তুতি

ক্রীড়া প্রতিবেদক    

৯ মে, ২০২১ ০৩:৫৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



কোয়ারেন্টিনের গ্যাঁড়াকলে প্রস্তুতি

পরশু দিন বিকেলেও তামিম ইকবাল জানতেন পরদিন (গতকাল) দুপুরে শেরেবাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামের প্র্যাকটিস রয়েছে। কিন্তু গতকাল সকালে জানতে পারেন যে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে আসন্ন তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের জন্য ঘোষিত প্রাথমিক স্কোয়াডের আনুষ্ঠানিক প্রস্তুতিতে শ্রীলঙ্কায় সফর করে আসা ক্রিকেটারদের যোগ দেওয়া হচ্ছে না। সরকারি নির্দেশনা মেনে গতকাল বিকেলে করোনা পরীক্ষা করিয়েছেন তাঁরা সবাই। নেগেটিভ ফল এলে সবাই প্র্যাকটিসে যোগ দিতে পারবেন আজই।

ওয়ানডে দলের অধিনায়ক তামিম ইকবাল অবশ্য ঈদের আগের তিন দিনের অনুশীলনে যোগ দিচ্ছেন না। গতকাল, প্রথম দিন কোয়ারেন্টিন জটিলতায় কেটে গেছে। আগেই ছুটি নেওয়া থাকায় ঈদের পর প্র্যাকটিসে যোগ দেবেন তিনি।

কোয়ারেন্টিন নিয়ে এই জটিলতার সৃষ্টি শ্রীলঙ্কা থেকে ফেরার সময়ই। বিমানবন্দরের ইমিগ্রেশন থেকে জানানো হয়েছিল যে, বর্তমান পরিস্থিতিতে তিন দিন প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন করতে হবে সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক। কিন্তু ক্রিকেটাররা বেছে নেন দ্বিতীয় বিকল্প—নিজ নিজ বাসায় ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টিন। সেটি শেষ হয়নি বলেই গতকাল শ্রীলঙ্কা সফরের জন্য শুরু হওয়া আনুষ্ঠানিক প্রস্তুতির দিনে অনুপস্থিত শ্রীলঙ্কা সফর করে আসা দলের ক্রিকেটার ও কোচিং স্টাফরা।

এ ব্যাপারে গতকাল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, ‘স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সঙ্গে আমাদের গতকাল (পরশু) বিকেলে যোগাযোগ হয়। ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনের বিষয়ে শর্ত সাপেক্ষে কিছু ছাড় দিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।’ সেই শর্ত মেনে গতকাল করোনা পরীক্ষা করিয়েছেন শ্রীলঙ্কাফেরত খেলোয়াড়-কর্মকর্তারা। কিন্তু প্র্যাকটিস সূচি জানার পরও শ্রীলঙ্কাফেরত সবাই কেন তিন দিনের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে না গিয়ে ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টিন বেছে নিলেন, তা বোধগম্য নয়। বিসিবির প্রধান নির্বাহীও এ বিষয়টি পাশ কাটিয়ে গেছেন।

তবে স্বাস্থ্যবিষয়ক এই সতর্কতা নিয়ে ক্রিকেট মহলে ভিন্ন চিন্তা-ভাবনা আছে। নিজামউদ্দিন যেমন উদাহরণ টেনে বলেছেন, ‘নিউজিল্যান্ড করোনা মোকাবেলায় সবচেয়ে এগিয়ে থাকা দেশ। তবু বাংলাদেশকে তারা আতিথ্য দিয়েছে। আসলে ক্ষেত্র বিশেষে বিশেষ প্রটোকল আছে। সেটা মেনেই নিউজিল্যান্ড আমাদের আতিথ্য দিয়েছিল। একজন ক্রিকেটার কিংবা একজন সাধারণ পর্যটক তো আর একই প্র্রটোকল অনুসরণ করেন না। ক্রিকেটাররা বিদেশে গেলেও বায়ো-বাবলে সুরক্ষিত থাকেন। কিন্তু পর্যটকদের বেলায় সেটি হয় না। আমার মনে হয় এটা বিবেচনায় নিলে ভালো।’

একই বিবেচনায় ভারতে আইপিএল খেলে আসার সাকিব আল হাসান ও মুস্তাফিজুর রহমানের জন্যও কি চেষ্টা করবে বিসিবি? এ প্রশ্নের উত্তরে বিসিবির প্রধান নির্বাহী বলেছেন, ‘আগে একটা (শ্রীলঙ্কাফেরত খেলোয়াড়-কর্মকর্তা) সমস্যার সমাধান করি। এরপর আরেকটা (সাকিব ও মুস্তাফিজ) নিয়ে কাজ করব।’

একই আইনে শ্রীলঙ্কার মাঠে নামাও আবার আটকে যাবে না তো? নিজামউদ্দিন জানিয়েছেন, সে কাঁটা আগেই সরিয়ে ফেলা হয়েছে, ‘ওরা (শ্রীলঙ্কা) আমাদের এখানে আসার আগেই বায়ো-বাবলে থাকবে। এখানে এসে তিন দিন প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে থেকে মাঠে নামতে পারবে। এটা নিয়ে কোনো সমস্যা নেই।’

তার মানে বিদেশফেরতদের জন্য সরকারের স্বাভাবিক বিধি মেনে মাঠে নামতে পারবে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দল। বাংলাদেশ দলও প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন মেনে নিলে আনুষ্ঠানিক প্রস্তুতির প্রথম দিনটি ‘মিস’ হতো না।



সাতদিনের সেরা