kalerkantho

বুধবার । ২৯ বৈশাখ ১৪২৮। ১২ মে ২০২১। ২৯ রমজান ১৪৪২

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে নিষিদ্ধের পথে রিয়াল-জুভেন্তাস!

অনলাইন ডেস্ক   

২২ এপ্রিল, ২০২১ ২০:৫৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চ্যাম্পিয়ন্স লিগে নিষিদ্ধের পথে রিয়াল-জুভেন্তাস!

নিষিদ্ধের হুমকিতে থাকা দুই ক্লাবের দুই সেরা তারকা। ছবি : ইন্টারনেট

দুই দিনের মাঝেই কথিত ইউরোপিয়ান সুপার লিগ নাটকের পরিসমাপ্তি ঘটেছে। ফুটবলপ্রেমীদের তোপের মুখে আয়োজক ক্লাবগুলো এই বিদ্রোহী লিগ থেকে সরে আসতে বাধ্য হয়েছে। ইংল্যান্ডের ৬ ক্লাব, স্পেনের আতলেটিকো মাদ্রিদ আর ইতালির মিলানের দুই ক্লাব ইতোমধ্যেই নাম প্রত্যাহার করেছে। তবে রিয়াল মাদ্রিদ, বার্সেলোনা আর জুভেন্তাস এখনো স্পষ্ট করে কিছু বলেনি। তাই রিয়াল আর জুভেন্তাসকে নিষিদ্ধের হুমকি দিচ্ছে উয়েফা। তাহলে বার্সেলোনা কেন বাদ?

রিয়াল মাদ্রিদ সভাপতি ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ প্রতিদিনই সেই বিদ্রোহী লিগের পক্ষে কথা বলে যাচ্ছেন। তিনি উয়েফার বিভিন্ন দুর্নীতি নিয়েও সরব হয়েছেন। অন্যদিকে জুভেন্তাস আনুষ্ঠানিক বিবৃতি দিলেও স্পষ্ট করে বলেনি যে তারা সুপার লিগে থাকছে কি থাকছে না। কিন্তু বার্সেলোনাও তো কাগজে কলমে সুপার লিগ ছাড়ার কথা বলেনি। জানা গেছে, বার্সা কর্তৃপক্ষ মুখে কিছু না বললেও উয়েফা সভাপতি আলেক্সান্দোর সেফেরিনের সঙ্গে কথা বলে সবকিছু মিটমাট করে নেওয়ার চেষ্টা করেছে।

তবে নিষিদ্ধের সম্ভাবনা কম জানিয়ে সেফেরিন এক বিবৃতিতে বলেছেন, 'এই মৌসুম এরই মধ্যে শুরু হয়ে গেছে। আমরা যদি সেমিফাইনাল না খেলাই, তাহলে সম্প্রচারকারী প্রতিষ্ঠানগুলো ক্ষতিপূরণ চাইবে। ফলে এই ম্যাচ (চেলসি-রিয়াল) না হওয়ার সম্ভাবনা কম। তবে ভবিষ্যতে পরিস্থিতি বদলাতে পারে। সবাই হতাশ করেছে, কিন্তু বার্সেলোনা সবচেয়ে কম করেছে। লাপোর্তা সভাপতি হয়েছে দুই মাস হয়নি, তাই তার পক্ষে বেশি কিছু করা সম্ভব নয়। কঠিন আর্থিক পরিস্থিতির কারণে তিনি প্রচণ্ড চাপে ছিলেন। আর ক্লাবের এ অবস্থার জন্য তিনি তো দায়ী নন।'

তবে রিয়াল-জুভেন্তাস তাদের অবস্থান না পাল্টালে কঠোর সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হবে উয়েফা। সংস্থাটির প্রধান সেফেরিন এই হুমকিটাও দিয়ে রাখতে ভুলেননি। সুতরাং, এখন দেখার এই রেষারেষির শেষ কোথায় হয়।



সাতদিনের সেরা