kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৭ বৈশাখ ১৪২৮। ১০ মে ২০২১। ২৭ রমজান ১৪৪২

জিম্বাবুয়েকে শক্তির পার্থক্য বোঝাল পাকিস্তান

অনলাইন ডেস্ক   

২২ এপ্রিল, ২০২১ ০৮:০৭ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



জিম্বাবুয়েকে শক্তির পার্থক্য বোঝাল পাকিস্তান

আইসিসির ওয়ানডে র‌্যাঙ্কিংয়ে গত সপ্তাহে শীর্ষে উঠেছিলেন পাকিস্তান অধিনায়ক বাবর আজম।। টি-টোয়েন্টিতেও নিজেকে চূড়ায় নিয়ে যাওয়ার মঞ্চ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে চলমান সিরিজ। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দারুণ পারফরম্যান্সে এই সংস্করণের ব্যাটসম্যানদের তালিকায় বাবর জায়গা করে নিয়েছেন দুইয়ে। কিন্তু তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথমটিতে ক্যারিশমা দেখাতে পারলেন না, মাত্র ২ রান তুলেই ফিরে যান। তবে খালি হাতে ফেরেনি তার দল।

বুধবার (২১ এপ্রিল) হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে জিম্বাবুয়েকে ১১ রানে হারিয়ে তিন ম্যাচের সিরিজে এগিয়ে গেছে পাকিস্তান। ১৫০ রানের লক্ষ্য তাড়ায় স্বাগতিকরা থেমে গেছে ১৩৮ রানে।

বাকি ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতার দিনে একাই লড়াই করলেন মোহাম্মদ রিজওয়ান। দারুণ এক ফিফটিতে এই ওপেনার পাকিস্তানকে এনে দিলেন লড়াই করার পুঁজি। পরে বোলারদের মিলিত চেষ্টায় প্রথম টি-টোয়েন্টিতে দারুণ এক জয় পেয়েছে বাবর আজমের দল। পাকিস্তানের করা সাত উইকেটে ১৪৯ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে সাত উইকেটে ১৩৮ রানের বেশি করতে পারেনি স্বাগতিকরা।

গতকাল টস জিতে আগে বোলিং করার সিদ্ধান্ত নেন জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক শন উইলিয়ামস। পাকিস্তানের হয়ে ঝড় শুরু করেন মোহাম্মদ রিজওয়ান। অন্য প্রান্তে তাকে সহায়তা করার মতো কেউ না থাকায় নিয়মিত উইকেট হারাতে থাকে সফরকারী দল। দ্বিতীয় ওভারে দুই রান করে ফিরে যান বাবর আজম। পাওয়ার প্লের পরই ১৩ রানে বিদায় নেন ফখর জামানও। ১০ ওভার শেষ হওয়ার আগে পাকিস্তান হারায় অভিজ্ঞ মোহাম্মদ হাফিজকে।

সেখান থেকে দলকে লড়াই করার মতো পুঁজি এনে দেন রিজওয়ান। ইনিংসের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত খেলে ৬১ বলে ৮২ রান করে এক ছক্কা ও ১০টি চারে। তার ব্যাটের দেড় শ ছুঁইছুঁই স্কোর পায় পাকিস্তান।

মাঝারি টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে পাওয়ার প্লেতে জোড়া উইকেট হারায় জিম্বাবুয়েও। তৃতীয় উইকেটে ওপেনার তিনাশে কামুনহুকামোয়েকে নিয়ে বিপদ সামাল দেন অভিজ্ঞ ক্রেইগ অরভিন। অরভিনের ব্যাট থেকে আসে ৩৪ রান, আর কামুনহুকামোয়ে করেন ২৯। ৫৬ রান যোগ করার পর ভাঙে এই জুটি।

তাদের বিদায়ের পর দ্রুত আরও দুই উইকেট তুলে নিয়ে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেয় পাকিস্তান। শেষ দিকে জংওয়ে চেষ্টা করেন একা লড়াই করার। কিন্তু তার ২৩ বলে ৩০ রানের ইনিংসে ব্যবধানই কমাতে পারে জিম্বাবুয়ে। হার এড়াতে পারেনি।

পাকিস্তানের হয়ে উসমান কাদির ২৯ রানে তিনটি আর মোহাম্মদ হাসনাইন ২৭ রানে দুই উইকেট নেন।

অপরাজিত ৮২ রানের ইনিংস খেলে ম্যাচসেরা হন রিজওয়ান। আগামীকাল সিরিজের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি হবে একই ভেন্যুতে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর :

পাকিস্তান : ২০ ওভারে ১৪৯/৭ (রিজওয়ান ৮২*, বাবর ২, ফখর ১৩, হাফিজ ৫, আজিজ ১৫, হায়দার ৫, ফাহিম ১, নওয়াজ ৯, উসমান ২*; মাসাকাদজা ৩-০-২০-০, মুজারাবানি ৪-০-২২-১, এনগারাভা ৪-০-৪৮-২, জংউই ৩-০-২৪-২, মাধেভেরে ২-০-১১-২, বার্ল ৩-০-১৫-০, উইলিয়ামস ১-০-৭-০)।

জিম্বাবুয়ে : ২০ ওভারে ১৩৮/৭ (কামুনহুকামউই ২৯, মাধেভেরে ১৪, মারুমানি ০, আরভিন ৩৪, বার্ল ১৪, উইলিয়ামস ৯, চাকাভা ৩, জংউই ৩০*, মাসাকাদজা ২*; হাসনাইন ৪-০-২৭-২, ফাহিম ২-০-১৬-০, নওয়াজ ২-০-১৫-০, রউফ ৪-০-২৯-১, উসমান ৪-০-২৯-৩, হাফিজ ৪-০-২১-১)।

ফল : পাকিস্তান ১১ রানে জয়ী।

সিরিজ : ৩ ম্যাচের সিরিজে পাকিস্তান এগিয়ে ১-০ ব্যবধানে।

ম্যান অব দা ম্যাচ : মোহাম্মদ রিজওয়ান।



সাতদিনের সেরা