kalerkantho

বুধবার । ২৮ বৈশাখ ১৪২৮। ১১ মে ২০২১। ২৮ রমজান ১৪৪২

মুস্তাফিজ-উনাদকাটের দাপটে দেড়শও করতে পারেনি দিল্লি

অনলাইন ডেস্ক   

১৫ এপ্রিল, ২০২১ ২১:৫২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



মুস্তাফিজ-উনাদকাটের দাপটে দেড়শও করতে পারেনি দিল্লি

ছবি : আইপিএল

আইপিএলে আজ দেখা গেল 'মুস্তাফিজ শো'। শুরু থেকেই দুর্দান্ত বোলিং করেছেন বাংলাদেশের 'কাটার মাস্টার'। অনেকদিন পর দেখা গেছে তার সেই বিধ্বংসী 'কাটার'। দলের আস্থার প্রতিদান দিয়েছেন। ২ উইকেট নিয়েছেন ২৯ রান দিয়ে। আজ প্রথম সুযোগ পাওয়া ভারতীয় পেসার জয়দেব উনাদকাট যেমন কৃপণ বোলিং করেছেন, তেমনই উইকেট নিয়েছেন ৩টি। এছাড়া তরুণ পেসার চেতন সাকারিয়া দারুণ বল করেছেন। সব মিলিয়ে নির্ধারিত ২০ ওভারে দিল্লি ক্যাপিটালসের সংগ্রহ দাঁড়িয়েছে ৮ উইকেটে ১৪৭ রান।

মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ধীর গতির শুরু করে দিল্লি ক্যাপিটালস। চেতন সাকারিয়ার সঙ্গে বোলিং ওপেন করেন জয়দেব উনাদকাট। ৫ রানেই পৃত্থ্বী শাহকে (২) ফিরিয়ে দেন উনাদকাট। এরপর দলীয় ১৬ রানে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন আরেক ওপেনার শিখর ধাওয়ান (৯)। তৃতীয় শিকারও উনাদকাটের। তার বলে কট অ্যান্ড বোল্ড হন আজিঙ্কা রাহানে (৮)। দলের হাল ধরার চেষ্টা করেন অধিনায়ক ঋষভ পন্থ।

এর মাঝেই হানা দেন মুস্তাফিজুর। ইনিংসের সপ্তম তথা নিজের প্রথম ওভারে বল করতে এসেই ৫ বলে ০ রান করা স্টোয়নিসকে জস বাটলারের তালুবন্দি করেন। ওই ওভারে তিনি মাত্র ১ রান দেন। ফিজের দ্বিতীয় ওভারের প্রথম বলে ললিত যাদব প্রায় ধরা পড়েছিলেন। তবে সীমানার ওপরে ক্যাচ নিয়েও দেহের ভারসাম্য রাখতে পারেননি রায়ান পরাগ। সেই বল থেকে আসে ১ রান। শেষ বলে আবারও বল উড়ে গেল সেই পরাগের কাছে। এবারের ক্যাচটা সহজ ছিল না। বাউন্ডারি লাইনের ওপর থেকে ধরার চেষ্টা করেন, শেষ পর্যন্ত তা চার হয়ে যায়।

মুস্তাফিজকে ওই বাউন্ডারি মেরে ফিফটি পূরণ করেন দিল্লি অধিনায়ক ঋষভ পন্থ। পরের ওভারে সেই পরাগের বলে তিনি রান-আউট হয়ে যান ৩২ বলে ৫১ করে। ললিত যাদবকে ফেরান বেশি রান দেওয়া দামী ক্রিকেটার ক্রিস মরিস। নিজের চতুর্থ ওভারে আবারও বিধ্বংসী হয়ে ওঠেন মুস্তাফিজ। ১৯তম ওভারে প্রথম বলে বাউন্ডারি খেলেও পরের বলেই ক্লিন বোল্ড করে দেন টম কারানকে (২১)। তৃতীয় বলে উইকেটে এসেই চার মারেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন। সেই অশ্বিনই ৭ রান করে মুস্তাফিজের শেষ বলে রান-আউট হয়ে যান। শেষ ওভার চেতন আঁটসাট বোলিং করায় দিল্লির সংগ্রহ দাঁড়ায় ৮ উইকেটে ১৪৭ রান। ১৫ রানে ৩ উইকেট নেন জয়দেব উনাদকাট। মুস্তাফিজ ২৯ রানে ২টি।



সাতদিনের সেরা