kalerkantho

সোমবার । ৬ বৈশাখ ১৪২৮। ১৯ এপ্রিল ২০২১। ৬ রমজান ১৪৪২

মাহমুদউল্লাহ-জটে আটকে দল

ক্রীড়া প্রতিবেদক   

৯ এপ্রিল, ২০২১ ১১:৪৯ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



মাহমুদউল্লাহ-জটে আটকে দল

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ফাইল ছবি

শ্রীলঙ্কাগামী টেস্ট সিরিজের স্কোয়াড দুই দিন হলো বিসিবির হিমাগারে। পরশু সে দল ঘোষণার জোর সম্ভাবনা গতকালও আলোর মুখ দেখেনি ছোট্ট একটি জটিলতায়। সেটি মাহমুদউল্লাকে অন্তর্ভুক্ত করার পক্ষে-বিপক্ষে নতুন যুক্তি উপস্থাপনের কারণে।

পরশু রাতে ১৮ জনের দল নিয়ে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসানের সঙ্গে নির্বাচক কমিটির এবং টিম ম্যানেজমেন্টের সভা ছিল। সেখানে সেটি বাড়িয়ে ২১ জনের করা হয় এই যুক্তিতে যে শ্রীলঙ্কা যেহেতু নেট বোলার দেবে না, তাই দলের প্রস্তুতির জন্য বাড়তি ক্রিকেটার নিতে হবে। বোর্ড সভাপতি আরো উদার হয়ে প্রয়োজনে ২৫ জনকে নেওয়ার প্রস্তাবও দিয়েছিলেন, কিন্তু ২১ জনেই সন্তুষ্ট হয় টিম ম্যানেজমেন্ট, সেই স্কোয়াডে ছিল না মাহমুদউল্লাহর নাম।

পরশু রাতে সভা শেষ হতে রাত হয়ে যাওয়ায় সেদিন আর দল ঘোষণা করেনি বিসিবি। গতকাল সেটি নিশ্চিতভাবেই বিজ্ঞপ্তি আকারে মিডিয়ায় জানিয়ে দেওয়ার কথা, কিন্তু বিসিবির একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র নিশ্চিত করেছে, রাত পোহাতেই টিম ম্যানেজমেন্টের খণ্ডিত অংশ মাহমুদউল্লাহকে শ্রীলঙ্কায় উড়িয়ে নিয়ে যাওয়ার পক্ষে অবস্থান নিয়েছে। কিন্তু তাঁর মতো অভিজ্ঞ কাউকে দলের সঙ্গে রাখা মানেই খেলানোর বাধ্যবাধকতা। ওদিকে টিম ম্যানেজমেন্ট মাহমুদউল্লাহকে টেস্ট একাদশে রাখা নিয়ে দ্বিধায়। এ নিয়েই আটকে আছে শ্রীলঙ্কায় দুই টেস্টের সিরিজের জন্য তৈরি দল ঘোষণা।

২০২০ সালে রাওয়ালপিন্ডি টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে বাজেভাবে আউট হয়েছিলেন মাহমুদ। সেই থেকে টেস্ট দলে ব্রাত্য তিনি। এমনকি ঘরের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম টেস্টের পর সাকিব আল হাসান চলে যাওয়ার পরও ডাকা হয়নি মাহমুদকে। বরং আকস্মিকভাবে ডাকা হয়েছিল সৌম্য সরকারকে। উদ্বোধনী জুটিতে তামিম ইকবালের সঙ্গী সাদমান ইসলামও চোট পাওয়ায় সৌম্যকে টপ অর্ডারে খেলিয়েছিল টিম ম্যানেজমেন্ট। যদিও অভিজ্ঞতা এবং সাকিবের ব্যাটিং অর্ডার বিবেচনা করলে ওই টেস্টের দলে সৌম্যর আগে মাহমুদকেই বিবেচনা করার পক্ষে যুক্তি বেশি।

তবে শ্রীলঙ্কা সফর থেকে সাকিব ছুটি নেওয়ায় আবারও টেস্ট আলোচনায় আসেন মাহমুদউল্লাহ। কিন্তু তাঁর ওপর টিম ম্যানেজমেন্টের এখনো আস্থা ফিরে আসেনি বলেই খবর। পরশু রাতের সভায় মাহমুদের নাম না থাকা নিয়েও কোনো উচ্চবাচ্য হয়নি। কিন্তু রাত পার হতেই মাহমুদকে শ্রীলঙ্কায় নেওয়ার ব্যাপারে টিম ম্যানেজমেন্ট এবং নির্বাচক কমিটির কয়েকজন সদস্য যুক্তি তুলে ধরেন। যথারীতি অভিজ্ঞতা মাহমুদের পক্ষে। পিঠ আর ঊরুর চোট সেরে ওঠায় প্রয়োজনে বলও করতে পারবেন বলে জানিয়েছেন তিনি কালের কণ্ঠকে। আর ব্যাটিং নিয়ে টিম ম্যানেজমেন্টে যে সংশয়, সেটিকে নাকি চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছেন মাহমুদ।

এ অবস্থায় সাকিবের অনুপস্থিতি এবং মুশফিকুর রহিমের নেতৃত্বে মিডল অর্ডারের অফ ফর্মের কারণে আবারও বিবেচনায় এসেছেন মাহমুদ, কিন্তু সে বিবেচনা যে চূড়ান্ত হয়নি, সেটি গতকাল দল না ঘোষণার ঘটনাতেই পরিষ্কার। তাঁকে শেষমেশ দলে নেওয়া হলে স্কোয়াড হবে ২২ জনের।

নাকি শুভাগত হোমকে বাদ দিয়ে মাহমুদকে জুড়ে ২১ জনের স্কোয়াড নিয়েই শ্রীলঙ্কায় যাবে বাংলাদেশ দল? ক্রিকেট অপারেশন্সের ইঙ্গিত পেয়ে গতকালই ভারত থেকে দেশে ফিরেছেন শুভাগত। পরশু রাতে চূড়ান্ত হওয়া ২১ জনের স্কোয়াডে এই ব্যাটসম্যানের নাম ছিল, যিনি মাহমুদের মতো অফস্পিনও করতে পারেন। নাকি ২২ জনের স্কোয়াড নিয়েই শ্রীলঙ্কায় যাবে বাংলাদেশ দল? প্রশ্নটির উত্তর আজ পাওয়া যাওয়ার কথা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা