kalerkantho

মঙ্গলবার । ৭ বৈশাখ ১৪২৮। ২০ এপ্রিল ২০২১। ৭ রমজান ১৪৪২

না বুঝে সাকিবের সমালোচনা তসলিমার; পরে সংশোধন

অনলাইন ডেস্ক   

৮ এপ্রিল, ২০২১ ১৫:৩১ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



না বুঝে সাকিবের সমালোচনা তসলিমার; পরে সংশোধন

ইংল্যান্ডের তারকা অল-রাউন্ডার মঈন আলীকে 'জঙ্গি' বলে হুট করেই সারা ক্রিকেটবিশ্বে আলোচনায় এসেছেন নির্বাসিত বাংলাদেশি লেখিকা তসলিমা নাসরিন। ১৯৯৪ সালে দেশ ত্যাগ করা তসলিমা মঈনকে নিয়ে টুইটটি করেন কাল, ‘মঈন আলী ক্রিকেট না খেললে সিরিয়াতে গিয়ে আইএসআইয়ের সঙ্গে যোগ দিত।’ ইংল্যান্ডের ক্রিকেটাররা তার ওই টুইটের তীব্র প্রতিবাদ জানান। সেই ক্রিকেটারদের মাঝে ছিলেন সাকিব মাহমুদ। 

ইংল্যান্ডের ক্রিকেটার সাকিব মাহমুদ। ছবি : টুইটার

ব্যাপক সমালোচনার পর আরেকটি টুইটে তসলিমা বলেন, তিনি মজা করে মঈন আলীকে ওই কথা বলেছিলেন। এরপর ইংল্যান্ডের হয়ে ৪ ওয়ানডে ও ৬ টি-টোয়েন্টি খেলা বোলার সাকিব মাহমুদ টুইটারে তসলিমাকে উদ্দেশ্য করে লিখেন, 'ব্যঙ্গাত্মক? অসুস্থতার পর্যায়ে আপনার রসিকতার মানসিকতা।' সাকিব মাহমুদের ওই টুইট দেখতে গিয়ে আরেকটি ভুল করেন তসলিমা। তিনি মনে করেন, এটা বাংলাদেশের বিশ্বসেরা অল-রাউন্ডার সাকিব আল হাসান। 

সাকিব আল হাসানকে নিয়ে লেখা তসলিমার প্রথম পোস্ট। 

সাথে সাথেই তসলিমা তার ভেরিফায়েড ফেসবুক অ্যাকাউন্টে বিশাল পোস্টের মাঝামাঝি সাকিব আল হাসানকে নিয়ে লিখেন, 'বাংলাদেশের ক্রিকেটার সাকিবও বেশ এবিউজ করলেন আমাকে। 'ডিজগাস্টিং টুইট, ডিজগাস্টিং ইন্ডিভিজুয়াল'। এর মানে আমার টুইট যেমন খারাপ, আমি মানুষটাও তেমন খারাপ। সাকিব কিন্তু কলকাতায় দুর্গাপুজোর উদ্বোধনে গিয়ে বাংলাদেশের মুসলিম মৌলবাদিদের আক্রমণের শিকার হয়েছিলেন, তখন কিন্তু ওদের আক্রমণকে ডিজগাস্টিং বলেননি, ওদেরকেও ডিজগাস্টিং বলেননি। আমি তো সাকিবের পক্ষ নিয়ে কলাম লিখেছিলাম, সাকিবের অধিকার আছে যে খানে খুশি যাওয়ার, যা কিছু উদবোধন করার, সাকিবকে কৈফিয়ত দিতে হবে কেন। আর সাকিব কী করলেন, যারা ওঁকে আক্রমণ করেছিল, তাঁদের কাছে করজোরে ক্ষমা প্রার্থনা করলেন, বললেন, তাঁর পুজোয় যাওয়াই উচিত হয়নি, তিনি ইসলামে প্রচণ্ড বিশ্বাসী, এবং ইসলামই পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ ধর্ম। আমাকে আক্রমণ করে তিনি তাঁর সেই আক্রমণকারীদেরই খুশি করলেন। এমন কৌশল যে আমি জানি না, সে কারণে আমি নিজেকে ভালোবাসি আরও একটু বেশি।' 

সাকিব আল হাসানকে বাদ দিয়ে তসলিমা নাসরিনের সংশোধিত পোস্ট।

তসলিমার এই ফেসবুক পোস্ট অনেক্ষণ ছিল। এরপর হয়তো কেউ তাকে সাকিব মাহমুদ আর সাকিব আল হাসানের পার্থক্যটা বুঝিয়ে দিয়েছিলেন। ভুল বুঝতে পেরে তসলিমা তার ফেসবুক পোস্টটি সম্পাদনা করে সাকিবের অংশটুকু বাদ দেন। তবে এডিট হিস্ট্রিতে এখনও আগের পোস্টটি দেখাচ্ছে। নিজের নতুন পোস্টে তসলিমা মানতেই পারছেন না যে, তার 'মজা' করে দেওয়া একটা টুইট নিয়ে সব ইংলিশ ক্রিকেটাররা তার আইডিতে রিপোর্ট করবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা