kalerkantho

বুধবার । ৮ বৈশাখ ১৪২৮। ২১ এপ্রিল ২০২১। ৮ রমজান ১৪৪২

হারতে হারতে সিরিজ হার

অনলাইন ডেস্ক   

৩০ মার্চ, ২০২১ ১৬:১৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



হারতে হারতে সিরিজ হার

মাহমুদউল্লাহ বোল্ড হতেই বাংলাদেশের সব আশা শেষ হয়ে যায়। ছবি : এএফপি

নিউজিল্যান্ডের মাটিতে একের পর এক ম্যাচ হেরেই যাচ্ছে বাংলাদেশ। এখন পর্যন্ত স্বাগতিকদের বিপক্ষে তাদের মাটিতে কোনো জয় না পাওয়ার রেকর্ডটাও অক্ষুণ্ণ রইল। আজকের ডিএল মেথডে ২৮ রানের পরাজয়ের পর হারের সংখ্যাটা দাঁড়ালো ৩১। নেপিয়ারে সিরিজের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি হেরে সিরিজ খুইয়েছে বাংলাদেশ। এর আগে ওয়ানডে সিরিজেও ৩-০ ব্যবধানে হোয়াইটওয়াশ হয়েছে। তবে সৌম্য সরকার যতক্ষণ উইকেটে ছিলেন, ততক্ষণ মনে হচ্ছিল ১৬ ওভারে ১৭০ রান করা কোনো ব্যাপারই নয়।

বৃষ্টি আইনে বাংলাদেশের সামনে লক্ষ্য দাঁড়ায় ১৬ ওভারে ১৭০। রান তাড়ায় নেমে শুরুতে যথারীতি বিপদে পড়ে বাংলাদেশ। পুরো সফরে নিজেকে হারিয়ে ফেলা লিটন দাসকে (৬) গ্লেন ফিলিপসের তালুবন্দি করেন হামিশ বেনেট। দলীয় ১৩ রানে প্রথম উইকেটের পতনের পরেই উইকেটে এসে ধুমধরাক্কা ব্যাটিং শুরু করেন পারফর্ম্যান্সের জন্য সবচেয়ে বেশি সমালোচিত ক্রিকেটারদের একজন সৌম্য সরকার। অন্যদিকে নাঈমের ব্যাটে যেন বলই আসছিল না।

নাঈমের ব্যর্থতার চাপ একাই সামলাচ্ছিলেন সৌম্য। তবে ২৬ বলে ফিফটি পূরণ করা সৌম্য ইনিংস আর বড় করতে পারেননি। টিম সাউদিকে তুলে মারতে গিয়ে লং অনে অ্যাডাম মিল্নের হাতে ধরা পড়ে তার ২৭ বলে ৫ চার ৩ ছক্কায় ৫১ রানের দারুণ ইনিংসটি শেষ হয়। সৌম্যর বিদায়ে ভাঙে দ্বিতীয় উইকেটে ৮১ রানের জুটি। বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ের রূপও যেন বদলে যায়। দ্রুতই বিদায় হন ধীরগতির বাজে ব্যাটিংয়ে ৩৫ বলে ৩৮ রান করা নাঈম। তার ইনিংসে ছিল ৪টি বাউন্ডারি।

 শুরু হয় ব্যাটিং ধস। টপাটপ উইকেট পড়তে থাকে। অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ ১২ বলে ৪ চারে ২১ রান করে মিল্নের বলে বোল্ড হয়ে যান। একই ওভারে তরুণ আফিফ হোসেনও (২) মিল্নের শিকার। সাউদির দ্বিতীয় শিকার মোহাম্মদ মিঠুন উইকেটের পেছনে কনওয়ের তালুবন্দি হওয়ার আগে করেন ১ রান। বাংলাদেশের হার নিশ্চিত হয়ে যায়। ১৬ ওভারে ৭ উইকেটে ১৪২ রানেই প্যাকেট হয় মাহমুদউল্লাহরা। ১২* রানে অপরাজিত থাকেন মিরাজ। ২টি করে উইকেট নিয়েছেন টিম সাউদি, হাশিম বেনেট আর অ্যাডাম মিল্নে। ১টি নিয়েছেন গ্লেন ফিলিপস।

এর আগে বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচে ওভার কর্তনের পর কিউইরা সংগ্রহ করে ১৭.৫ ওভারে ৫ উইকেটে ১৭৩ রান। মার্টিন গাপটিল (২১) ভয়ংকর হয়ে ওঠার আগেই ফিরিয়ে দেন ৩ ওভারে ৩৫ রানে ১ উইকেট নেওয়া সাইফউদ্দিন। অপর ওপেনার ফিন অ্যালেন করেন ১০ বলে ১৭ রান। ইনফর্ম ডেভন কনওয়েকে ১৫ রানে ফেরান শরীফুল। গ্লেন ফিলিপস ৩১ বলে ৫ চার ২ ছক্কায় সর্বোচ্চ ৫৮ রান করে অপরাজিত থাকেন। আরেক অপরাজিত ব্যাটসম্যান ডেরি মিচেল করেন ১৬ বলে ৩৪*। কিউইদের স্কোর দাঁড়ায় ১৭.৫ ওভারে ৫ উইকেটে ১৭৩ রান।

ডিএল মেথডে বাংলাদেশের টার্গেট ১৬ ওভারে ১৭০। বৃষ্টির সহায়তা পেতে টস জিতে ফিল্ডিংয়ে নামা বাংলাদেশের হয়ে আজও বোলাররা আশানুরূপ বোলিং করতে পারেননি। ৪ ওভারে ২৫ রান দিয়ে কৃপণ বোলিং করেছেন নাসুম আহমেদ। তবে তিনি কোনো উইকেট পাননি। মেহেদী ৪ ওভারে ২ উইকেট পেলেও রান দিয়েছেন ৪৫। তরুণ পেসার শরীফুল ইসলাম ৩ ওভারে মাত্র ১৬ রানে নিয়েছেন ১ উইকেট। আর মুস্তাফিজের বদলে সুযোগ পাওয়া তাসকিন ৩.৫ ওভারে ৪৯ রানে নিয়েছেন ১ উইকেট।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা