kalerkantho

শনিবার । ২৫ বৈশাখ ১৪২৮। ৮ মে ২০২১। ২৫ রমজান ১৪৪২

শারীরিক সম্পর্ক করে জকোভিচকে ফাঁদে ফেলতে মডেলকে ৭৬ লাখ টাকার প্রস্তাব!

অনলাইন ডেস্ক   

২২ মার্চ, ২০২১ ১৬:৪৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শারীরিক সম্পর্ক করে জকোভিচকে ফাঁদে ফেলতে মডেলকে ৭৬ লাখ টাকার প্রস্তাব!

নোভাক জকোভিচ এবং তার স্ত্রী ইলিয়ানা (বামে); নাতালিয়া স্কেকিচ (ডানে)। ছবি : ইন্টারনেট

টেনিস বিশ্বে দাপিয়ে বেড়ানো সুপারস্টারদের মাঝে অন্যতম নোভাক জকোভিচ। এটিপি র‌্যাংকিংয়ের শীর্ষস্থানীয় এই খেলোয়াড়কে একবার ফাঁসানোর চক্রান্ত করেছিল একটি মহল। তার ক্যারিয়ার, ব্যক্তিগত ইমেজ ও পারিবারিক জীবন নষ্ট করার জন্য নাতালিয়া স্কেকিচ নামের এক মডেলকে প্রস্তাব দেওয়া হয় যে, জকোভিচের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করে সেটা ভিডিও করতে হবে। এবং তারপর জকোভিচকে ফাঁসিয়ে দিতে হবে! সেই মডেল নাতালিয়া স্বয়ং এ তথ্য ফাঁস করেছেন!

সার্বিয়ান সাময়িকী 'সভেত অ্যান্ড স্ক্যান্ডাল'- এ দেওয়া সাক্ষাতকারে নাতালিয়া জানান, এই কাজ করার জন্য এক ব্যক্তি তাকে ভাড়া করেন। তবে অন্য কাজের কথা বলে তাকে লন্ডনে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে গিয়ে তিনি জানতে পারেন তাকে আসলে কিসের জন্য আনা হয়েছে! জোকোভিচকে পটিয়ে তার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করে ভিডিও ধারণের জন্য তাকে ৯০ হাজার ডলারের প্রস্তাব দেওয়া হয়। যা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৭৬ লাখ ২৭ হাজার টাকা! তবে সুখের বিষয় হলো, নাতালিয়া সেই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেন।

সাময়িকীকে স্কেকিচ বলেন, এক লোক আমার সঙ্গে যোগাযোগ করেছিল। সে যখন আমার কাছে সময় চাইল, ভেবেছিলাম হয়তো কাজের খাতিরে। সে যখন নোভাককে পটিয়ে তা ক্যামেরায় ধারণ করার কথা বলছিল, আমি ভেবেছিলাম হয়তো গোপন ক্যামেরার কথা বলছে। সে নিজেই এসব ঠিক করবে। হাসি থামাতে পারিনি। ভেবেছিলাম সে মজা করছে। কিন্তু লোকটা সত্যি সত্যিই প্রস্তাবটা দিয়েছিল। বেশ অপমানিত বোধ করেছি।

উল্লেখ্য, ২০১৪ সালে ইয়েলিনা জোকোভিচকে বিয়ে করেন নোভাক জকোভিচ। তাদের ঘরে দুটি সন্তানও আছে। জকোভিচকে ফাঁসানোর জন্য প্রস্তাব পেয়ে চটে গিয়েছিলেন নাতালিয়া, 'সেই মুহূর্তে তাকে (প্রস্তাবদাতা) মারতে ইচ্ছা হচ্ছিল। কিন্তু নিজেকে সংযত রাখি কারণ আমরা পাবলিক প্লেসে ছিলাম। নিজের জিনিসপত্র গুছিয়ে চলে আসি। আশা করি সে এই কাজের জন্য কোনো নারীকে খুঁজে পায়নি। কারণ এটা জোকোভিচের প্রতি অবিচার। সে আমাদের দেশের পোস্টার বয় এবং নিজের পরিবারের প্রতি সে খুবই নিবেদিত।



সাতদিনের সেরা