kalerkantho

বুধবার । ২ আষাঢ় ১৪২৮। ১৬ জুন ২০২১। ৪ জিলকদ ১৪৪২

নতুন মোড়কে পুরনো লিগ

ক্রীড়া প্রতিবেদক   

১৫ মার্চ, ২০২১ ০৩:১৫ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নতুন মোড়কে পুরনো লিগ

নতুন করে কোনো দলবদল হচ্ছে না। গত বছর মার্চে এক রাউন্ড হয়ে করোনা মহামারির কারণে স্থগিত  ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে (ডিপিএল) যে যে দলে ছিলেন ক্রিকেটাররা, সেই দলের হয়েই খেলবেন তাঁরা। দল অপরিবর্তিত থাকলেও বদলাচ্ছে ফরম্যাট। এক দিনের ম্যাচের জায়গায় হবে টি-টোয়েন্টি। আগামী ৬ মে থেকে শুরু হতে যাওয়া আসরটিতে খেলোয়াড়দের পারিশ্রমিক কমানোর কথাও বলেছেন ঢাকার ক্লাব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা সিসিডিএম প্রধান কাজী ইনাম আহমেদ।

গতকাল ক্লাবগুলোর সঙ্গে সভা শেষে পারিশ্রমিক কেমন কমতে পারে, সে ধারণাও দিয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) এই পরিচালক। পাঁচ লাখ টাকার ওপরে যাঁদের পারিশ্রমিক, শুধু তাঁদেরই শতকরা ১০ ভাগ কমানোর সুপারিশের কথা জানিয়েছেন তিনি। অবশ্য সেই সঙ্গে এই ফুটনোটও জুড়ে দিয়েছেন যে, ‘এখনো চূড়ান্ত নয়। সমন্বয় করতে হলে সেটি কী রকম হবে, তা ক্লাব, কোয়াব ও বোর্ড সভাপতির সঙ্গে কথা বলেই আমরা সিদ্ধান্তে আসব।’ তবে পারিশ্রমিক কমানোয় যে ক্রিকেটারদের সায় ছিল, সেটিও জানিয়ে দিতে ভোলেননি ইনাম, ‘এর আগে কোয়াবের সঙ্গেও আলোচনা হয়েছিল আমাদের। খেলোয়াড়দের দিকে তাকিয়েই কিন্তু আমরা লিগটা করছি। যেভাবেই হোক, লিগটা তাঁরা খেলতে চান। দরকার হলে পারিশ্রমিক কমিয়ে হলেও খেলায় ফেরত নিয়ে আসার দাবি ছিল তাঁদের।’

সেই দাবি অনেক আগেই একবার তোলা হয়েছিল বলে নিশ্চিত করেছেন ক্রিকেটারদের সংস্থা কোয়াবের সাধারণ সম্পাদক দেবব্রত পাল, ‘গত বছর লিগ শুরু করা হলে খেলোয়াড়রা পারিশ্রমিক কম নিতে রাজি ছিল। কিন্তু এই লিগ তো আরেক বছরে নতুনভাবে শুরু হচ্ছে।’ তবে লিগ শুরুর উদ্যোগকে সাধুবাদই জানাচ্ছেন তিনি, ‘এটি দারুণ খবর। এতে ক্রিকেটারদের উদ্বেগ কমবে।’ ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিক কমানোর পেছনে ক্লাব সংগঠকদের ব্যবসায় মন্দা এবং স্পন্সরদের অনাগ্রহকেও কারণ দেখিয়েছেন সিসিডিএম প্রধান। তাঁর সঙ্গে আলোচনায় গতকাল ক্লাবগুলোর পক্ষ থেকে বিসিবির কাছে অর্থ সহায়তাও চাওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে সভায় উপস্থিত একটি সূত্র।

৬ মে থেকে লিগ শুরু হলেও সেটি টানা আয়োজন করা যাবে না বলে জানিয়েছেন ইনাম। শুরু হয়ে দিন পাঁচেক খেলা হবে। এরপর ঈদুল ফিতর ও দেশের মাটিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের জন্য বিরতি থাকবে। এরপর আবার মে মাসের শেষ দিকে শুরু করে জুনের মাঝামাঝি পর্যন্ত চলবে লিগ। মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়াম এবং বিকেএসপির দুই মাঠে খেলা হবে। এই তিন মাঠে প্রতিদিন দুটি করে খেলা হবে। ইনাম জানিয়েছেন, গত বছর মার্চে হওয়া প্রথম রাউন্ডের খেলাগুলো পরিত্যক্ত ঘোষণা করে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে নতুনভাবে শুরু হবে লিগ। এই লিগে থাকবে সুপার লিগ এবং রেলিগেশন লিগও। বেশির ভাগ ক্লাবই খেলোয়াড়দের ৩০-৪০ শতাংশ পারিশ্রমিক পরিশোধ করে ফেলায় আগেরবারের দলবদলেই লিগটি আয়োজনের সীমাবদ্ধতার কথাও উচ্চারিত হয়েছে সিসিডিএম প্রধানের মুখে।



সাতদিনের সেরা