kalerkantho

মঙ্গলবার । ৭ বৈশাখ ১৪২৮। ২০ এপ্রিল ২০২১। ৭ রমজান ১৪৪২

স্যার ভিভের জন্মদিন

'মাঠে নামার সময় ভাবতাম, আমিই এই মাঠটার মালিক'

অনলাইন ডেস্ক   

৭ মার্চ, ২০২১ ১৯:৩৪ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



'মাঠে নামার সময় ভাবতাম, আমিই এই মাঠটার মালিক'

১৯৫২ সালের ৭ মার্চ। ক্যারিবিয়ান দ্বীপপুঞ্জের সেন্ট জনস আইল্যান্ডে জন্ম হলো এক মানবশিশুর। আর দশ জনের মতোই সাধারণভাবে বেড়ে ওঠা শিশুটি পরবর্তীতে হয়ে উঠলেন ক্রিকেট ইতিহাসের ত্রাস সৃষ্টিকারী ব্যাটসম্যান। তিনি স্যার আইজাক ভিভিয়ান আলেকজান্ডার রিচার্ডস। বিধ্বংসী ব্যাটিং, মাঠে আক্রমণাত্বক বিচরণ, প্রভাব বিস্তার সবকিছু যেন তাকে কিংবদন্তির আসনে বসিয়ে দিয়েছে। ক্যারিবীয় কিংবদন্তির আজ ৬৯ বছর পূর্ণ হলো।

১৯৮৬ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে মাত্র ৫৬ বলে শত রান করেন যেটি বহুদিন টেস্ট ক্রিকেটে সবথেকে কম বলে সেঞ্চুরিের বিশ্ব রেকর্ড ছিল। ২০১৪ সালের নভেম্বর মাসে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে একই সংখ্যক বলে সেঞ্চুরি করে পাকিস্তানের মিসবাহ উল হক উনার বিশ্ব রেকর্ড স্পর্শ করেন। আরো পরে নিউজিল্যান্ডের ব্রেন্ডন ম্যাককুলাম ২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে মাত্র ৫৪ বলে সেঞ্চুরি করে নতুন বিশ্ব রেকর্ড গড়েন। এক সাক্ষাকতকারে স্যার ভিভ বলেছিলেন, 'সফল ক্রিকেটার হতে হলে মনের জোর থাকতে হবে। আমি যেমন মাঠে নামার সময় ভাবতাম, আমিই এই মাঠটার মালিক।'

মাঠে নেমে স্যার ভিভ কাউকে ভয় পেতেন না। কোনো বোলারই তার সামনে দাঁড়াতে পারত না। তার মাঝে সবসময় একটা তাড়না কাজ করত যে, 'আমি সর্বকালের সেরা হতে চাই। আমি চ্যাম্পিয়ন, আমার সামনে দাঁড়ানোর সাধ্য কারও নেই। তিনি ছিলেন খুব স্পেশাল একজন ক্রিকেটার। ম্যাচের মাঝে যে কোনো পরিস্থিতিতে স্যার ভিভকে কখনো টলানো যেত না। এমনই অবিশ্বাস্য মনের জোর ছিল তার। কখনও তার আগ্রাসন ড্রেসিংরুম পর্যন্ত পৌঁছে যেত। ১৯৮৮ সালের উইন্ডিজ সফরে তখনকার তরুণ পেসার ওয়াসিম আকরামকে তো খুনই করতে চেয়েছিলেন! আকরাম বারবার স্লেজিং করায় এমন চটে গিয়েছিলেন স্যার ভিভ।

১৯৭৪-১৯৯১ এই ১৮ বছরের ক্যারিয়ারে ১২১টি টেস্টে ২৪টি সেঞ্চুরিসহ ৮৫৪০ রান করেছেন স্যার ভিভ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের অধিনায়ক হিসেবে ৫০টির মধ্যে জিতেছেন ২৭টি টেস্ট। এই রেকর্ড দিয়ে ভিভকে পুরোপুরি ব্যখ্যা করা যাবে না। ওয়ানডেতে তার স্ট্রাইকরেট ৯০.২০! ১৮৭ ওয়ানডের ১৬৭ ইনিংসে ৪৭ গড়ে করেছেন ৬৭২১ রান। সর্বোচ্চ অপরাজিত ১৮৯*। ১১টি সেঞ্চুরির পাশে আছে ৪৫টি হাফসেঞ্চুরি। ভিভের মতো এমন আক্রমণাত্বক ব্যাটসম্যান ক্রিকেট ইতিহাসে খুব কমই আছেন।

মাঠের ত্রাস স্যার ভিভ কিন্তু মাঠের বাইরে অন্য এক মানুষ ছিলেন। তখনকার সময়ে ক্যারিবীয়দের চিরশত্রু ইংল্যান্ডের কিংবদন্তি ইয়ান বোথাম ছিলেন ভিভের অন্তরঙ্গ বন্ধু। তাদের সেই বন্ধুত্ব এখন পর্যন্ত অটুট আছে। একজন কৃষ্ণাঙ্গের সঙ্গে বন্ধুত্ব করায় স্যার ইয়ান বোথামকে কম গঞ্জনা সইতে হয়নি। অন্যদিকে শ্বেতাঙ্গের সঙ্গে বন্ধুত্বের জন্য ভিভকেও অনেক কথা শুনতে হয়েছে। সব বাধা কাটিয়ে একই সময়ের দুই কিংবদন্তি প্রতিষ্ঠিত করেছেন সেই অমর বাণী- সবার ওপরে মানুষ সত্য। গায়ের রং, ধর্ম, সামাজিক অবস্থান কিংবা ধনী-গরীব কখনো মানুষের পরিচয় হতে পারে না।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা