kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৭ বৈশাখ ১৪২৮। ১০ মে ২০২১। ২৭ রমজান ১৪৪২

রোবিনহো-আনিসুরের কীর্তিতে কিংসের জয়

সাইফ স্পোর্টিং ১ : ২ বসুন্ধরা কিংস

ক্রীড়া প্রতিবেদক   

২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০৩:০৫ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



রোবিনহো-আনিসুরের কীর্তিতে কিংসের জয়

একটি ম্যাজিক্যাল শট ও একটি দুর্দান্ত সেভে ম্যাচ হয়ে গেল বসুন্ধরা কিংসের। ৩৭ মিনিটে প্রায় ৩৫ গজ দূর থেকে ব্রাজিলিয়ান রবসন রোবিনহোর পায়ে আগুনে গোলার শট বাঁক খেয়ে পৌঁছে গেছে সাইফ স্পোর্টিংয়ের জালে। এই প্রিমিয়ার লিগ অমন শট দেখেছে প্রথম। এরপর সেই গোলকে ধরে রাখতে তিন কাঠির নিচে আনিসুর রহমানের পেনাল্টি সেভে চ্যাম্পিয়নরা ২-১ গোলে হারিয়েছে সাইফ স্পোর্টিংকে। ১০ ম্যাচে ২৮ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে। এক ম্যাচ কম খেলে সাইফ ১৩ পয়েন্ট নিয়ে ষষ্ঠ স্থানে আছে।

তবে ম্যাচটি খুব কঠিন ছিল বসুন্ধরা কিংসের জন্য। আগে কোনো ম্যাচে তারা প্রথমে গোল খায়নি। তাদের সেই বিস্বাদ উপহার দিয়েও সাইফ পারেনি চ্যাম্পিয়নদের রুখে দিতে। চার মিনিটে দুই গোলের নাটকীয়তা এবং রবসন রোবিনহোর দুর্দান্ত এক শটে ম্যাচ জিতে নিয়েছে চ্যাম্পিয়নরা।

সাইফ স্পোর্টিং চমকে দিয়ে ১৮ মিনিটে বসুন্ধরা কিংসের জালে বল পাঠায়। কাউন্টার অ্যাটাকে ফয়সালের লং বল ধরে জন ওকোলি সামনে এগোতে থাকেন। প্রহরায় থাকা ডিফেন্ডার ইয়াসিন খানকে পরাস্ত করে এই নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড দূরের পোস্টে চমৎকার ফিনিশ করেন। লিগে প্রথমবারের মতো কোনো ম্যাচে পিছিয়ে পড়ে চ্যাম্পিয়নরা। আগের ৯ ম্যাচে প্রথম লিড নেওয়া দলটি কাল গোল খেয়ে তেড়েফুঁড়ে ওঠে। প্রতিপক্ষকে চাপে রেখে চার মিনিটের ম্যাজিকে তারা বদলে দেয় খেলার চেহারা। ৩৪ মিনিটে তারা ম্যাচে ফেরে। ইরানি ডিফেন্ডার খালিদ শাফির লম্বা থ্রো-ইন সাইফের মাথা ঘুরে পড়ে জোনাথন ফার্নান্দেজের পায়ে। তাঁর গড়ানো শট গোলরক্ষক সাইফুল ফেরালেও ফিরতি বলে তৌহিদুল আলম হেডে লক্ষ্যভেদ করে সমতা ফেরান ম্যাচে। জাতীয় দলের তরুণ ফরোয়ার্ডরা যখন আস্থার প্রতিদান দিতে পারছেন না, তখন অভিজ্ঞ তৌহিদুল সুযোগের সদ্ব্যবহার করছেন। গতকাল প্রথম একাদশে সুযোগ পাওয়া জাতীয় দলের এই সাবেক স্ট্রাইকারের গোলসংখ্যা ৩।

এর মিনিট তিনেক বাদেই রোবিনহোর পায়ে হয়েছে লিগের অন্যতম সেরা গোলটি। ওরকম কোনো আক্রমণও নয়, বিল্ডআপ চলছে মাঝমাঠে। কিন্তু বলা-কওয়া ছাড়াই হঠাৎ এই ব্রাজিলিয়ান ডান পায়ে শট নেন। প্রায় ৩৫ গজ দূর থেকে নেওয়া শটটি বুলেটগতিতে গোলরক্ষক সাইফুলকে কোনো সুযোগ না দিয়ে সাইফের জালে জড়িয়ে গেলে এক অবিশ্বাস্য গোল দেখে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম। লিড এনে দেওয়া এই গোলের সুবাদে রোবিনহোর গোলসংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১০। শেখ জামালের ওমর জোবের সঙ্গে এখন তিনি যুগ্মভাবে গোলদাতার তালিকায় শীর্ষে।

বিরতির পর সাইফ স্পোর্টিংয়ের দাপট একটু বাড়লেও কিংস ব্যবধান বাড়ানোর সুযোগ পেয়েছে কয়েকটি। রাউল বেতেরাই নষ্ট করেন দুটি ভালো সুযোগ। ৫৩ মিনিটে রোবিনহোর তুলে দেওয়া বলটি পোস্টের সামনে থেকেও এ আর্জেন্টাইন বাইরে পাঠান হেডে। মিনিট দশেক বাদে কাউন্টারে নষ্ট করেন আরেকটি সুযোগ। এ মিসগুলো যে বড় আফসোসের কারণ হয়ে দাঁড়ায়নি, এটাই তাদের ভাগ্য। নইলে সেই দুর্ভাগ্যের কবলেও পড়েছিল কিংস। ৮২ মিনিটে জন ওকোলিকে ফাউল করে বদলি ডিফেন্ডার বিশ্বনাথ পেনাল্টির সুযোগ করে দেন সাইফকে। কিন্তু নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড কেনেথ ইকেচুকুর পেনাল্টি শট ফিরিয়ে আনিসুর রহমান কিংসের লিড ধরে রাখেন। পেনাল্টি ঠেকিয়ে ম্যাচ জেতানোর ঘটনা এই গোলরক্ষকের ক্যারিয়ারে নতুন নয়। কালও সে রকম অবিশ্বাস্য কীর্তি গড়ে কিংসকে জিতিয়ে আনিসুর আরেকবার প্রমাণ করেছেন, তিনিই এখন দেশসেরা গোলরক্ষক।



সাতদিনের সেরা