kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৭ ফাল্গুন ১৪২৭। ২ মার্চ ২০২১। ১৭ রজব ১৪৪২

‘অনিচ্ছুক’দের ছাড় দিয়ে চোখ নতুন জানালায়

ক্রীড়া প্রতিবেদক   

২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০৩:০২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



‘অনিচ্ছুক’দের ছাড় দিয়ে চোখ নতুন জানালায়

দেশের হয়ে টেস্ট খেলা বাদ দিয়ে সাকিব আল হাসান খেলবেন আইপিএলে। সে জন্য চাহিবামাত্র এই অলরাউন্ডারকে ছুটি দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডও (বিসিবি)। এখন তাঁর দেখাদেখি মুস্তাফিজুর রহমানও একই পথের অনুসারী হতে চাইলে এই পেসারকেও ছাড়পত্র দেওয়ার মানসিক প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে দেশের সর্বোচ্চ ক্রিকেট প্রশাসন। অতীতে নানা সময়ে একই রকম চাহিদাপত্রে অসম্মতি জানিয়ে আসা বোর্ড এখন এভাবে দেদার ছুটি বিলিয়ে আসলে কোন দিকে যেতে চাইছে?

ক্রিকেট অপারেশনস কমিটি প্রধান আকরাম খানের বক্তব্যে মনে হচ্ছে নতুনভাবে ভবিষ্যৎ গুছিয়ে নেওয়াকেই প্রাধান্য দিচ্ছে বিসিবি, ‘ওরাই বা আর কত দিন খেলবে? ওরা (সাকিবের মতো যাঁরা দীর্ঘদিন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলে ফেলেছেন) এরই মধ্যে ১২-১৪ বছর সার্ভিস দিয়ে ফেলেছে। নতুনদেরও সুযোগ দেওয়ার আছে। আমাদের আলোচনায় ভবিষ্যতের এই ভাবনাটিও ছিল।’ সে জন্য নীতিনির্ধারকদের সভার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যুগান্তকারী এক মোড়ও, ‘সভায় সবচেয়ে বড় এই আলোচনাটি হয়েছে যে জোর করে খেলালে আমরা ভালো ফল পাব না। সাকিব নিউজিল্যান্ড যেতে না চাওয়ায়ও আমরা ছেড়ে দিয়েছি ওকে। জোর করে এনে খেলিয়ে বিরক্ত করতে চাচ্ছি না।’ যে সিদ্ধান্তে সায় আছে সাবেক প্রধান নির্বাচক ফারুক আহমেদেরও, ‘টেস্ট খেলতে নেমে যদি কারো মন টি-টোয়েন্টিতে পড়ে থাকে, সেটিও দলের জন্য ভালো হবে না।’

তাই ‘অনিচ্ছুক’দের ছাড় দিয়ে নতুন এক জানালায় চোখ রাখতে চাইছে বিসিবি। যে চোখে এখন থেকে সবচেয়ে বেশি কদর থাকবে টেস্ট খেলতে ইচ্ছুক ও আগ্রহীদেরই। জোর করে কাউকে খেলানোর চেয়ে স্বেচ্ছায় টেস্ট খেলতে চাওয়া ক্রিকেটারদের স্বাগত জানাতে চান ক্রিকেটের বড় কর্তারা। প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিজাম উদ্দিন চৌধুরীও বললেন সে কথাই, ‘টেস্ট দলটিকে জমাট করার জন্য দীর্ঘমেয়াদি একটি চিন্তা আমাদের আছে। যারা সত্যিই টেস্ট খেলতে আগ্রহী, তাদের নিয়েই যেন আমরা এগোতে পারি এবং পরিকল্পনা করতে পারি। যারা খেলতে ইচ্ছুক এবং যাদের সামর্থ্য আছে টেস্ট খেলার, তাদের নিয়েই আমরা সামনের দিকে যেতে চাই।’

তাতে অনেকের জন্য সম্ভাবনার নতুন জানালাও খুলে যেতে পারে বলে মনে করেন তিনি, ‘‘দেখা যায় অনেকে হয়তো সুযোগই পায় না। অনেক ভাবনা-চিন্তা করে আমরা যে সিদ্ধান্তে এসেছি, তাতে অনেকের জন্য ‘উইন্ডো’ খুলেও যেতে পারে।’’ নতুন সেই জানালা নানা কারণেই ঝুলে থাকার বিড়ম্বনা থেকেও মুক্তি দিতে পারে বিসিবিকে। নিজাম উদ্দিন দেখাতে চাইলেন সেই সুবিধার দিকটিও, ‘সে ক্ষেত্রে যে সিদ্ধান্তটি আমরা এবার নিয়েছি, তাতে আমাদের পক্ষে কোনো যদি-কিন্তুর মধ্যে না থেকে সুনির্দিষ্ট দিকে এগোনোও সম্ভব হবে।’ অন্তত টেস্ট খেলার সময় কারো পথ চেয়ে বসে থাকতে হবে না আর! বরং একই সঙ্গে সেটি অন্যদের জন্য নিজেকে প্রমাণের মঞ্চ হয়ে দাঁড়িয়ে যাবে বলে মনে করেন ফারুকও, ‘‘নতুনদের জন্য এই ব্যাপারটি ‘ডোর ওপেনিং’ হতে পারে। এটি খুব গুরুত্বপূর্ণ। দেখা যাবে সাকিবের জায়গায় দুটি ছেলেও সুযোগ পেতে পারে।’’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা