kalerkantho

সোমবার । ১১ মাঘ ১৪২৭। ২৫ জানুয়ারি ২০২১। ১১ জমাদিউস সানি ১৪৪২

মাঠে নামার আকাঙ্ক্ষায় মিশে আশঙ্কাও

ক্রীড়া প্রতিবেদক   

৯ জানুয়ারি, ২০২১ ০৩:০২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



মাঠে নামার আকাঙ্ক্ষায় মিশে আশঙ্কাও

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার প্রহর গুনছে বাংলাদেশ। মাঠে নামার পরম আকাঙ্ক্ষায় আবার লুকিয়ে আশঙ্কাও। বর্তমান বাস্তবতায় কারো করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার মতো ‘অনাকাঙ্ক্ষিত’ ঘটনা এড়াতে সর্বোচ্চ সতর্কতাও আছে।

কিন্তু সাবধানতাই যে শেষ কথা নয়, সেটি শ্রীলঙ্কায় ইংল্যান্ড দল পা রাখা মাত্রই স্পষ্ট হয়ে গেছে। করোনা পজিটিভ হয়েছেন মঈন আলী। ইংলিশ শিবির সেখানে অনুশীলন শুরু করে দিলেও তাঁকে থাকতে হচ্ছে আইসোলেশনে। নিশ্চিত করে বলার উপায় নেই যে ১০ জানুয়ারি ঢাকায় আসার পর ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলেরও কারো ক্ষেত্রে এ রকম কিছু হবে না। দলের প্রতিটি সদস্য যদিও করোনা নেগেটিভ সনদ নিয়েই ঢাকার ফ্লাইটে চড়বেন। কিন্তু সেটি তো কলম্বোর ফ্লাইট ধরার আগে ইংলিশ অলরাউন্ডার মঈনেরও ছিল।

ক্যারিবীয় দল অবশ্য রওনা হওয়ার আগেই একজনকে হারিয়েছে। করোনাভীতির কারণে প্রথম সারির ১০ ক্রিকেটার বাংলাদেশ সফর থেকে নাম প্রত্যাহার করে নেওয়ার পর এমনিতেই অনেকখানি শক্তি হারিয়েছে দলটি। তারুণ্যনির্ভর নতুন চেহারার সেই দলেও থাবা বসিয়েছে কভিড-১৯। সফর সামনে রেখে করা করোনা পরীক্ষায় পজিটিভ হয়েছেন রোমারিও শেফার্ড। ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে ৫ ওয়ানডে এবং ৩টি টি-টোয়েন্টি খেলা এই অলরাউন্ডারের জায়গায় তাই নেওয়া হয়েছে তরুণ পেসার কিওন হার্ডিকে। ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, দুই টেস্ট ও তিন ওয়ানডের সফরের আগে তারা প্রথম দফার করোনা পরীক্ষা করিয়েছে গত শনিবার। দ্বিতীয় ও শেষ দফার পরীক্ষাটি হয়েছে বৃহস্পতিবার।

২০ জানুয়ারি মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে প্রথম ওয়ানডে দিয়ে শুরু হচ্ছে সিরিজ। সেটি সামনে রেখে ক্যারিবীয় দলের ঢাকায় আসার দিন থেকে স্বাগতিক দলের প্রস্তুতি শিবিরও। আজ দ্বিতীয় দফার করোনা পরীক্ষার পর কাল হোটেলেও তোলা হচ্ছে বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটারদের। বায়ো বাবল বা জৈব সুরক্ষা বলয়ে ঢুকে পড়ছেন তাঁরা। তবে টেস্ট এবং ওয়ানডের প্রাথমিক দলে থাকা সবাই নন। টেস্ট দলের আট ক্রিকেটার (যাঁরা ওয়ানডে দলে নেই) কবে হোটেলে উঠবেন, সে সিদ্ধান্তের জন্য জাতীয় দলের হেড কোচ রাসেল ডমিঙ্গোর অপেক্ষায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী জানিয়েছেন তেমনই, ‘কখন ও কিভাবে এই ক্রিকেটারদের বায়ো বাবলে অন্তর্ভুক্ত করতে চান, সেটি আমরা রাসেল ডমিঙ্গোর কাছ থেকে জানব। তিনি যেভাবে চাইবেন, সেভাবেই হবে।’ ক্রিসমাসের ছুটি কাটিয়ে ডমিঙ্গো গত রাতে ঢাকায়ও এসে পড়েছেন। একই দিন সকালে ফিরেছেন ফাস্ট বোলিং কোচ ওটিস গিবসন এবং ফিল্ডিং কোচ রায়ান কুকও, বিকেলে কম্পিউটার অ্যানালিস্ট শ্রীনিবাস চন্দ্রশেখরনও। গত পরশু আসা নতুন ব্যাটিং কোচ জন লুইস আছেন কোয়ারেন্টিনে। দুটি পরীক্ষায় নেগেটিভ হলে এই ব্রিটিশ কোচও অনুশীলনে যোগ দেওয়ার ছাড়পত্র পাবেন বলে আশা করছে বিসিবি। জানা কথাই যে স্পিন বোলিং উপদেষ্টা ড্যানিয়েল ভেট্টোরি এই সিরিজে আসতে পারছেন না। আপাতত তাঁর কাজটি স্থানীয় সোহেল ইসলামকে দিয়ে চালিয়ে নেবে দেশের সর্বোচ্চ ক্রিকেট প্রশাসন। এদিকে সর্বোচ্চ সতর্কতার অংশ হিসেবে চট্টগ্রামে চার দিনের প্রস্তুতি ম্যাচের দৈর্ঘ্যও এক দিন কমিয়ে ফেলা হয়েছে। ২৭ জানুয়ারি বন্দরনগরীর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে নির্বাচন কমিশনের নিয়ন্ত্রণকক্ষও এমএ আজিজ স্টেডিয়ামের জিমনেসিয়ামে হওয়ায় ভিড় এড়াতেই এই ব্যবস্থা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা