kalerkantho

মঙ্গলবার। ৫ মাঘ ১৪২৭। ১৯ জানুয়ারি ২০২১। ৫ জমাদিউস সানি ১৪৪২

অস্ট্রেলিয়ানরা কান্নাকাটি করছে কেন? প্রশ্ন শেবাগের

অনলাইন ডেস্ক   

৫ ডিসেম্বর, ২০২০ ১৭:৪৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



অস্ট্রেলিয়ানরা কান্নাকাটি করছে কেন? প্রশ্ন শেবাগের

ভারত-অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার প্রথম টি-টোয়েন্টিতে বিতর্ক শুরু হয়েছে 'কনকাশন সাব' নিয়ে। রবীন্দ্র জাদেজার 'কনকাশন' বদলি হয়ে মাঠে নামা যুজবেন্দ্র চাহাল ৩ উইকেট নিয়ে ভারতকে ১১ রানের জয় এনে দেন। কিন্তু অল-রাউন্ডার জাদেজার জায়গায় স্পেশালিস্ট স্পিনার চাহালকে নামানোয় তীব্র আপত্তি জানিয়েছে অজি শিবির। তারা এটাকে ভারতের 'চালাকি' হিসেবে অভিহিত করেছে। এবার অস্ট্রেলিয়াকে পাল্টা খোঁচা মারলেন বীরেন্দ্র শেবাগ।

জাদেজার মাথায় যখন বল লাগে তখন মাঠে কোনো ফিজিও আসেননি। তাই ধরে নেওয়া হয় যে, জাদেজার খুব একটা লাগেনি। এরপর ব্যাটিং করতে করতে জাদেজার হ্যামস্ট্রিংয়ে টান লাগে। সেটার জন্য অবশ্য ফিজিও মাঠে আসেন। সামান্য শুশ্রুষার পর ওই অবস্থায় ব্যাটিং চালিয়ে যান জাদেজা। তবে হ্যামস্ট্রিংয়ের চোটের জন্য তার পক্ষে বোলিং করা সম্ভব ছিল না। এই সুযোগটাও কাজে লাগায় ভারত। 'কনকাশন সাব' হিসেবে চাহালকে নামানো হয়।

ম্যাচের পর অজি অল-রাউন্ডার হেনরিকসও ভারতীয় দলের বিরুদ্ধে 'কনকাশন সাব' নিয়মের অপব্যবহারের অভিযোগ তুলে বলেছেন, 'হেলমেটে বল লাগায় জাদেজার কনকাশন সাব নামানো যেতেই পারে। তবে জাদেজা একজন অল-রাউন্ডার। চাহাল একজন বিশেষজ্ঞ স্পিনার। কনকাশনের ক্ষেত্রে একই রকম ক্রিকেটারদের সাব হিসেবে নামানো যায়। এক্ষেত্রে জাদেজা আর চাহাল কীভাবে একই রকম ক্রিকেটার হলো সেটা বুঝতে পারছি না।'

মাইকেল ভন, হর্ষ ভোগলে সহ অনেক বিশেষজ্ঞ টুইটারে প্রশ্ন তোলেন। সঞ্জয় মাঞ্জরেকার বলেন, 'এখন এটার পর কনকাশন বদলির ক্ষেত্রে অনেক ভাবনাচিন্তা করা হবে। পুরো ধারণা নিয়েই চিন্তা করতে হবে। কারণ, আইন তৈরি হয় ভালো উদ্দেশ্য নিয়েই কিন্তু আমরা সবাই নিজেদের সুবিধার জন্য সেটার ফাঁক বের করায় ওস্তাদ। ভারত আইনটার ফায়দা নিয়েছে কি না, আমরা জানি না। তবে এখানে আইসিসির আরও ভালোভাবে নজর দেওয়া উচিত, যাতে একটা দল খুব বড় সুবিধা পেয়ে না যায়।'

এবার বিষয়টি নিয়ে মুখ খুললেন সাবেক ভারতীয় ওপেনার বীরেন্দ্র শেবাগ। তিনি কোহলিদের পাশে দাঁড়িয়ে সনি সিক্সকে বলেন, 'আমাদের জায়গা থেকে সিদ্ধান্তটা সঠিক। জাদেজা খেলার মতো ফিট ছিল না। বল করতে পারত না। কনকাশন হতে কতক্ষণ সময় লাগে? অনেক সময় ২৪ ঘণ্টা সময়ও লাগে। ভারত সুযোগের সদ্ব্যবহার করেছে। ড্রেসিংরুমে এসে হেলমেট খোলার পর বোঝা যায় অবস্থা কতটা গুরুতর। অনেক সময় মাথা ঘোরে। আমি অনেকবারই হেলমেটে আঘাত পেয়েছি। আমি জানি কেমন লাগে। আমাদের সময় তো এমন নিয়ম ছিল না। তবে স্মিথ মাথায় আঘাত পাওয়ার পর তার বদলি হিসেবে লাবুশেন নেমে রান করেছে। তারা প্রথম সুবিধাভোগী। এ নিয়ে অস্ট্রেলিয়ানদের কান্নাকাটি অভিযোগের কিছু নেই।'

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা