kalerkantho

রবিবার। ৩ মাঘ ১৪২৭। ১৭ জানুয়ারি ২০২১। ৩ জমাদিউস সানি ১৪৪২

‘১০০ মাইল বেগে বল করতে আমাকে ড্রাগ নিতে বলা হয়েছিল’

অনলাইন ডেস্ক   

২৫ নভেম্বর, ২০২০ ১০:০৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘১০০ মাইল বেগে বল করতে আমাকে ড্রাগ নিতে বলা হয়েছিল’

শোয়েব আখতার। ছবি: এএফপি

ক্যারিয়ারের শুরুতেই পাকিস্তানের গতি তারকা শোয়েব আখতারকে বলা হয়েছিল গতিতে বোলিং করার জন্য ড্রাগ নিতে। তবে সে ধ্বংসের পথে হাঁটেননি শোয়েব। সবসময়ই ড্রাগকে ‘না’ বলেছেন তিনি। সোমবার পাকিস্তানের মাদকবিরোধী বাহিনীর (এএনএফ) বার্ষিক মাদক ধ্বংসকরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমনটিই জানিয়েছেন শোয়েব নিজেই।

শোয়েব বলেন, ‘আমি যখন ক্রিকেট খেলা শুরু করি, তখন আমাকে বলা হয়েছিল যে আমি বেশি গতিতে বোলিং করতে পারি না এবং ঘণ্টায় ১০০ কিলোমিটার (আসলে ১০০ মাইল হবে) গতি তুলতে হলে আমাকে ড্রাগ নিতে হবে। কিন্তু আমি সবসময়ই সেটা প্রত্যাখ্যান করে এসেছি।’

খেলোয়াড়দের সুস্থ থাকার বিভিন্ন উপায় নিয়ে কথা বলেন এই সাবেক ক্রিকেটার। প্রসঙ্গক্রমে পাকিস্তানের ৬৮ বছর বয়সী প্রধানমন্ত্রী ও সাবেক ক্রিকেটার ইমরান খানের এখনো ফিট থাকার উদাহরণও দেন শোয়েব।

মাদক ছাড়াই স্পিডোমিটারে ঘণ্টায় ১০০ মাইল গতি তুলেছেন শোয়েব আখতার। ২০০২ সালের ২৭ এপ্রিলে ঘণ্টায় ১০০ মাইল গতি তুলে (১০০.০৪ মাইল) প্রথমবার বিশ্বের দ্রুততম বলের রেকর্ডটা শোয়েব নিজের করে নিয়েছিলেন। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের তৃতীয় ম্যাচে লাহোরে ক্রেইগ ম্যাকমিলানকে ওই গতিতে বলটা করেন শোয়েব। শোয়েবের আগে ক্রিকেটে দ্রুততম বলের রেকর্ডটি ছিল অস্ট্রেলিয়ান কিংবদন্তি জেফ টমসনের (১৯৭৫ সালে ৯৯.৮ মাইল)। 

নিজের রেকর্ডটা পরের বছরই আবার ভেঙে দেন শোয়েব। ২০০৩ বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচ ছিল সেটি। দক্ষিণ আফ্রিকার নিউল্যান্ডসে সেদিন নিজের করা দ্বিতীয় ওভারের শেষ বলে শোয়েব গতি তোলেন ঘণ্টায় ১৬১.৩ কিলোমিটার। মাইলের হিসেবে ঘণ্টায় ১০০.২ মাইল! এখন পর্যন্ত ক্রিকেটে এই গতি ছাড়িয়ে যেতে পারেনি কেউ।

 

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা