kalerkantho

বুধবার। ৬ মাঘ ১৪২৭। ২০ জানুয়ারি ২০২১। ৬ জমাদিউস সানি ১৪৪২

আরিফুলের বীরত্বে খুলনার রোমাঞ্চকর জয়

অনলাইন ডেস্ক   

২৪ নভেম্বর, ২০২০ ২৩:৫৫ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আরিফুলের বীরত্বে খুলনার রোমাঞ্চকর জয়

শেষ পর্যন্ত জেমকন খুলনাকে ডুবতে দিলেন না আরিফুল হক। তার দারুণ ফিনিশিংয়ে ফরচুন বরিশালের বিপক্ষে রোমাঞ্চকর জয় তুলে নিল খুলনা। শেষ ওভারে যখন ২২ রান প্রয়োজন, তখন ৪ ছক্কায় এক বল হাতে রেখেই দলকে জয় এনে দিলেন আরিফুল।

মঙ্গলবার বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে বরিশালের বিপক্ষে ৪ উইকেটে জয় তুলে নেয় খুলনা। টস হেরে প্রথমে ব্যাট করে ৯ উইকেটে ১৫২ রানে থামে বরিশাল। জবাবে ৬ উইকেট হারিয়ে লক্ষ্যে পৌঁছায় খুলনা।

১৫৩ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরুতেই বড় ধাক্কা খায় খুলনা। ইনিংসের প্রথম ওভারেই এনামুল হক বিজয় (৪) ও ইমরুল কায়েসকে (০) ফিরিয়ে দেন তাসনিক আহমেদ। সেখান থেকে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও সাকিব আল হাসানের ব্যাটে ভরসা খুঁজছিল দল। তবে দুজনই ফেরেন থিতু হয়ে। ১৭ রান করা মাহমুদউল্লাহকে ফেরান মেহেদী হাসান মিরাজ। ১৩ মাস পর ক্রিকেটে ফেরা সাকিবকে ফেরান সুমন খান। ১৩ বলে ২ চারে ১৫ রান করেন সাকিব।

এর পর জহুরুল ইসলাম অমি ও আরিফুল জুটি বাঁধেন। জহুরুল ২৬ বলে ৩ চার ও ১ ছক্কায় ৩১ রান করে ফেরেন। এরপর শামিম হোসেন খেলেন ১৮ বলে ২৬ রানের ইনিংস।

জয়ের সমীকরণটা এরপরও সহজ হয়নি খুলনার জন্য। ৪ ওভারে ৪৪ রান থেকে শেষ ওভারে প্রয়োজন পড়ে ২২। আরিফুলের বীরত্বে যা পেরিয়েছে খুলনা। বোলার মেহেদী হাসান মিরাজকে তিনি ডুবিয়েছেন হতাশায়। ৩৪ বলে ২ চার ও ৪ ছক্কায় অপরাজিত ৪৮ রান করেন আরিফুল।

বরিশালের পক্ষে তাসকিন ও সুমন খান সর্বাধিক ২টি করে উইকেট নিয়েছেন।

এর আগে পারভেজ হোসেন ইমনের ফিফটিতে দেড়শ ছাড়ানো পুঁজি গড়ে বরিশাল। বাঁহাতি ব্যাটসম্যান ইমন ৪২ বলে ৩ চার ও ৪ ছক্কায় খেলেন ৫১ রানের ইনিংস। এছাড়া তৌহিদ হৃদয় ২৭, মহিদুল ইসলাম অঙ্কন ২১, তামিম ইকবাল ১৫ রান করেন। শেষ দিকে তাসকিন আহমেদ ৫ বলে করেন অপরাজিত ১২ রান।

খুলনার পক্ষে শহিদুল ইসলাম সর্বাধিক ৪ উইকেট নেন। ২টি করে উইকেট নিয়েছেন শফিউল ইসলাম ও হাসান মাহমুদ। ম্যাচসেরা হয়েছেন আরিফুল হক।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:
বরিশাল: ১৫২/৯ (ইমন ৫১, তৌহিদ হৃদয় ২৭, অঙ্কন ২১; শহিদুল ৪/১৭)
খুলনা: ১৫৫/৬ (আরিফুল ৪৮*, শামিম ২৬; তাসকিন ২/৩৩, সুমন ২/২১)
ফল: খুলনা ৪ উইকেটে জয়ী
ম্যাচসেরা: আরিফুল হক।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা