kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৬ কার্তিক ১৪২৭। ২২ অক্টোবর ২০২০। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

ঢিলেমি করার কোনো সুযোগ নেই : পাপন

অনলাইন ডেস্ক   

২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৯:৫৩ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ঢিলেমি করার কোনো সুযোগ নেই : পাপন

করোনার কারণে গত মার্চ থেকে বন্ধ হয়ে আছে ঘরোয়া ক্রিকেট। দেশে এখনো করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব মোটেও কমেনি। আসছে শীতে আরও বাড়তে পারে। কিন্তু করোনার ভয়ে ঘরে বসে থেকে দিন কাটছে না ঘরোয়া পর্যায়ের ক্রিকেটারদের। তারা ইতোমধ্যেই ঘরোয়া লিগগুলো চালুর দাবি জানাচ্ছে। তবে বিসিবি ঘরোয়া লিগ চালু করতে আরও সময় নিতে চায়। এর আগে অনুশীলনে থাকা ক্রিকেটারদের নিয়ে হবে একটি টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট।

আজ মিরপুর শের-ই-বাংলায় সাংবাদিকদের বিসিবি সভাপতি নাজামুল হাসান পাপন বলেন, 'খেলা চালু করা তো গুরুত্বপূর্ণ নয়, কথা হলো আমরা নিরাপত্তা নিশ্চিত করব কিভাবে? খেলোয়াড়দের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা আমাদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সে কারণেই আমি বলেছি ক্লাবগুলোকে ডাকতে, খেলোয়াড়দের সঙ্গে বসতে এবং আমাদেরকে একটা পরিকল্পনা দিতে। আমাদের কাছে যদি মনে হয় সেই পরিকল্পনা মোটামুটি সন্তোষজনক, তাহলে আমরা দ্রুত খেলা চালু করে দেব।'

গত মার্চের মাঝামাঝি প্রিমিয়ার লিগের খেলা এক রাউন্ড হয়েই স্থগিত হয়ে গেছে। এবার কি সেই লিগ পুনরায় শুরু হবে নাকি নতুন মৌসুম শুরু হবে? জবাবে পাপন বলেন, 'চেষ্টা তো করব যেটা স্থগিত আছে, সেটা আয়োজন করার। এরপর আগামী বছরেরটা আগামী বছর হবে। আমাদের ইচ্ছা দুটোই করা। যদি না হয় তাহলে এবারের যেটা বাকি, সেটা সামনের বছর হবে, সামনের বছরেরটা হবে না। সবকিছু এখন আগাম বলাটা কঠিন। পরিস্থিতি কী হবে, সেটার উপর নির্ভর করছে সবকিছু।'

বিসিবি সভাপতি আরও বলেন, 'আগে আমার দেখতে হবে কোথায় খেলা হবে, খেলোয়াড়রা কোথায় থাকবে, ক্লাবগুলোর সঙ্গে কথা বলতে হবে। ওদেরকে তো অনেককিছু মেইনটেইন করতে হবে। তাহলে আমাদেরকে একটা গাইডলাইন দিতে হবে। এই গাইডলাইন দেখে কোন কোন ক্লাব রাজি খেলার জন্য, সেটাও জানতে হবে। এই সবকিছু নিয়ে আমি বসতে বলেছি। আমার মনে হয় আগামী ৫-৬ দিনের মধ্যে মনে হয় সবকিছু জেনে যাব।'

আজই করোনাবিধি নিয়ে মতনৈক্যের কারণে টাইগারদের শ্রীলঙ্কা সফর বাতিল হয়ে গেছে। বিশ্বের করোনা পরিস্থিতির উদাহরণ টেনে পাপন বলেন, 'আমরা যদি অন্যান্য দেশের দিকে তাকাই, বিশেষ করে ইউরোপে, যত দিন যাচ্ছে, সেখানকার পরিস্থিতি আরো খারাপ হচ্ছে। ওরা বলছে সামনে আরও খারাপ হবে। এই পরিস্থিতিতে আমাদের এখানে কী হবে, আমরা তো বলতে পারছি না। কাজেই আমাদেরকে সম্পূর্ণ সতর্ক অবস্থায় থাকতে হবে। ঢিলেমি দেওয়ার কোনো সুযোগ নেই।'

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা