kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৬ কার্তিক ১৪২৭। ২২ অক্টোবর ২০২০। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক অনলাইন দাবার সমাপ্তি

অনলাইন ডেস্ক   

২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৮:০৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক অনলাইন দাবার সমাপ্তি

পুরস্কার বিতরণের মাধ্যমে শেষ হলো 'জয়তু শেখ হাসিনা' আন্তর্জাতিক অনলাইন দাবা প্রতিযোগিতা। আজ রাজধানীর একটি হোটেলে এই পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রধান অতিথি ছিলেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল এমপি। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহা পুলিশ পরিদর্শক ও বাংলাদেশ দাবা ফেডারেশনের সভাপতি ড. বেনজির আহমেদ। অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যোগ দেন এশিয়ান দাবা ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক হাসিম আল তাহের ।

পুরস্কারের প্রাইজমানি বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুমোদনক্রমে সরাসরি পাঠিয়ে দেয়া হবে খেলোয়াড় বা তার প্রতিনিধির ব্যাংক একাউন্টে। টুর্নামেন্টে অংশ নেয়া বাংলাদেশের ১৫জন দাবাড়ুর প্রত্যেককে ফেডারেশনের সভাপতি ড. বেনজির আহমেদের পক্ষ থেকে নগদ ৭ হাজার টাকা করে প্রদান করা হয়েছে।

শনিবার রাতে শেষ হওয়া তিন দিনব্যাপী এই টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন ইন্দোনেশিয়ার গ্রান্ড মাস্টার মেগোরাটো সুশান্ত। ভারতীয় গ্র্যান্ড মাস্টার এস এল নারায়ানান রানারআপ এবং ইরানের গ্র্যান্ডমাস্টার এম আমিন তাবতাবেই তৃতীয় স্থান লাভ করেছেন। গ্র্যান্ড মাস্টার মেগোরাটো, গ্র্যান্ড মাস্টার নারায়ানান ও গ্র্যান্ডমাস্টার তাবতাবেই সমান সাত পয়েন্ট অর্জন করলেও টাইব্রেকিং পদ্ধতিতে তাদের অবস্থান নির্ধারণ করা হয়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৪তম জন্মদিন উপলক্ষে এই টুর্নামেন্টের আয়োজন করা হয়েছে। টুর্নামেন্টের সর্বমোট প্রাইজমানি ছিল ৬ হাজার মার্কিন ডলার। তন্মধ্যে চ্যাম্পিয়ন পাবে ১২০০ ডলার, ২য় স্থান ধারী, ৮০০ ডলার, ৩য় স্থানধারী ৫০০ ডলার, চতুর্থস্থানধারী ৩০০ ডলার এবং ৫ম থেকে ৯ম স্থানধারী প্রত্যোকে পাবে ২০০ ডলার করে। ১০ম থেকে ১৬ তম স্থান ধারীর প্রত্যোকে পাবে ১০০ মার্কিন ডলার।

টুর্নামেন্টে সর্বমোট ৭৪জন দাবাড়ু অংশ নেন। এদের মধ্যে ৪৯ জন বাংলাদেশের। ১৫টি দেশ থেকে অংশ নিয়েছেন বাকী ২৫জন দাবাড়ু। এদের মধ্যে ১৭জন গ্র্যান্ডমাস্টার ও ছয়জন আন্তর্জাতিক মাস্টার। অংশগ্রহণকারী দেশগুলো হচ্ছে – রাশিয়া, ফিলিপাইন, ভিয়েতনাম, ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া, ইরান, সিঙ্গাপুর, ভারত, পাকিস্তান, নেপাল, ভুটান, শ্রীলংকা, আফগানিস্তান, মালদ্বীপ ও স্বাগতিক বাংলাদেশ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা