kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৬ কার্তিক ১৪২৭। ২২ অক্টোবর ২০২০। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

ভারতের দুই ক্রিকেটারকে 'লো প্রোফাইল' বলে বিপদে মাঞ্জারেকার

অনলাইন ডেস্ক   

২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৯:২১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভারতের দুই ক্রিকেটারকে 'লো প্রোফাইল' বলে বিপদে মাঞ্জারেকার

আবারও বিতর্কে জড়িয়ে পড়লেন ভারতের ধারাভাষ্যকার সঞ্জয় মাঞ্জারেকার। এবার চেন্নাই সুপার কিংসের অম্বাতি রায়ুডু ও পীযূষ চাওলাকে 'প্রিটি লো প্রোফাইল' ক্রিকেটার হিসেবে চিহ্নিত করায় সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্রিকেটপ্রেমীদের তোপের মুখে পড়েছেন। এর আগেও তিনি এ ধরনের উটকো মন্তব্য করে বিপদে পড়েছেন। বিসিসিআই তাকে ধারাভাষ্য প্যানেল থেকে বহিস্কার করেছে। এমনকী দুইবার লিখিত ক্ষমা প্রার্থনা করেও তিনি চলতি আইপিএলে ধারাভাষ্য দেওয়ার অনুমতি পাননি।

গতকাল শনিবার আইপিএলের উদ্বোধনী ম্যাচে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সকে ৫ উইকেটে হারিয়েছে চেন্নাই সুপার কিংস। ম্যাচের পর টুইটারে মাঞ্জারেকার লিখেন, 'লো প্রোফাইল দুই ক্রিকেটার পীযূষ চাওলা ও অম্বাতি রায়ুডুকে নিয়ে আমি খুব খুশি। পীযূষ চাওলা চমৎকার বল করেছে। পঞ্চম ও ১৬তম ওভারেও বল করেছে। রায়ুডু শটের বিচারে আইপিএল ক্যারিয়ারের অন্যতম সেরা ইনিংস খেলল। ওয়েল ডান চেন্নাই সুপার কিংস!'

এরপর 'লো প্রোফাইল' শব্দগুলো নিয়ে শুরু হয় বিতর্ক। একজন লিখেছেন, 'ওরা লো প্রোফাইল? প্রোফাইলটা কে ঠিক করেছে?' আরেকজন লিখেছেন, 'প্রিয় সঞ্জয়, তোমার 'আন্ডাররেটেড' শব্দটা ব্যবহার করা উচিত ছিল। আগামী দিনে দয়া করে সঠিক শব্দ বেছে নিও।' অন্য একজন লিখেছেন, 'লো প্রোফাইল নয়, আন্ডাররেটেড হল সঠিক শব্দ।' ধিক্কারের ভঙ্গিতে একজন লিখেছেন, 'বিশ্বকাপজয়ী দলের এক সদস্যের প্রোফাইলকে লো বলছেন সঞ্জয় মাঞ্জারেকার!'

এর আগেও বার বার বিতর্কে জড়িয়েছেন ভারতের জাতীয় দলের সাবেক এই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান। গত বছরের বিশ্বকাপে তিনি রবীন্দ্র জাদেজাকে 'বিটস অ্যান্ড পিসেস' ক্রিকেটার হিসেবে চিহ্নিত করেছিলেন। গত বছরের নভেম্বরে ইডেনে গোলাপি বলের টেস্টে ধারাভাষ্য দেওয়ার সময়ই পাশে থাকা হর্ষ ভোগলের যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। বলেন, ভোগলে তো প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট বা লিস্ট এ ক্রিকেটও খেলেননি। এরপর গত মার্চে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড (বিসিসিআই) ধারাভাষ্যকারদের তালিকা থেকে মাঞ্জারেকারের নাম বাদ দিয়ে দেয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা