kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৬ কার্তিক ১৪২৭। ২২ অক্টোবর ২০২০। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

এবারের আইপিএলে কমবে চার-ছক্কার ঝড়?

অনলাইন ডেস্ক   

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৮:১৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



এবারের আইপিএলে কমবে চার-ছক্কার ঝড়?

আইপিএলের সাজে সেজেছে দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম। ছবি : টুইটার

আর কিছুক্ষণ পর মরুদেশ আরব আমিরাতে শুরু হতে যাচ্ছে আইপিএলের ত্রয়োদশ আসর। করোনাভাইরাসের কারণে আবুধাবি, দুবাই ও শারজার তিনটি দর্শকবিহীন স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে ম্যাচগুলো।  আইপিএল মানে চার-ছক্কার বন্যা। কিন্তু মরুদেশের আইপিএলে তেমনটা দেখা নাও যেতে পারে। কারণ যে স্টেডিয়ামগুলোতে খেলা হবে, সেগুলো আয়তনে বেশ বড়। তার ওপর সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে উইকেট ক্রমশ মন্থর হয়ে আসবে। মাঠে বল গড়ানোর আগে দেখে নেওয়া যাক স্টেডিয়ামগুলোর খুঁটিনাটি। 

শেখ জায়েদ স্টেডিয়াম (আবুধাবি) : ২০ হাজার দর্শকাসন বিশিষ্ট এই স্টেডিয়ামে এবারের আইপিএলের উদ্বোধনী ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে।প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হচ্ছে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স ও চেন্নাই সুপার কিংস। ২০০৪ সালে এই স্টেডিয়ামটি তৈরি হয়। প্রথম ম্যাচ ছিল স্কটল্যান্ড-কেনিয়ার। সেটি ছিল ইন্টার কন্টিনেন্টাল কাপের খেলা। ২০০৯ সালে লাহোরে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের উপরে সন্ত্রাসবাদী হামলার পর ঘরের মাঠে হোম ম্যাচ আয়োজন করতে পারত না পাকিস্তান। ফলে অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, নিউজিল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে তারা এই মাঠেই সিরিজ আয়োজন করত। এবারের আইপিএলের লিগ পর্বের ১৯টি ম্যাচ হবে শেখ জায়েদ স্টেডিয়ামে। 

দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম :  দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের আসন সংখ্যা ২৫,০০০ হলেও ৩০ হাজার দর্শক বসার ব্যবস্থা আছে। ২০০৯ সালে তৈরি হয় এই স্টেডিয়াম। প্রথম ওয়ানডে ম্যাচটি হয়েছিল অস্ট্রেলিয়া ও পাকিস্তানের মধ্যে। দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে প্রথম বোলার হিসেবে শাহিদ আফ্রিদি ৫ উইকেট নিয়েছিলেন। ম্যাচটি জিতেছিল পাকিস্তান। ২০১৬ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্টে পাকিস্তানের ব্যাটসম্যান আজহার আলী এই স্টেডিয়ামে অপরাজিত ৩০২ রানের ইনিংস খেলেছিলেন। এটাই এই স্টেডিয়ামে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ স্কোর। এবারের আইপিএলের ২৪টি ম্যাচ হবে দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে। 

শারজা ক্রিকেট স্টেডিয়াম : ১৯৮২ সালে এই স্টেডিয়ামটি তৈরি হয়। এর আসন সংখ্যা ১৭ হাজার। ভারত-পাকিস্তানের একাধিক ওয়ানডে ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছে এই স্টেডিয়ামে। এখানেই চেতন শর্মার শেষ বলে ছক্কা মেরে পাকিস্তানকে ম্যাচ জিতিয়েছিলেন জাভেদ মিয়াঁদাদ। এই স্টেডিয়ামে ১৯৯৮ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে মরু ঝড় তুলেছিলেন শচীন টেন্ডুলকার। সেই ত্রিদেশীয় সিরিজ জিতেছিল ভারত। এবারের আইপিএলের ১২টি ম্যাচ হবে শারজা স্টেডিয়ামে। এর আগে ২০১৪ সালে এই মাঠে আইপিএলে ৬টি ম্যাচ হয়েছিল।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা