kalerkantho

রবিবার। ৫ আশ্বিন ১৪২৭ । ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০। ২ সফর ১৪৪২

সৌম্যর চোখে লম্বা শ্রীলঙ্কা সফরের ভালো দিক

অনলাইন ডেস্ক   

১৩ আগস্ট, ২০২০ ২০:০৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সৌম্যর চোখে লম্বা শ্রীলঙ্কা সফরের ভালো দিক

করোনাভাইরাসের কারণে শ্রীলঙ্কায় সিরিজ শুরুর বেশ আগেভাগে যেতে হবে এবং সফরের দৈর্ঘ্যও বড় হবে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের। সিরিজ শুরুর আগে সেখানে পুরো দলকে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। এটিকে ইতিবাচকভাবেই দেখছেন দেশের বাঁ-হাতি ওপেনার সৌম্য সরকার। তার মতে, সিরিজ শুরুর আগে বেশিদিন একত্রে থাকাটা টিম ওয়ার্ক হিসেবেই কাজ করবে। যা দলের উপকারে আসবে।

২৪ অক্টোবর থেকে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ শুরু হবে বাংলাদেশের। এজন্য এক মাস আগে ২৩ সেপ্টেম্বর টাইগাররা দেশ ছাড়বে। শ্রীলঙ্কায় পৌঁছে বাধ্যতামূলক ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে মুমিনুল হকের দলকে। কোয়ারেন্টাইন শেষে সিরিজের প্রস্তুতির জন্য হাই পারফরমেন্স দলের বিপক্ষে শুরু হবে অনুশীলন ম্যাচ। করোনাভাইরাসের কারণে গত মার্চের মাঝামাঝি সময় থেকে খেলার বাইরে রয়েছে বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা।

সৌম্য বলেন, 'অবশেষে আমরা ক্রিকেট শুরু করতে যাচ্ছি, এটি খুবই আনন্দায়ক। যখন আমি ইংল্যান্ডের খেলা দেখতাম, আমার খারাপ লাগত। এখন শুনেছি, আমাদের একটি সফর নিশ্চিত হয়েছে। এটি খুবই ভালো দিক। প্রথমে সবকিছু নতুন বলেই মনে হয় কিন্তু আমি মনে করি দল যদি সেখানে একমাস আগে যায়, তবে অনুশীলন করা যাবে। সুরক্ষা সবকিছুর আগে, তাই দীর্ঘদিন সেখানে থাকাটাকে আমরা টিম ওয়ার্ক হিসেবেই বিবেচনা করব।'

যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি বজায় রাখার ব্যাপারে বেশ সর্তক সৌম্য। তিনি বলেন, 'সুরক্ষা হলো বড় ইস্যু। আমাদের দল পরিবারের মতো। তাই আমাদের নিরাপদ থাকতে হবে এবং প্রয়োজনে আমরা আইসোলেশনে থাকব।'

গত বছরের সেপ্টেম্বরে আফনিস্তানের বিপক্ষে দেশের হয়ে সর্বশেষ টেস্ট খেলেছেন সৌম্য। ওই বছরই জুলাইয়ে শ্রীলঙ্কায় খেলেছেন সর্বশেষ ওয়ানডে এবং চলতি বছরের মার্চে দেশের মাটিতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সর্বশেষ টি-টোয়েন্টি। জিম্বাবুয়ের সর্বশেষ সিরিজের পারফরমেন্সে খুশী সৌম্য, 'সর্বশেষ আমি টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলেছি জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে। আমি নতুন করে শুরু করার চেষ্টা করব। পারফরমেন্স করতেই হবে এবং দলের প্রয়োজনে অবদান রাখতে হবে। যেহেতু আমি এখন ক্রিকেটের মধ্যে আছি, তাই শতভাগ দেয়ার চেষ্টা করব।'

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা