kalerkantho

শুক্রবার । ১০ আশ্বিন ১৪২৭ । ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০। ৭ সফর ১৪৪২

'দ্রাবিড়কে আউট দিয়ে দিন, আজ ফ্রাইডে নাইট' -আম্পায়ারকে শোয়েব

অনলাইন ডেস্ক   

১০ আগস্ট, ২০২০ ১৫:৩৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'দ্রাবিড়কে আউট দিয়ে দিন, আজ ফ্রাইডে নাইট' -আম্পায়ারকে শোয়েব

অসম্ভব ধৈর্য আর দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ের জন্য 'দ্য ওয়াল' খ্যাতি পেয়েছেন রাহুল দ্রাবিড়। ভারতের সাবেক এই সুপারস্টারকে আউট করতে পারলে বেজায় খুশি হতো প্রতিপক্ষ। কিন্তু আম্পায়ার যদি বিরূপ আচরণ করেন, তাহলে তো ক্রিকেটারদের কিছু করার থাকে না। ১৯৯৯ সালে তিন জাতির পেপসি কাপে এক অদ্ভুত কাণ্ড করেছিলেন সাবেক পাকিস্তানি পেসার শোয়েব আখতার। আম্পায়ারকে বলেছিলেন, আজ ‘ফ্রাইডে নাইট’, দ্রাবিড়কে তাড়াতাড়ি আউট দিয়ে দিন।

ভারতে অনুষ্ঠিত ওই ত্রিদেশীয় সিরিজে অপর দল ছিল শ্রীলঙ্কা। লঙ্কানদের দুই ম্যাচে হারিয়ে ফাইনালে উঠেছিল ভারত। কিন্তু গ্রুপ পর্বের মতো ফাইনালেও ভারতকে পাত্তাই দেয়নি পাকিস্তান। প্রথমে ব্যাট করে পাকিরা ২৯১ রান তোলে। জবাবে খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে ১৬৮ রানে থেমে ১২৩ রানে ফাইনালে হারে স্বাগতিকরা। দলের বাকিদের ব্যর্থতার মাঝেও 'দ্য ওয়াল' হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন দ্রাবিড়। অবশ্য ২৫ রানের বেশি না করতে পারলেও তিনি পাকিস্তানিদের মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন।

সেই ম্যাচের স্মৃতিচারণ করে শোয়েব বলেছেন, 'রাহুল দ্রাবিড়ের মতো ব্যাটসম্যানকে আমরা লেংথ বল করতাম। স্টাম্পের কাছাকাছি থেকে বল করাতাম, ব্যাট ও প্যাডের মাঝের ফাঁক লক্ষ্য করে বল ছুড়তাম, যাতে প্যাডে বল লাগে। বেঙ্গালুরুতে এক ফাইনাল ম্যাচে আমি রমেশকে দ্রুত আউট করে ফেলেছিলাম, ৩-৪ উইকেট বেশ দ্রুত পড়ে গিয়েছিল। সেদিন শচীন টেন্ডুলকার খেলেনি। আফ্রিদি এবং আমি বললাম রাহুল দ্রাবিড় অনেক সময় নেবে, আর আজ আমাদের 'ফ্রাইডে নাইট'। ওকে আউট করা দরকার।'

শোয়েব আরও বলেন, 'আফ্রিদি আমাকে বলল, কিছু একটা করে ওর উইকেট নাও। নাহলে সে অনেকক্ষণ খেলবে। আমি তার প্যাডে বল লাগালাম আর আম্পায়ারকে বললাম, আউট দিয়ে দিন। আমি এটাও বললাম আজ আমাদের 'ফ্রাইডে নাইট!' কিন্তু আম্পায়ার আমাদের পক্ষে সিদ্ধান্ত দিল না। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আমরাই জিতেছি। দ্রাবিড় খুবই কঠিন ও দৃঢ়প্রতিজ্ঞ এক ব্যাটসম্যান ছিল। আমার জন্য সে খুবই কঠিন ছিল। কিভাবে যেন সে আমাকে খুব সহজে খেলতে পারত।'

শোয়েব উইকেট না পেলেও সেদিন দ্রাবিড়কে আউট করেছিলেন ম্যাচসেরা আজহার মেহমুদ। দ্রাবিড় তার পঞ্চম শিকার হয়েছিলেন। আরেকটি ব্যাপার হলো, ১৯৯৯ সালের ৪ এপ্রিল দিনটা ছিল রবিবার। শোয়েবের ‘ফ্রাইডে নাইট’ কথাটির অর্থ হলো, আজ কাজ শেষ হওয়ার দিন। রাতে হোটেলে পার্টি হবে। কারণ সেটাই ছিল ফাইনাল ম্যাচ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা