kalerkantho

সোমবার  । ১৯ শ্রাবণ ১৪২৭। ৩ আগস্ট  ২০২০। ১২ জিলহজ ১৪৪১

যাকে যমের মতো ভয় পেতেন কপিল

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৬ জুলাই, ২০২০ ১৮:১২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যাকে যমের মতো ভয় পেতেন কপিল

বিশ্ব ক্রিকেটের ইতিহাসে অন্যতম সেরা অল-রাউন্ডারটির নাম কপিল দেব। ভারতের সর্বকালের সেরা। তার নেতৃত্বেই প্রথম বিশ্বকাপ জিতেছিল ভারত। সেই কপিল দেব দলের এক সিনিয়রকে দেখে যমের মতো ভয় পেতেন! সেই সিনিয়র ক্রিকেটারটি হলেন ভেঙ্কটরাঘবন। তার নেতৃত্বে ৪টি টেস্ট এবং ৩টি ওয়ানডে খেলেছিলেন কপিল। ভারতের হয়  ৫৭ টেস্ট ও ১৫ ওয়ানডে খেলেছিলেন ভেঙ্কটরাঘবন। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তার উইকেটের সংখ্যা ১৬১। খেলা ছাড়ার পর তিনি আম্পায়ারিং করেছেন।

ভারতের সাবেক ওপেনার ডব্লিউভি রামনের সঙ্গে আলাপচারিতায় কপিল বলেছেন, 'আমি তাকে খুব ভয় পেতাম। প্রথমত, উনি ইংরাজিতে কথা বলতেন। দ্বিতীয়ত, আমরা সবাই তার রাগের সঙ্গে পরিচিত ছিলাম। এমনকি আম্পায়ার হওয়ার পরও উনি এমন ভাবে নট আউটের কথা জানাতেন, মনে হতো যেন বোলারদের ঝাড়ি দিচ্ছেন। ১৯৭৯ সালে যখন ইংল্যান্ডে গিয়েছিলাম, তখন উনি অধিনায়ক ছিলেন। আমি এমন জায়গায় বসতাম যাতে দেখা না যায়। দলে বেদি, প্রসন্ন, চন্দ্রশেখর ছিলেন। ওদের বিশেষ কিছু বলতে পারতেন না। আর স্বাভাবিক ভাবেই আমাকে দেখতে পেলেই রেগে আগুন হয়ে যেতেন। বেশি খেতাম বলে এক কোণে বসে ব্রেকফাস্ট সারতাম। কখনো দেখতে পেলেই বলতেন, এ তো সব সময় খেয়েই চলেছে।'

বার্বাডোজে এক টেস্টে কপিল দেব তখন অধিনায়ক। ক্যারিয়ারের শেষ প্রান্তে থাকা ভেঙ্কটরাঘবনও দলে আছেন। কপিলের কথায়, 'বার্বাডোজ টেস্টের উইকেট ছিল বাউন্সি। তাই জোরে বোলাররাই বেশি বল করছিল। আর প্রথম স্পিনার হিসেবে আমি আক্রমণে এনেছিলাম রবি শাস্ত্রীকে। সেটা দেখে স্লিপে দাঁড়ানো ভেঙ্কট আমাকে ডাক দেয়। আমি বললাম, ইয়েস, ভেঙ্কি...। ততদিনে তাকে আমি 'ভেঙ্কি' বলতে শুরু করেছি। তার আগে ডাকতাম 'স্যার' বলে। উনি বললেন, 'আমি কি বলেছি যে বল করব না?' আমি বুঝতেই পারছিলাম না যে কে অধিনায়ক, আমি না উনি। বললাম, 'ভেঙ্কি, তোমার সুযোগও আসবে বল করার।' আসলে এটাই ছিল তার স্বভাব। অধিনায়ক আমি হলেও তিনিই বকা দিতেন।'

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা