kalerkantho

মঙ্গলবার  । ২০ শ্রাবণ ১৪২৭। ৪ আগস্ট  ২০২০। ১৩ জিলহজ ১৪৪১

আমি ক্ষুব্ধ, রাগান্বিত, হতাশ : ব্রড

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১০ জুলাই, ২০২০ ২১:০৭ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আমি ক্ষুব্ধ, রাগান্বিত, হতাশ : ব্রড

সাউদাম্পটনে ইংল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজ টেস্ট দিয়ে ১১৬ দিন পর মাঠে ফিরল ক্রিকেট। ক্রিকেট ফেরার দিন ইংল্যান্ডের হয়ে খেলার সুযোগ পেলেন না দলের অন্যতম সেরা পেসার স্টুয়ার্ট ব্রড। একাদশে সুযোগ না পেয়ে স্বাভাবিকভাবেই তিনি হতাশ সেই সঙ্গে ক্ষুব্ধ। ৮ বছরের মধ্যে এই প্রথমবারের মতো ঘরের মাঠে টেস্ট ম্যাচে ইংল্যান্ডের একাদশে সুযোগ পাননি ব্রড। গত ডিসেম্বরে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সর্বশেষ সিরিজে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করেছিলেন তিনি। চার টেস্টে ১৪ উইকেট শিকার নিয়েছিলেন ব্রড।

এছাড়া টেস্টে ইংল্যান্ডের পক্ষে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উইকেট শিকারিও ব্রড। সবার ওপরে আছেন জেমস এন্ডারসন। ৫৮৬ উইকেট শিকার এন্ডারসনের। ব্রডের ঝুলিতে রয়েছে ১৩৮ ম্যাচে ৪৮৫টি উইকেট। অথচ দর্শক হয়ে সাউদাম্পটনে থাকতে হচ্ছে ব্রডকে। করোনার বিরতির পর ক্রিকেট ফেরার দিন যে, ব্রডকে দর্শক হয়ে থাকতে হবে, তা আগের দিনই জানতেন ব্রড। অধিনায়ক বেন স্টোকসই জানিয়েছিলেন সে কথা ব্রডকে।

স্কাই স্পোর্টসকে তিনি বলেন, 'আমাকে আগের দিন রাতেই স্টোকস নিশ্চিত করেছে, প্রথম টেস্টে আমি একাদশে থাকবো না। আমি শুনে অবাক হয়েছি। আমি ভাবতেও পারিনি, আমাকে বাদ দেয়া হবে। দলের পেস শক্তি বাড়াতে এমন সিদ্বান্ত নেয় টিম ম্যানেজমেন্ট। আমি এমনিতে আবেগী মানুষ নই। তবে আমি এখন অনেক বেশি আবেগী। একাদশে সুযোগ না পাওয়া আমি মানতে পারছি না। গত কয়েক দিন আমার জন্য ভীষণ কঠিন যাচ্ছে। যদি বলি আমি হতাশ, তবে কম বলা হবে। আমি ক্ষুব্ধ, রাগান্বিত, ভেতরে-ভেতরে জ্বলছি। এমন সিদ্ধান্ত মেনে নেওয়া কঠিন।'

গত কয়েক বছরে নিজের পারফরমেন্সের কথা তুলে ধরেন ব্রড, 'আমি পুরো ক্যারিয়ারে নিজের সেরাটা দিয়েছি। আর গত কয়েক বছরে আমার পারফরমেন্স ছিলো উর্ধ্বমুখী। আমি আরো ভালো করতে মুখিয়ে ছিলাম। সর্বশেষ দুটি সিরিজ- অ্যাশেজ ও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে আমি দলে ছিলাম, সেরা পারফরমেন্স করেছি এবং দলের জয়ে সেরা অবদান রেখেছি। রেকর্ড কিন্তু তাই বলছে।'

ইংল্যান্ডের পক্ষে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী ব্রড। নিজের ক্যারিয়ারের পরিসংখ্যান তুলে দ্রুত দলে ফেরার আশায় ব্রড, 'আমার ক্যারিয়ারের পরিসংখ্যানে আমি বলতে চাই, আমার কিছুই প্রমাণের নেই। আমি কি করতে পারি, আমি জানি। সকলেও জানে। নির্বাচকরাও জানেন। যখন আমি আবারও সুযোগ পাব, আবারো নিজের সেরাটা দিবো। যেকেউ আমার সাথে বাজি ধরতে পারেন।'

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা