kalerkantho

শনিবার । ২৪ শ্রাবণ ১৪২৭। ৮ আগস্ট  ২০২০। ১৭ জিলহজ ১৪৪১

বেন স্টোকসকে বড় সার্টিফিকেট দিলেন টেন্ডুলকার

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৯ জুলাই, ২০২০ ১৯:৩৮ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বেন স্টোকসকে বড় সার্টিফিকেট দিলেন টেন্ডুলকার

করোনাভাইরাসের কারণে ১১৬দিন স্থগিত হয়ে থাকার পর অবশেষে গতকাল সাউদাম্পটনে ইংল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজ টেস্ট ম্যাচ দিয়ে মাঠে ফিরেছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট। তবে নিয়মিত অধিনায়ক জো রুটের পরিবর্তে ঐতিহাসিক এ ম্যাচে ইংল্যান্ড দলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন বেন স্টোকস। এই প্রথম কোন আন্তর্জাতিক ম্যাচে দলকে নেতৃত্ব দিলেও স্টোকসে আস্থা রয়েছে ভারতের মাস্টার ব্লাস্টার ব্যাটসম্যান শচীন টেন্ডুলকারের।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের কিংবদন্তি ও ক্রিকেটের বরপুত্র ব্রায়ান লারার সাথে অনলাইন আলাপকালে স্টোকসের প্রশংসা করেন টেন্ডুলকার। তার মতে, একজন ক্রিকেটারের যে গুণ থাকা প্রয়োজন, তার সবটুকু রয়েছে স্টোকসের। অধিনায়ক হিসেবেও সে দারুন করবে। লারার প্রশ্ন ছিল বর্তমান ক্রিকেটে বিশ্বের একজন সেরা অল-রাউন্ডারের হাতে অধিনায়কত্ব, কিভাবে দেখছেন টেন্ডুলকার?

জবাবে টেন্ডুলকার জানান, 'স্টোকস এমন এক জন ক্রিকেটার, যে সামনে থেকে দলকে নেতৃত্ব দেবে। তার মধ্যে সেই গুণ আমরা অনেকবার দেখেছি। ব্যাটসম্যান-বোলার হিসেবে নিজেকে বিশ্বের কাছে তুলে ধরেছে সে। স্টোকস আগ্রাসী ক্রিকেটার। ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি রয়েছে। যেটুকু রক্ষণাত্মক হতে হয়, তা দলের প্রয়োজনে তাকে হতে হয়। আমি সব সময় বিশ্বাস করি, নিয়ন্ত্রিত আগ্রাসনই সঠিক পন্থা।'

ইংল্যান্ডের সেরা অল-রাউন্ডারদের পাশে স্টোকসের নাম থাকবে বলে মনে করেন টেন্ডুলকার। তিনি বলেন, 'স্টোকস যেখানে ছিল, আর এখন যেখানে আছে, এই তফাৎটাই বলে দেয় সে কেমন অল-রাউন্ডার। বিশ্বকাপের ফাইনালের কথায় ভাবুন। ব্যাট হাতে কিভাবে দলকে হার থেকে বাঁচালো সে। বল হাতে দলের আশা পূরণ করে সে। তাই এসবই প্রমাণ করে স্টোকস মানসিকভাবে কতটা শক্তিশালী। ভবিষ্যতে ইয়ান বোথাম, এন্ড্রু ফ্লিনটফের কাতারে থাকবে স্টোকস। এরাই ইংল্যান্ডের ক্রিকেট ইতিহাসে সব চেয়ে ভাল অল-রাউন্ডার।'

সত্তর-আশি দশকে ইংল্যান্ডের সেরা অল-রাউন্ডার ছিলেন বোথাম। দেশের হয়ে ১০২টি টেস্ট ও ১১৬টি ওয়ানডে খেলেছেন তিনি। ব্যাট হাতে টেস্টে ৫২০০ ও ওয়ানডেতে ২১১৩ রান করেন তিনি। বল হাতে টেস্টে ৩৮৩ ও ওয়ানডেতে ১৪৫টি উইকেট নেন বর্তমানে ৬৪ বছর বয়সী বোথাম। বোথামের বিদায়ে পর দীর্ঘদিন জেনুইন অল-রাউন্ডার পায়নি ইংল্যান্ড। পরবর্তীতে ১৯৯৮ সালে টেস্ট দিয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে পথ চলা শুরু হয় ফ্লিনটফের। ২০০৯ সাল পর্যন্ত দেশের জার্সিতে ৭৯টি টেস্ট, ১৪১টি ওয়ানডে ও ৭টি টি-২০ খেলেছেন। ব্যাট হাতে টেস্টে ৭৪১০, ওয়ানডেতে ৩৩৯৪ ও টি-টোয়েন্টিতে ৭৬ রান আর বল হাতে  নিয়েছেন যথাক্রমে ২২৬, ১৬৯ ও ৫ উইকেট।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা