kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭। ১৩ আগস্ট ২০২০ । ২২ জিলহজ ১৪৪১

'সাপে কাটার চিকিৎসা আছে, কিন্তু আফ্রিদির চিকিৎসা নেই'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৬ জুলাই, ২০২০ ১৩:৫০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'সাপে কাটার চিকিৎসা আছে, কিন্তু আফ্রিদির চিকিৎসা নেই'

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে সুস্থ হতেই পুনরায় ভারতের বিরুদ্ধে খোঁচাখুচি শুরু করেছেন সাবেক পাকিস্তান অধিনায়ক শহিদ আফ্রিদি। সম্প্রতি তিনি এক ইউটিউব শোতে বলেছেন, তাঁর সময়ে পাকিস্তান ভারতকে এমনভাবে হারাত যে, ভারতের খেলোয়াড়েরা নাকি ম্যাচের পর পাকিস্তানের খেলোয়াড়দের বলত, ''ভাই, মাফ করে দাও।' স্বাভাবিকভাবেই ভারতের ক্রিকেটাঙ্গন থেকে এর প্রতিক্রিয়া পাওয়া যাচ্ছে।

ভারতের সাবেক ক্রিকেটার তথা বর্তমান ধারাভাষ্যকার আফ্রিদিকে উদ্দেশ্য করে তীর্যক মন্তব্য করে বলেছেন, 'সাপে কামড় দিলে তার চিকিৎসা আছে। কিন্তু ভুল ধারণার কোনো চিকিৎসা নেই। একটা সময় পাকিস্তান দল খুবই ভালো ছিল। এখনো পাকিস্তান যথেষ্ট ভালো দল। একটা সময় ভারত যখন শারজায় পাকিস্তানের বিপক্ষে খেলত, তখন ম্যাচের ফল প্রতিবেশী রাষ্ট্রের দিকেই ঝুঁকে থাকত। কিন্তু ওই সময়টা কিন্তু আফ্রিদির সময় ছিল না।'

যুক্তি দেখিয়ে আকাশ চোপড়া বলেছেন, 'পাকিস্তানের শক্তি ছিল ইমরান খান, ওয়াসিম আকরাম কিংবা ওয়াকার ইউনিসের মতো দুর্দান্ত ক্রিকেটাররা। কোনো সন্দেহ নেই, তাদের সময় পাকিস্তান নিয়মিতই ভারতকে হারাত। কিন্তু আফ্রিদির খেলা শুরু করার সময় থেকে তার অবসরের সময় পর্যন্ত দৃশ্যপটটা পুরোপুরি বদলে গিয়েছিল।'

শুধু কথাই নয়, রীতিমতো পরিসংখ্যান তুলে ধরে আকাশ চোপড়া বলেন, 'সে সময়ের পরিসংখ্যানের দিকে তাকালে দেখবেন, এই দুই দল ১৫টি টেস্ট খেলেছে। দুই দলই জিতেছে ৫টি করে টেস্ট। ওয়ানডেতে পাকিস্তান ভারতের চেয়ে মাত্র দুটি ম্যাচ বেশি জিতেছে। ৮২ ম্যাচে পাকিস্তান জিতেছে ৪১টি, ভারত ৩৯টি। কিন্তু আমি মনে করি না যে ভারতের কোনো খেলোয়াড় কেবল দুটি ম্যাচ কম জেতার কারণে পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের কাছে গিয়ে মাফ চেয়েছে।'

এছাড়া টি-টোয়েন্টি সংস্করণে ভারতে পাকিস্তানের চেয়ে অনেকটা এগিয়ে। সেই পরিসংখ্যানও তুলে ধরেছেন আকাশ চোপড়া, 'টি-টোয়েন্টি সংস্করণের কথা যদি বলেন, তাহলে ভারত সত্যিই দুর্দান্ত। পাকিস্তানের সঙ্গে মুখোমুখি লড়াইয়ে ভারত এগিয়ে ৭-১ ব্যবধানে। আফ্রিদির গল্পটা পুরোনো দিনের। খুব সম্ভবত সে যা বলতে চেয়েছিল সেটা বলতে পারেনি।'

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা