kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২২ শ্রাবণ ১৪২৭। ৬ আগস্ট  ২০২০। ১৫ জিলহজ ১৪৪১

ভারতের বিশ্বকাপ জয়ে ফিক্সিং

লঙ্কান কিংবদন্তি ডি সিলভাকে ৬ ঘণ্টা জেরা!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২ জুলাই, ২০২০ ১৪:৪০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



লঙ্কান কিংবদন্তি ডি সিলভাকে ৬ ঘণ্টা জেরা!

তদন্ত কমিটির জেরা শেষে বেরিয়ে আসছেন অরবিন্দ ডি সিলভা। ছবি : এএফপি

ভারতের দ্বিতীয় ওয়ানডে বিশ্বকাপ জয় নিয়ে যে সন্দেহে দানা বেঁধেছে, সেটা বোধহয় এবার কাটতে যাচ্ছে। ৯ বছর আগে ২০১১ সালের এপ্রিলে মহেন্দ্র সিং ধোনির হাতে বিশ্বকাপের শিরোপা উঠেছিল। সেই বিশ্বকাপ ফাইনালের উপরেই এবার ফিক্সিংয়ের অভিযোগ। শ্রীলঙ্কার তখনকার ক্রীড়ামন্ত্রী মহিন্দ্রানন্দ আলুথগামাগের সাম্প্রতিক বক্তব্যের পর এ নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়। শেষ পর্যন্ত অভিযোগের নিষ্পত্তি করতে তদন্তে নেমেছে শ্রীলঙ্কা সরকার। শুরু হয়েছে জিজ্ঞাসাবাদ।

প্রাথমিকভাবে জেরা করা হয়েছে অরবিন্দ ডি সিলভা এবং বিশ্বকাপ দলে থাকা উপুল থারাঙ্গাকে। এরপর জেরা করা হবে সেই বিশ্বকাপের অধিনায়ক কুমার সাঙ্গাকারাকে। গতকাল বিশেষ তদন্ত কমিটি ১৯৯৬ বিশ্বকাপ জয়ের নায়ক অরবিন্দ ডি সিলভাকে টানা ৬ ঘণ্টা জেরা করে। পরে তদন্তের দায়িত্বে থাকা বিশেষ দুর্নীতি দমন শাখার সুপার জগৎ ফনসেকা বলেন, '২০১১ বিশ্বকাপ ম্যাচ ফিক্সিং অভিযোগ নিয়ে আমরা তদন্ত শুরু করেছি। ডি সিলভার বক্তব্য আমরা শুনেছি। তার পরে ঠিক করা হয়েছে সেই দলের সদস্য উপুল থারাঙ্গাকেও ডেকে পাঠানো হবে।' 

এরপর নির্দেশ পেয়ে বুধবার তদন্ত কমিটির সামনে উপস্থিত হয়েছিলেন উপুল থারাঙ্গা। ভারতের বিপক্ষে সেই ফাইনালে এই থারাঙ্গাই ইনিংস ওপেন করেছিলেন। কিন্তু ২০ বলে মাত্র ২ রান করে আউট হয়ে যান। জানা গেছে, তাকে ঘণ্টা দুয়েকের বেশি সময় জেরা করা হয়। পরে বেরিয়ে এসে সাংবাদিকদের শ্রীলঙ্কা ওপেনার বলেন, 'তদন্তের ব্যাপারে ওরা আমাকে কিছু প্রশ্ন করেছিল। আমি আমার বক্তব্য তদন্ত কমিটিকে জানিয়ে এসেছি।'

 প্রথম দফায় আলুথগামাগে বলেছিলেন, '২০১১ সালের বিশ্বকাপ ফাইনালে ফিক্সিং হয়েছিল। দায়িত্ব নিয়ে একথা জানাচ্ছি। কেউ আমাকে তর্ক-বিতর্ক আলোচনায় ডাকতেই পারে। সব ক্রিকেটাররা এতে জড়িত ছিল না। তবে দলের একটা অংশ এই কাজে যুক্ত ছিল।' এরপর সমালোচনা শুরু হলে তিনি আবারও বলেন, 'আমি ক্রীড়ামন্ত্রী থাকাকালীন এটা ঘটেছিল। নিজের বক্তব্যে আমি অনড় থাকবো। দেশের স্বার্থে এই বিষয়ে পুরোটা বলছি না। ২০১১ সালের ভারতের বিরুদ্ধে ফাইনাল আমরা জিততেই পারতাম। ম্যাচটা ফিক্সিং হয়েছিল।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা