kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭। ১৩ আগস্ট ২০২০ । ২২ জিলহজ ১৪৪১

তারা দুই ভাই 'আক্রোশের শিকার'?

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩০ জুন, ২০২০ ২১:৩৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



তারা দুই ভাই 'আক্রোশের শিকার'?

পাকিস্তানের ক্রিকেটের সুপরিচিত দুই ভাই তারা। ক্রিকেটীয় এবং অক্রিকেটীয় কারণে সবসময় আলোচনায় থাকেন। দুজনেই মেধাবী ও প্রতিভাবান ছিলেন। তবে উল্টাপাল্টা কাজ করে জাতীয় দলে জায়গা হারিয়েছেন। তারা কামরান আকমল আর উমর আকমল। একের পর এক বিতর্কিত কর্মকাণ্ডের পর সবশেষ ফিক্সিংয়ে নাম জড়িয়ে নিষিদ্ধ হয়েছেন উমর। তার বড় ভাই কামরানও ৩ বছর ধরে জাতীয় দলে উপক্ষিত। তিনি এবার দাবি করেছেন, এসবই তাদের সঙ্গে ব্যক্তিগত আক্রোশের কারণে হচ্ছে।

৩৮ বছর বয়সী কামরান আকমল ক্রিকেট পাকিস্তানের একটি অনুষ্ঠানে বলেছেন, 'আমি ঘরোয়া ক্রিকেট আর পিএসএলে গত ৫ বছর ধরেই পারফর্ম করছি। কিন্তু পাকিস্তানের হয়ে খেলার সুযোগ দেয়া হয়নি। বিগত সময়গুলোতে কয়েকজন কোচ আছেন, যারা আমাকে পছন্দ করতেন না। এজন্য আমাকে সাইডলাইনে রাখা হয়।'

অস্ট্রেলিয়ার উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান ম্যাথু ওয়েডের উদাহরণ টেনে কামরান আকমল বলেন, 'টেস্ট আর টি-টোয়েন্টি দলে আমাকে না নেয়াটা অযৌক্তিক। কেননা একজন ব্যাটসম্যান হিসেবে আমি অনায়াসেই খেলতে পারি। যদি ম্যাথু ওয়েড ১৮-২০ গড় নিয়ে দলে ফিরতে পারে, ৬০-এর কাছাকাছি গড় নিয়েও আমি কেন পারছি না?'

ছোট ভাই উমর আকমলের নিষেধাজ্ঞা নিয়েও ক্ষোভ প্রকাশ করে কামরান দোষ চাপান অধিনায়কের ওপর, 'পাকিস্তানের ক্রিকেটে মাঠের বাইরের কাণ্ড নতুন কিছু নয়। টিম ম্যানেজম্যান্ট এবং অধিনায়ককে জানতে হবে এমন খেলোয়াড়দের কিভাবে নিয়ন্ত্রণে আনা যায়। দেখুন ইনজি ভাই (ইনজামাম) কিভাবে শোয়েব (আখতার), আসিফ আর শহীদকে (আফ্রিদি) পরিচালনা করেছেন। যদি উমর আকমলকে সেভাবে চালানো হতো, তবে পরিস্থিতি ভিন্ন হতে পারত।'

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা