kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৩ আষাঢ় ১৪২৭। ৭ জুলাই ২০২০। ১৫ জিলকদ  ১৪৪১

রোহিতের ১৯৬ রানে ভয়ে কেঁদে ফেলেন রিতিকা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৬ জুন, ২০২০ ২০:১৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রোহিতের ১৯৬ রানে ভয়ে কেঁদে ফেলেন রিতিকা

ক্রিকেট ইতিহাসের একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে ওয়ানডেতে তিনটি ডাবল সেঞ্চুরির মালিক রোহিত শর্মা। ব্যাট হাতে তিনি যেমন ভয়ংকর, ব্যক্তি জীবনে ততটাই অমায়িক। তার তিনটি ডাবল সেঞ্চুরির শেষটি এসেছিল বিবাহবার্ষিকীর দিনে। ওই ইনিংসের সময় স্ত্রী রীতিকা কিছুটা নার্ভাস হয়ে গিয়েছিলেন। একটা বিশেষ কারণে গ্যালারিতে থাকা রিতিকাকে কাঁদতে দেখা যায়। এতদিন পর সেই কারণ জানালেন 'হিটম্যান' খ্যাত রোহিত।

২০১৭ সালের ১৩ ডিসেম্বর মোহালিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ক্যারিয়ারের তৃতীয় ডাবল সেঞ্চুরি করেছিলেন হিটম্যান। সতীর্থ শিখর ধাওয়ান এবং মায়াঙ্ক আগরওয়ালের সঙ্গে এক ভিডিও চ্যাটে তিনি বলেছেন, 'আমি যখন দুইশর ঘরে পৌঁছলাম তখন আমার স্ত্রী রীতিকা আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েছিল। ওর চোখে জল এসে গিয়েছিল। সেটা ছিল আমার বিবাহবার্ষিকীর দিন। এ কারণে এটা স্পেশাল ইনিংস। ওকে এর চেয়ে ভালো উপহার দেওয়া সম্ভব ছিল না।'

সেই ইনিংসে ১৫৩ বলে ১৩ চার ১২ ছক্কায় ২০৮ রানে অপরাজিত ছিলেন রোহিত। স্ট্রাইকরেট ১৩৫.৯৪। রোহিতের দাপটে ভারত করেছিল ৪ উইকেটে ৩৯২ রান। জবাবে ৮ উইকেটে ২৫১ রানে থামে লঙ্কানরা। ডাবল হাঁকানোর আগমুহূর্তে রিতিকার সেই কান্নার রহস্য ফাঁস করে রোহিত বলেন, '১৯৬ রানে আমি যখন ডাইভ দিয়েছিলাম তখন ও ভয় পেয়ে কেঁদেই ফেলেছিল। ভেবেছিল আমার হাত হয়তো মচকে গেছে। পরে জিজ্ঞেস করেছিলাম কান্নার কারণ। সে বলেছে, আমার চোট পাওয়ার আশঙ্কায় ও কেঁদে ফেলেছে।'

২০১৩ সালে প্রথমবার বেঙ্গালুরুর চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ওয়ানডেতে ডাবল সেঞ্চুরি করেন রোহিত (২০৯)। তারপর ২০১৪ সালের নভেম্বরে ইডেনে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে করেছিলেন ২৬৪। যা ওয়ানডের সর্বোচ্চ স্কোর। তিন নম্বর ডাবল নিয়ে রোহিত বলেন, 'সত্যি বলতে, খুব ধীরেসুস্থে খেলছিলাম। কখনই ভাবিনি যে ডাবল সেঞ্চুরি করতে পারব। কিন্তু ১২৫ পার হওয়ার পর অনুভব করলাম যে, সহজে রান আসছে। তখন মনে হলো, বোলাররা চাপে আছে এবং নিজে ভুল না করলে আউট হব না।'

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা