kalerkantho

সোমবার । ২৯ আষাঢ় ১৪২৭। ১৩ জুলাই ২০২০। ২১ জিলকদ ১৪৪১

যে কৌশলেই প্রথমবার আইপিএল জেতেন ধোনি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৭ মে, ২০২০ ১৬:১৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যে কৌশলেই প্রথমবার আইপিএল জেতেন ধোনি

মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যানের সামনে অসহায় দেখাচ্ছিল বাঁ-হাতি স্পিনার সাদাব জাকাতিকে। তাই দ্রুত তাঁকে আক্রমণ থেকে সরিয়ে নিয়েছিলেন চেন্নাই সুপার কিংস অধিনায়ক মহেন্দ্র সিংহ ধোনি। বিপক্ষের ডানহাতি ব্যাটসম্যানরা ক্রিজে আসতেই ফের বল দিয়েছিলেন বাঁ-হাতি স্পিনারকে। আর সেই কৌশলেই হল বাজিমাত। থেমে গেল মুম্বাইয়ের লড়াই।

উল্লেখ্য, ২০১০ সালের আইপিএল ফাইনালে মুখোমুখি হয়েছিল চেন্নাই সুপার কিংস ও মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। প্রথমে ব্যাট করে সুরেশ রায়নার হাফ-সেঞ্চুরির সুবাদে চেন্নাই পাঁচ উইকেট হারিয়ে তুলেছিল ১৬৮। ১৬৯ রানের জয়ের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শচীন টেন্ডুলকারের মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স প্রথমেই খেয়েছিল ধাক্কা। কোনো রান না করেই ফিরেছিলেন শিখর ধাওয়ন। দ্বিতীয় উইকেটে শচীনের সঙ্গে জুটিতে অভিষেক নায়ার টানছিলেন দলটিকে। এই সময় ধোনি বল দিয়েছিলেন বাঁ-হাতি স্পিনার সাদাব জাকাতিকে। যিনি প্রথম দুই ওভারেই দিয়ে বসেন ২১ রান।

জাকাতি বলেছেন, “আমার প্রথম দুই ওভারে ২১ রান উঠেছিল। বাঁ-হাতি অভিষেক নায়ার ব্যাট করছিল। ধোনি তখন বলল যে আমাকে ও পরে মিডল ওভারে ব্যবহার করবে।”  আর ধোনির এই কৌশলই হয়ে ওঠে মাস্টার স্ট্রোক। 

জানা গেছে, শচীন তখন অভিষেকের সঙ্গে জুটিতে মুম্বাইকে এগিয়ে নিয়ে চলছেন। ১১.২ ওভারে দলীয় ৬৭ রানে পড়ে মুম্বাইয়ের দ্বিতীয় উইকেট। রান আউট হন অভিষেক (২৭)। চার নম্বরে পাঠানো হরভজন সিংহও (১) ফেরেন তার পর। ক্রিজে আসেন অম্বাতি রায়ুডু। এর কিছুক্ষণের মধ্যেই জাকাতিকে ফের আক্রমণে আনেন ধোনি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা