kalerkantho

বুধবার । ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ২৭  মে ২০২০। ৩ শাওয়াল ১৪৪১

শত সেঞ্চুরির মালিক টেন্ডুলকারের প্রিয় ৪৪ রানের ইনিংসটি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৩ মে, ২০২০ ১৪:৩২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শত সেঞ্চুরির মালিক টেন্ডুলকারের প্রিয় ৪৪ রানের ইনিংসটি

দীর্ঘ দুই যুগের ক্যারিয়ারে ক্রিকেট কিংবদন্তি শচীন টেন্ডুলকার সৃস্টি করেছেন অনেক রেকর্ড। জীবনে এতসব রেকর্ডের মধ্যেও এবার নিজের প্রিয় ইনিংসের কথা জানালেন টেন্ডুলকার। ১৯৯৭ সালের মার্চে শচীন টেন্ডুলকারের নেতৃত্বে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে গিয়েছিল ভারতীয় ক্রিকেট দল। সেই সফরে দলের ব্যর্থতার মাঝে একটি ৪৪ রানের ইনিংস খেলেছিলেন শচীন। আউট হয়েছিলেন আম্পায়ারের ভুল সিদ্ধান্তে। এটাই নাকি তার জীবনের সবচেয়ে সেরা ইনিংস!

ত্রিনিদাদের পোর্ট অব স্পেনে সিরিজের প্রথম ওয়ানডে খেলতে নামে দুই দল। এমনিতেই এখানকার উইকেট ছিল ব্যাটসম্যানদের জন্য দুঃস্বপ্নের। তার ওপড় ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলে ছিরেন কার্টলি অ্যামব্রোস, ইয়ান বিশপ ও ফ্রাঙ্কলিন রোজদের মতো ভয়ংকর সব পেসার। এ অবস্থায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ বোলারদের বিপক্ষে একমাত্র বুক উচিয়ে লড়াই করেছেন টেন্ডুলকার। দুঃস্বপ্নের উইকেটে মারমুখী মেজাজে ১০টি চারে ৪৩ বলে ৪৪ রান করেন তিনি। অন্যান্য ব্যাটসম্যানরা ব্যর্থ হওয়ায় ৪৮.৩ ওভারে ১৭৯ রানে অল-আউট হয় ভারত।

জবাবে বৃষ্টি আইনে ৩৩ ওভারে ১৪৬ রানের টার্গেটে ৩১ বল বাকী রেখেই স্পর্শ করে ফেলে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এক লাইভ আড্ডায় ২৩ বছর আগের স্মৃতি ফিরিয়ে আনলেন টেন্ডুলকার, 'অনেকগুলো ভালো ও সুন্দর ইনিংস আছে। এর মধ্যে ১৯৯৭ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে প্রথম ওয়ানডেতে ৪৪ রানের ইনিংসটি আমার প্রিয় একটি ইনিংস। আম্পায়ারের ভুল সিদ্ধান্তে আউট হয়েছিলাম। তারপরও অ্যামব্রোস-বিশপ ও রোজদের বিপক্ষে ওমন ভয়ানক উইকেটে মারমুখী মেজাজে খেলাটা কঠিনই ছিল। সেদিন বড় ইনিংস খেলতে পারলে ম্যাচের ফলাফল আমাদের দিকেই আসত।'

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা