kalerkantho

বুধবার । ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ২৭  মে ২০২০। ৩ শাওয়াল ১৪৪১

সাদা জার্সিতে অমলকে দেখতে না পাওয়া টিম ইন্ডিয়ারই ক্ষতি : রবি শাস্ত্রী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৩ মে, ২০২০ ১৪:০৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সাদা জার্সিতে অমলকে দেখতে না পাওয়া টিম ইন্ডিয়ারই ক্ষতি : রবি শাস্ত্রী

এক সময় ধরা হতো দেশের সেরা প্রতিভাবানদের তালিকায়। মনে করা হতো, জাতীয় দলের হয়ে খেলবেন দীর্ঘদিন। কিন্তু টিম ইন্ডিয়ার হয়ে খেলা হয়ে ওঠেনি অমল মুজুমদারের।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে না খেললেও ঘরোয়া ক্রিকেটে বড় রান করে গিয়েছেন তিনি। এক সময় রঞ্জি ট্রফিতে সর্বাধিক রানের রেকর্ডের মালিকও ছিলেন তিনি। শেষ পর্যন্ত রঞ্জি ট্রফিতে ৪৮.১৩ গড়ে ১১ হাজার ১৬৭ রানে থেমেছেন এই মুম্বাইকর। খেলেছেন ১১৩ লিস্ট এ ম্যাচ। ৩৮.২০ গড়ে করেছেন ৩২৮৬ রান। কিন্তু তার পরও জাতীয় দলের মিডল অর্ডারে তাঁর জায়গা হয়নি। রথী-মহারথীদের ভিড়ে বাইরেই থাকতে হয়েছে তাঁকে।

আর এটাকে টিম ইন্ডিয়ারই ক্ষতি বলে মনে করছেন জাতীয় দলের প্রধান কোচ রবি শাস্ত্রী। তিনি অমলের সঙ্গে নিজের ছবি দিয়ে টুইট করেছেন। সেই টুইটে লিখেছেনে, “রঞ্জি ট্রফির এক কিংবদন্তির সঙ্গে। আমার শেষ মৌসুম ছিল অমলের প্রথম। এখনও বিশ্বাস করি যে, দেশের হয়ে সাদা জার্সিতে ওকে দেখতে না পাওয়া টিম ইন্ডিয়ারই ক্ষতি।”

এর পরিপ্রেক্ষিতে টুইট করেছেন অমল মুজুমদারও। তিনি লিখেছেন, “বেড়ে ওঠার দিনগুলোয় শাস্ত্রী ছিল আমার হিরো। ১৯৯৩-’৯৪ মরসুমে ওয়াংখেড়েতে রঞ্জি ট্রফি জেতার পর বলেছিলে, ‘ওয়েল ডান ইয়ং ম্যান।’ সেই স্মৃতি এখনও আমার মনে টাটকা। স্কিপার, তোমাকে ধন্যবাদ। তুমিই জিততে শিখিয়েছিলে।”

১৯৯৩-৯৪ মৌসুমে রঞ্জি ট্রফির দ্বিতীয় প্রি-কোয়ার্টার ফাইনালে হরিয়ানার বিরুদ্ধে অভিষেক হয়েছিল অমলের। তখন মুম্বাইয়ের অধিনায়ক শাস্ত্রী। অভিষেক ম্যাচেই ২৬০ রান করেছিলেন অমল। আর এ রানটি ২৪ বছর ধরে অভিষেকে সর্বাধিক ইনিংসের রেকর্ড হয়েছিল। ২০১৮-১৯ মৌসুমে সেই রেকর্ড ভাঙেন মধ্যপ্রদেশের অজয় রোহেরা। হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে রঞ্জি অভিষেকে তিনি করেছিলেন ২৬৭। প্রায় দুই দশক খেলার পর ২০১৪ সালে পেশাদার ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়েছিলেন অমল। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা