kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৪ জুন ২০২০। ১১ শাওয়াল ১৪৪১

এখন সিনিয়রদের যে কেউ যা খুশি বলেতে পারে : যুবরাজ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৮ এপ্রিল, ২০২০ ১৩:০৩ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



এখন সিনিয়রদের যে কেউ যা খুশি বলেতে পারে : যুবরাজ

এখনকার ভারতীয় দলে সিনিয়রদের প্রতি জুনিয়র ক্রিকেটারদের শ্রদ্ধা কম বলে মনে করছেন ভারতের প্রাক্তন ক্রিকেটার যুবরাজ সিংহ। ইনস্টাগ্রামে লাইভ প্রশ্নোত্তর পর্বে ভারতের ওয়ানডে দলের সহ-অধিনায়ক রোহিত শর্মাকে এমনই বললেন তিনি।

রোহিত জিজ্ঞাসা করেছিলেন, যুবরাজের সময়ের জাতীয় দল ও এখনকার জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের মধ্যে তফাত কী। জবাবে নিজের সময়ের জাতীয় দল নিয়ে এই বাঁ-হাতি মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান বলেন, 'যখন আমি জাতীয় দলে এসেছিলাম বা যখন তুমি এসেছিলে তখন আমাদের সিনিয়ররা খুব শৃঙ্খলাপরায়ণ ছিল। অবশ্য সোশ্যাল মিডিয়া ছিল না বলে অন্যদিকে মন যাওয়ার প্রশ্ন ছিল না। কিছু নির্দিষ্ট আচরণ আমাদেরও করতে হতো। তারা যে ভাবে মানুষের সঙ্গে কথা বলত, যে ভাবে মিডিয়ার মুখোমুখি হত তা থেকে শিখতাম আমরা। কারণ, তারা খেলাটার ও ভারতের অ্যামবাসাডর ছিল।'

এখন জাতীয় দলে সেই পরিস্থিতি নেই বলে মনে করছেন যুবরাজ। তাঁর কথায়, “তোমাদেরও এটা আমি বলেছিলাম। দেশের হয়ে খেলে ফেলার পর নিজের ইমেজ নিয়ে আরো সচেতন থাকতে হবে। কিন্তু, এখনকার প্রজন্ম তা নয়। এখন তো দলে শুধু বিরাট আর তুমিই সিনিয়র। যাঁরা তিন ফরম্যাটেই খেলে। বাকিরা তো দলে আসা-যাওয়া করে। আমার মনে হয়, এখন দলে খুব কম জনই আছে যাঁরা ভাবমূর্তি নিয়ে সচেতন। সিনিয়রদের প্রতি শ্রদ্ধাও অনেক কমেছে বলে মনে হচ্ছে। এখন যে কেউ যা খুশি বলে দিতে পারে যে কাউকে।”

তাঁর সময়ে ক্রিকেটাররা সবাই নিজেদের কার্যকলাপ নিয়ে সচেতন থাকতেন বলে জানিয়েছেন এই প্রাক্তন ক্রিকেটার। তাঁর কথায়, “এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় পার্টির ছবি দেয় জুনিয়ররা। এগুলো আমাদের সময়ে ভাবাই যেত না। আমরা ভয় পেতাম যে যদি কোনো ভুল করে বসি তা হলে সিনিয়ররা বকবে। বলবে যে, এটা করা উচিত নয়, এগুলো আর করো না।” 

হার্দিক পাণ্ড ও লোকেশ রাহুলের ‘টক শো’-তে নারীদের সম্পর্কে করা মন্তব্য ঝড় তুলেছিল। যুবরাজ সেই ঘটনা নিয়ে বলেছেন, “আমাদের সময়ে এমন ঘটনা ঘটতেই পারত না।”

এ সময় দলের আবহাওয়া নিয়ে রোহিত শর্মা বলেন, 'আমি যখন দলে এসেছিলাম, তখন অনেক সিনিয়র ছিল। পীযূষ চাওলা ও সুরেশ রায়নার সঙ্গে আমিও ছিলাম তরুণ। এখন দলের আবহাওয়া অনেক হাল্কা। আমি তো পাঁচ-ছয়জন তরুণের সঙ্গে কথা বলি নিয়মিত। তার মধ্যে ঋষভ পন্থের সঙ্গে প্রচুর কথা হয়। ওঁর ওপর প্রচুর স্ত্রুটিনি চলে। ওঁকে নিয়ে লেখার আগে মিডিয়ারও ভাবা উচিত। তবে দেশের হয়ে খেললে মিডিয়ার নজরও থাকবে।'

দলের তরুণ প্রজন্মের মানসিকতা নিয়ে যুবরাজ আরো বলেন, 'শচীন একবার আমাকে বলেছিলেন যে মাঠে পারফর্ম করতে পারলে সবকিছুই অনুসরণ করবে তোমাকে। আমি এক সময় জাতীয় ক্রিকেট অ্যাকাডেমিতে ছিলাম। সেখানে তরুণদের সঙ্গে অনেক কথা হতো। আমার মনে হতো, ওদের অধিকাংশই টেস্ট ক্রিকেট খেলতে চায় না। কিন্তু টেস্ট ক্রিকেটই তো আসল ক্রিকেট। ওঁরা কিন্তু ওয়ানডে খেলতেই বেশি ভালোবাসে। যাঁরা দেশের হয়ে খেলেছে, তাঁদের উচিত আন্তর্জাতিক ক্রিকেট না থাকলে ঘরোয়া ক্রিকেট খেলা। এতে দেশজুড়ে বিভিন্ন ধরনের পিচে খেলার মূল্যবান অভিজ্ঞতা হবে।'
সূত্র : আনন্দবাজার

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা