kalerkantho

সোমবার । ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ১  জুন ২০২০। ৮ শাওয়াল ১৪৪১

ক্যারিয়ার প্রায় শেষ হয়ে গিয়েছিল; যেভাবে ঘুরে দাঁড়ান কোহলি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৪ এপ্রিল, ২০২০ ১৬:০১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ক্যারিয়ার প্রায় শেষ হয়ে গিয়েছিল; যেভাবে ঘুরে দাঁড়ান কোহলি

বর্তমান ক্রিকেটবিশ্বের সবচেয়ে ভয়ংকরতম ব্যাটসম্যানটির নাম বিরাট কোহলি। মাঠে নেমে রানের বন্যা বইয়ে দেন। সেঞ্চুরির পর সেঞ্চুরি হাঁকান। অথচ, ৬ বছর আগে এই কোহলির ক্যারিয়ার প্রায় শেষ হয়ে গিয়েছিল। ২০১৪ সালের ইংল্যান্ড সফরে ১০ ইনিংসে করেন মাত্র ১১৪ রান। তাকে দল থেকে বাদ দেওয়ার জোড়ালো দাবি ওঠে। ওই কঠিনতম সময় কীভাবে পার করে আজকের সুপারস্টার হয়ে উঠলেন কোহলি? কেভিন পিটারসেনের সঙ্গে ইনস্টাগ্রাম আলাপচারিতায় এসব ঘটনা উঠে এসেছে।

কোহলি বলেন, 'আমার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে খারাপ সময়টি ছিল ২০১৪ সালের ইংল্যান্ড সফর। সেটি এমন একটি সময়, একজন ব্যাটসম্যান হিসেবে আপনিও (পিটারসেন) বুঝতে পারবেন। সকালে ঘুম থেকে উঠেই আমি বুঝতে পারতাম, রান করার কোনো সম্ভাবনাই নেই আমার। তার পরও বিছানা ছাড়তে হয়েছে, খেলার পোশাক পরতে হয়েছে, মাঠে গিয়ে ওই প্রক্রিয়াটার ভেতর দিয়ে যেতে হয়েছে। প্রতিদিনই জানতাম যে নিশ্চিত ব্যর্থ হতে যাচ্ছি, এটি আমাকে পুরোপুরি গ্রাস করেছিল। পুরোপুরি বিধ্বস্ত দিয়েছিল।'

ওই ভয়ানক মানসিক অবস্থা থেকে উত্তরণ ঘটানো চাট্টিখানি কথা নয়। আসল লড়াইটা সেখানেই। কোহলির ভাষায়, 'টেকনিকের ব্যাপারটিও কিন্তু পুরোপুরি মানসিক। আমরা এখন এমন এক যুগে খেলছি, যেখানে ফাস্ট বোলারকেও ক্রিজ থেকে বেরিয়ে এসে মারতে হয়। কোচরা তো আর সেসব শেখায় না। উদ্ভাবনী কিছু করতে হয়। প্রতিপক্ষের চেয়ে এক ধাপ এগিয়ে থাকতে হয়। যদি ভাবতে থাকি যে দলকে কীভাবে জেতাব, এই ব্যাপারগুলি মাথায় আসে।'

তরুণদের উদ্দেশ্যে ভারত অধিনায়ক বলেন, 'তরুণ যারা শুনছে, সবাইকে বলছি, ওইরকম হয়েছিল কারণ আমি রান পেতে মরিয়া ছিলাম। তখন ভাবতে পারিনি, এই পরিস্থিতিতে দল আমার কাছে কী চায়। ওই সফরটি নিয়ে আমি খুব বেশি ভেবে ফেলেছিলাম যে, এখানে টেস্টে ভালো করলেই মনে হবে আমি প্রতিষ্ঠিত হয়ে গেছি। এই ভাবনাগুলোই আমাকে খেয়ে ফেলেছিল। ক্রমাগত কেবল তলানির দিকেই ধাবিত হয়েছি, এটি থেকে বের হতে পারিনি। ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতা! এরপরই আমি নিজের কাছে প্রতিজ্ঞা করেছি, ওই অবস্থার ভেতর দিয়ে নিজেকে আর কখনোই যেতে দেব না।'

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা