kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ২৯  মে ২০২০। ৫ শাওয়াল ১৪৪১

বড় ধরনের দুর্ঘটনার হাত থেকে বাঁচলেন লিটনপত্নী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩০ মার্চ, ২০২০ ১১:৪৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বড় ধরনের দুর্ঘটনার হাত থেকে বাঁচলেন লিটনপত্নী

সম্প্রতি বাংলাদেশ জাতীয় দলের ওপেনার ও উইকেটরক্ষক লিটন দাসের নিজ বাসায় গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। তবে এ ঘটনায় অল্পের জন্য বড় ধরনের দুর্ঘটনার হাত থেকে বেঁচে যান তার স্ত্রী দেবশ্রী বিশ্বাস সঞ্চিতা। হয়তো আগুনে তার পুরো মুখটাই পুড়ে যেত পারত। ঘটনাটি গত শুক্রবার ঘটলেও রবিবার দিবাগত রাতে নিজের ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে বিষয়টি জানান লিটনের পত্নী। 

স্ট্যাটাসে সঞ্চিতা লিখেন, ‘আসলে আমি একটি দুর্ঘটনার মধ্যে পড়েছিলাম। তাই মেসেঞ্জারে অ্যাক্টিভ ছিলাম না, অনেকের উত্তর দিতে পারিনি। গত পরশু বরাবরের মতই আমি রান্নাঘরে যাই চা বানাতে। আমি যখন গ্যাস প্রথমবার অন করি তখন অল্প জ্বলে নিভে গেল। এরপর দ্বিতীয়বার বার্নার প্রেস করতেই বিস্ফোরণ হয়। নতুন বাসা তাই সিলিন্ডার ব্যবহার করি। যদিও সিলিন্ডারটা নিচে ছিল। নিচের সমস্ত কেবিনেটে এক সঙ্গে সিলিন্ডার বিস্ফোরণ হলে যেভাবে আগুন বের হয় ঠিক সেভাবেই বের হয়েছিল। আমি ডান হাত দিয়ে মুখটা রক্ষা করার চেষ্টা করি তাই ডান হাতটা বেশি পুড়ে গেছে এবং ঘুরে যাওয়ার কারণে পেছনের প্রায় সব চুলেই আগুন ধরে গিয়েছিল। নিজেকে কোনোভবে রক্ষা করি। আগেরদিনই আমার মনে হয়েছিল যে গ্যাস প্রায় শেষ হয়ে যাচ্ছিল। তবে এটা (চুলা) কাজ করায় আমি গুরুত্ব দিয়েছিলাম না। হয়তো শেষ গ্যাস তাই এভাবে বিস্ফোরণ হয়েছিল। আমি এটা ভাষায় প্রকাশ করতে পারবো না আর এটা আমার পক্ষে ভোলাও সম্ভব নয়। কারণ মৃত্যুর অনেক কাছ থেকে ফিরে এসেছি। সামনে হাত দিয়ে ঘুরে না দাঁড়ালে পুরো মুখটাই পুড়ে যেত। এখন আমার চুল কাটতে হবে। এটা খুব কষ্টদায়ক। তবে ঠিক হয়ে যাবে। যদি মুখে আগুন লেগে যেত কি হতো জানিনা। তাই এসব ক্ষেত্রে সবসময় সবাই খুব সাবধান থাকবেন। আপনাদের সকলের দোয়া প্রার্থী।’

উল্লেখ্য, গত বছরের ২৮ জুলাই জাতীয় দলের ওপেনার লিটন দাসের সঙ্গে বিয়ে হয় সঞ্চিতার।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা