kalerkantho

রবিবার । ২২ চৈত্র ১৪২৬। ৫ এপ্রিল ২০২০। ১০ শাবান ১৪৪১

নিজেদের উপযোগী উইকেট চান না ডমিঙ্গো

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২১:৫৮ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নিজেদের উপযোগী উইকেট চান না ডমিঙ্গো

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একমাত্র টেস্ট জিতে টানা ৬ ম্যাচ হারের বৃত্ত থেকে বেরিয়ে আসতে বদ্ধপরিকর বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। এজন্য নিজেদের কন্ডিশন কাজে লাগিয়ে নিজেদের উপযোগী উইকেট তৈরির পরিকল্পনা রয়েছে। অতীতে স্পিন উইকেট বানিয়ে অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ডের মত দলের বিপক্ষে বড়-বড় সাফল্যও পেয়েছে বাংলাদেশ। হয়তো এবারও সেই পথেই হাঁটতে হবে। কিন্তু নিজেদের মত করে তৈরি করা উপযোগি উইকেটে খেলতে চান না প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো। বিদেশের উইকেটের মত উইকেট বানিয়ে শিষ্যদের গড়ে তুলতে চান এই প্রোটিয়া।

টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশের জয় ১৩টি। এরমধ্যে সবচেয়ে বড় সাফল্য, ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার মতো দলের বিপক্ষে টেস্ট জয়। সেটিও তারা করতে পারে স্পিনিং উইকেট বানিয়ে। স্পিনাররা স্পিন বিষে পুড়িয়েছিলেন ইংল্যান্ড ও অস্ট্র্রেলিয়ার ব্যাটসম্যানদের। ম্যাচের প্রথম দিন থেকেই উইকেট থেকে পুরোপুরি ফায়দা নিয়ে প্রতিপক্ষকে শক্ত হাতে ঘায়েল করে বাংলাদেশের স্পিনাররা। তাই প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে নিজেদের শক্তিশালী দিক স্পিনিং উইকেটে মনোযোগ দেয় বাংলাদেশ।

কিন্তু ডমিঙ্গো এই ধরনের উইকেটে খেলতে সর্তক করেছিলেন। বিদেশের কন্ডিশনের কথা মাথায় রেখে বাংলাদেশকে প্রস্তুত করতে চান তিনি। ডমিঙ্গো বলেন, 'আমরা জানি, দলের শক্তি স্পিন উইকেটে খেলা। বিশেষভাবে অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকার দলের বিপক্ষে। টেস্টে ক্রিকেটে বাংলাদেশের উন্নতির জন্য সবসময় নিজেদের উপযোগী উইকেটে খেলা ঠিক নয়। আপনি একটি পেসার নিয়ে ভারতে খেলতে যাবেন। দক্ষিণ আফ্রিকা ও অস্ট্রেলিয়ায় আপনার ৩ পেসার লাগবে। তাহলে কারা আমাদের চারজন পেসার হবে? তারা তো কোনো ম্যাচ খেলেনি। স্পিন উইকেট করলে আপনি পেসারদের তো রাখতে পারবেন না।'

ডমিঙ্গো বলছিলেন, ভবিষ্যতে দলের ভালোর জন্য ভালো উইকেটে খেলতে চান, 'প্রথম প্রথম এটির সাথে মানিয়ে নেয় দলের জন্য কঠিনই বটে। তবে আমরা ভালো উইকেটে খেললে ধীরে ধীরে শক্তিশালী হয়ে উঠব। ফলে শুধুমাত্র দেশের মাটিতে নয়, দেশের বাইরেও আমাদের খেলার উন্নতি হবে। যদি আপনি শুধুমাত্র স্পিনিং উইকেটে খেলেন, তবে যেখানেই খেলতে যাক না কেন, আমাদের কোনো সুযোগই থাকবে না।'

ভালো উইকেট কি, তা পরিস্কার করে দিয়েছিলেন ডমিঙ্গো। তিনি বলেন, 'আমি ভালো উইকেট চাই। আমি চাই আমাদের পেসাররা ম্যাচের প্রথম দিন বোলিং করবে। স্পিনাররা তৃতীয়, চতুর্থ ও পঞ্চম দিন খেলবে। প্রথম দিনের প্রথম সেশন ব্যাটসম্যানদের জন্য যেন সহজ হয়। ম্যাচের সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে এটা কঠিন হতে থাকবে। আমি নিশ্চিত, এমন উইকেটে বাংলাদেশ ভবিষ্যতে ভালো করবে। বিশেষভাবে অস্ট্রেলিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা এবং ইংল্যান্ডের মতো দলের বিপক্ষে। তবে দলের উন্নতির জন্য, আমাদের আরও বড় ধরনের পরিকল্পনা থাকা দরকার।'

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা