kalerkantho

শুক্রবার । ২০ চৈত্র ১৪২৬। ৩ এপ্রিল ২০২০। ৮ শাবান ১৪৪১

৫ দিনের বিসিএল ফাইনালে মুখোমুখি পূর্বাঞ্চল-দক্ষিণাঞ্চল

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২১:৫৭ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



৫ দিনের বিসিএল ফাইনালে মুখোমুখি পূর্বাঞ্চল-দক্ষিণাঞ্চল

দক্ষিণাঞ্চলকে ফাইনালে তোলার দুই নায়ক নাসুম আহমেদ ও শামসুর রহমান শুভ। ছবি : সংগৃহীত

বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগের (বিসিএল)ফাইনালে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে পূর্বাঞ্চল ও দক্ষিণাঞ্চল। পর্যটন নগরী কক্সবাজারের শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আজ শেষ হওয়া ফাইনাল রাউন্ডের শেষ দিনে পূর্বাঞ্চল প্রতিপক্ষ উত্তরাঞ্চলের বিপক্ষে আট উইকেটের সহজ জয় পেলেও দক্ষিণাঞ্চল ড্র করেছে মধ্যাঞ্চলের সঙ্গে। গ্রুপ পর্বে পূর্বাঞ্চল ২৩.৪৭ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ সেরা হিসেবে এবং দক্ষিণাঞ্চল ১৯.৮৯ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে নিয়ে ফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে।

আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে শুরু হবে ফাইনাল ম্যাচ। এবারের ফাইনাল ম্যাচটিকে ৫ দিনের ঘোষণা দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

পূর্বাঞ্চল বনাম উত্তরাঞ্চল

ইয়াসির আলীর জোড়া সেঞ্চুরি এবং নাঈম হাসানের ১৩ উইকেট শিকারে উত্তরাঞ্চলের বিপক্ষে ৮ উইকেটে জয়লাভ করে পূর্বাঞ্চল। শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের ২নম্বর গ্রাউন্ডে অনুষ্ঠিত ম্যাচের চতুর্থ ও শেষ দিনে আগের ৫ উইকেটে ১৪৫ রানের পুঁজি নিয়ে ব্যাটিং শুরু করা উত্তরাঞ্চল আর মাত্র ১২৪ রান যোগ করে ২৬৯ রানেই অল-আউট হয়ে যায়।

মুশফিকুর রহিম মাত্র ৩৮ রান করে আউট হয়ে গেলে উত্তরাঞ্চলের বড় সংগ্রহ দাঁড় করানোর স্বপ্ন শেষ হয়ে যায়। ইনিংসে সর্বোচ্চ ৪৪ রান করেন মাহিদুল ইসলাম অংকন। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩৬ রানে অপরাজিত থাকেন সঞ্জিত সাহা। পূর্বাঞ্চলের হয়ে নাঈম হাসান ১০৭ রানে নেন ৮ উইকেট। প্রথম ইনিংসে ১০১ রানে ৫টিসহ ম্যাচে মোট ১৩ উইকেট শিকার করেন তিনি। উত্তরাঞ্চল ২৬৯ রানে অল-আউট হয়ে গেলে জয়ের জন্য পূর্বাঞ্চলের টার্গেট দাঁড়ায় ২১১ রান। ৮৮ বলে ইয়াসির আলীর ১১০ রান দলকে সহজেই পৌঁছে দেয় জয়ের বন্দরে।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে আসন্ন টেস্ট স্কোয়াডে জায়গা পাওয়া ইয়াসির আলী এর আগে প্রথম ইনিংসে সংগ্রহ করেছিলেন ১৬৫ রান। পরপর দুই ইনিংসের এই সেঞ্চুরিয়ানের সৌজন্যে মাত্র ৩৪.৫ ওভারে জিতে যায় পূর্বাঞ্চল। সেঞ্চুরির পথে ইয়াসির আটটি বাউন্ডারী ও ৫টি ওভার বাউন্ডারি হাকিয়েছেন। প্রথম ইনিংসে উত্তরাঞ্চল সংগ্রহ করেছিল ২৭২ রান। জবাবে দক্ষিণাঞ্চল সংগ্রহ করে ৩৩১ রান। দ্বিতীয় ইনিংসে উত্তরাঞ্চল প্রথম ইনিংসের ঘাটতি কিছুটা পূরন করতে সক্ষম হলেও পূর্বাঞ্চলের ব্যাটিংয়ের কারণে শেষ রক্ষা হয়নি।

দক্ষিণাঞ্চল বনাম মধ্যাঞ্চল

​দক্ষিণাঞ্চলের 'হারের আগে হার নয়' মানষিকতা নিয়ে লড়াইয়ের কারণে ৫০৭ রানের বিশাল টার্গেট দিয়েও জিততে ব্যর্থ হয়েছে মধ্যাঞ্চল। আজ বিসিএলের গ্রুপ পর্বের ম্যাচের শেষ দিনটি সাউথ জন শেষ করেছে ৯ উইকেটে ৩৮৬ রান নিয়ে। ফলে ড্র হয় ম্যাচটি।আগের দিনের ৪ উইকেটে ১৫৯ রানের পুঁজি নিয়ে আজকের ব্যাটিং শুরু করে দক্ষিণাঞ্চল। তবে কেউ ভাবতেও পারেনি ম্যাচটি ড্র হবে। দারুন মানষিক দৃঢ়তা দেখিয়ে শেষ পর্যন্ত ম্যাচ ড্র করতে সক্ষম হয় দক্ষিণাঞ্চল।

শুরুতে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলেন সামসুর রহমান শুভ ও নাসুম আহমেদ। তাদের ১৩৯ রানের পার্টনারশিপে হতাশা নেমে আসে মধ্যাঞ্চলে। শেষ পর্যন্ত ১৩৩ রান করা সামসুরকে ফিরিয়ে দিয়ে মেহেদি হাসান মিরাজ জুটিটি ভেঙ্গে দিলে কিছুটা স্বস্তি ফিরে আসে সেন্ট্রাল শিবিরে। তবে নাসুম ছিলেন অজেয়। তিনি ২৪৬ বলে ৮৬ রান করলেও নষ্ট করে দেন মধ্যাঞ্চলের গুরুত্বপূর্ণ সময়। আরাফাত সানি নাসুমকে ফিরিয়ে দেয়ার পর ফরহাদ রেজা ১১ নম্বরে ব্যাট করতে আসা শফিউল ইসলামকে নিয়ে দিনের বাকী সময় পার করে দেন।

৯১ বলে ফরহাদ ২৭ রানে এবং ২৬ বলের মোকাবেলা করে শফিউল এক রান নিয়ে শেষ পর্যন্ত অপরাজিত ছিলেন। ম্যাচ ড্র করাতে ফাইনালে খেলার সুযোগ থেকে বঞ্চিত হয়েছে মধ্যাঞ্চল। কারণ ১১ পয়েন্ট পাওয়ায় গ্রুপ পর্বের পয়েন্ট তালিকার তৃতীয় স্থান লাভ করেছে তারা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা