kalerkantho

রবিবার। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ৬ ডিসেম্বর ২০২০। ২০ রবিউস সানি ১৪৪২

সৌরভের ক্রিকেট বোর্ডে বিরাট কেলেঙ্কারি!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ১৭:৩৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সৌরভের ক্রিকেট বোর্ডে বিরাট কেলেঙ্কারি!

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) সভাপতি হয়েই একের পর এক চমক জাগানো সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে সবাইকে চমকে দিয়েছিলেন সৌরভ গাঙ্গুলী। এবার তিনি যেন মুদ্রার উল্টোপিঠ দেখতে চলেছেন। বিসিসিআইয়ের প্রধান নির্বাচকের পদ থেকে এমএসকে প্রসাদ সরে দাঁড়ালেও নতুন নির্বাচকদের নাম এখনও জানানো হয়নি। এর মধ্যেই সামনে চলে এসেছে বড় কেলেঙ্কারি! লক্ষ্মণ শিবরামকৃষ্ণণনের নির্বাচক হওয়ার আবেদনের মেইল মুছে দেওয়া হয়েছে!

টাইমস অফ ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জাতীয় দলের সাবেক এই স্পিনার নির্বাচক হওয়ার জন্যই বিসিসিআইয়ের কাছে আবেদন করেছিলেন। আবেদনের ডেডলাইনের ২ দিন আগেই শিবরামকৃষ্ণণ নিজের বায়োডেটা ই-মেইল করেন। এর মধ্যেই আবেদনকারীদের যাচাই-বাছাই করা হচ্ছিল। সেখান থেকেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হওয়ার কথা। তবে  বিসিসিআইয়ের ইমেই ইনবক্সে  শিবরামকৃষ্ণের পাঠানো ই-মেইল পাওয়া যাচ্ছে না।

এ বিষয়ে বিসিসিআইয়ের এক কর্মকর্তা বলেছেন, বিসিসিআই ইতিমধ্যেই ওয়েবসাইটে আবেদনকারীদের নাম জানিয়ে দিয়েছে, তাই শিবরামকৃষ্ণের ই-মেইল আবেদন বাতিল হওয়ার কোনো সম্ভবনা নেই। তার ভাষায়, 'শিবরামকৃষ্ণণ ২২ জানুয়ারি বিকেল ৪টা ১৬ মিনিটে ই-মেইল পাঠিয়েছিল। আর আবেদনের শেষ সময় ছিল ২৪ জানুয়ারি। আসলে নির্বাচক পদে আবেদন করার জন্য বিশেষ একটি ই-মেইল অ্যাড্রেস নতুন করে তৈরি করা হয়েছিল। ওই মেইলই ২১জন আবেদন করেছিলেন।'

ই-মেইল মুছে যাওয়ার পেছনের কারণ সম্পর্কে তিনি রহস্যময় কোনো কর্মকাণ্ডের দিকে ইঙ্গিত দিয়েছেন, 'বিশেষ একটি ই-মেইল কীভাবে মুছে যেতে পারে? যখন যিনি পাঠাচ্ছেন তিনি সঠিক ই-মেইলেই পাঠাচ্ছেন। কোনো বিশেষ একটি ই-মেইল কীভাবে সদ্য তৈরি হওয়া একটি ই-মেইলের অ্যাড্রেসের স্প্যাম ফোল্ডারে যেতে পারে। নতুন তৈরি ই-মেইলে কয়টা স্প্যাম মেইল আসে? এটা পরিষ্কার অসৎ উদ্দেশ্য নিয়ে করা হয়েছে। এই বিষয়ে পূর্ণ তদন্ত হওয়া প্রয়োজন। শিবরামকৃষ্ণণের সঙ্গে ডেকে এই বিষয়ে কথা বলা উচিত। দরকার হলে তার সেন্ট ফোল্ডারের ই-মেইলও খতিয়ে দেখা হোক।'

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা