kalerkantho

বুধবার । ৬ ফাল্গুন ১৪২৬ । ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৪১

নিয়মিত পারফর্মের পরও দলে জায়গা না পাওয়ায় ক্ষেপলেন কামরান

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২২ জানুয়ারি, ২০২০ ১৪:৩৭ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নিয়মিত পারফর্মের পরও দলে জায়গা না পাওয়ায় ক্ষেপলেন কামরান

দেশের হয়ে ২০১৭ সালের ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে তিনটি ওয়ানডে ও চারটি টি-টোয়েন্টি খেলেছেন কামরান আকমল। এর আগে শেষ ম্যাচ খেলেছেন ২০১৪ সালে। এ ছাড়াও ২০১০ সালে সবশেষ টেস্ট ক্রিকেট  খেলেছেন তিনি। তা ছাড়াও ঘরোয়া ক্রিকেটে নিয়মিত পারফর্ম করে যাচ্ছেন আকমল। সবশেষ কায়েদে আজম ট্রফিতেও ৬০.৪০ গড়ে ৯০৬ রান করে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হয়েছিলেন। এর পরও বাংলাদেশের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি বা টেস্ট সিরিজের জন্য ঘোষিত স্কোয়াডে তাকে না রাখায় ক্ষেপেছেন ৩৮ বছর বয়সী কামরান।  

এ ব্যাপারে সংবাদ মাধ্যমে কামরান আকমল বলেন, ‘আমি হতাশ হই না, কিন্তু সবকিছুরই একটা সীমা আছে। প্রায় ৫ বছর হয়ে গেছে। আপনি একটা নতুন ব্যবস্থার কথা বললেন, যেখানে কি না কোয়ালিটিকে গুরুত্ব দেওয়া হবে এবং সেরা পারফরমাররা অটোমেটিক সুযোগ পেয়ে যাবে। তাহলে কি এবার আমার ভারত বা অস্ট্রেলিয়াতে গিয়ে পারফর্ম করতে হবে সুযোগ পাওয়ার জন্য? আমি পাকিস্তানি খেলোয়াড়, গত পাঁচ বছর ধরেই পারফর্ম করছি। আর কত সহ্য করব?’

তিনি আরো বলেন, ‘এখন কি তাহলে আমি প্রধানমন্ত্রীর (ইমরান খান) কাছে যাব? তাকে গিয়ে দেখাব যে এই দেখুন আমার গত পাঁচ বছরের পারফরম্যান্স! ব্যাপারটা যদি এমন হয়, আমার চেয়ে ভালো পারফরম্যান্স করা কেউ আমার আগে খেলছে, তখন মানা যায়। আমি বলছি, প্রয়োজনে আমাকে উইকেটরক্ষক হিসেবেই খেলানো হোক।’

এ সময় বাংলাদেশের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের স্কোয়াডের সমালোচনা করে কামরান বলেন, ‘টি-টোয়েন্টিতে জায়গা খালি আছে, কিন্তু আপনি (নির্বাচকরা) জোর করে অন্য কাউকে খেলাচ্ছেন। এটা পাকিস্তান দল, পাকিস্তানকেই এগিয়ে রাখুন। কেউ যখন পারফর্ম করছে, তাকে সুযোগ দিন। আমার মতো অনেক খেলোয়াড় আছে, যারা সুযোগ প্রাপ্য। আপনি ফাওয়াদ আলমের দিকেই তাকান, তার পারফরম্যান্স দেখান। আমি মনে করি, তার ব্যাপারেও সীমা অতিক্রম হয়ে গেছে। আমি তো আর পারফরম্যান্স ছাড়া কথা বলছি না।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের সামনেই তো উদাহরণ আছে। শোয়েব আখতার, ইনজি (ইনজামাম) ভাই, ইউসুফ (মোহাম্মদ ইউসুফ) ভাই- তাদের তো মাঠে লুকিয়ে রাখতে হতো। ইনজি ভাই স্লিপে দারুণ ছিলেন। শোয়েব ভাই শুধু বোলিং করতেন এবং ম্যাচ জেতাতেন। আপনি কি মনে করেন যে আমরা পাগল? তারা আসলে বর্তমানে ক্রিকেটারদের পাগল বানিয়ে ছাড়ছে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা