kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২ রজব জমাদিউস সানি ১৪৪১

পূর্ণ মেয়াদে অধিনায়কত্ব পেলে ভালো হতো : মাহমুদউল্লাহ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২১ জানুয়ারি, ২০২০ ২১:৫৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পূর্ণ মেয়াদে অধিনায়কত্ব পেলে ভালো হতো : মাহমুদউল্লাহ

বাংলাদেশের পাকিস্তান সফরে নেতৃত্ব দেবেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। তার মাঝে যে নেতৃত্বগুণ আছে, তা সবারই জানা। কিন্তু মাশরাফি-সাকিব-মুশফিকদের জামানায় সেটা বিকশিত হয়নি। এখন এই তিনজনের অনুপস্থিতিতে সিরিজ শুরুর ঠিক আগে আগে মাহমুদউল্লাহকে জানানো হয় অধিনায়কত্ব করতে হবে। সিরিজ শেষে নেতৃত্বও শেষ হয় তার। এভাবেই সিরিজ ধরে বাংলাদেশ দলের অধিনায়কত্ব করে আসছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। পাকিস্তান সফরে যাওয়ার আগে আজ আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে বললেন, লম্বা সময়ের জন্য দায়িত্ব দিলে লম্বা পরিকল্পনাও করতে পারতেন তিনি।

দুদিন আগে প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো বলেছেন, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অধিনায়ক হিসেবে তিনি মাহমুদউল্লাহকেই চান। সাকিব নিষেধাজ্ঞা কাটানোয় লম্বা মেয়াদে কি এবার অধিনায়কত্ব পাবেন মাহমুদউল্লাহ? তার জবাব, 'আমাকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে এই সিরিজের জন্য। আমি চেষ্টা করব আমার দায়িত্ব পুরোপুরি কাজে লাগাতে। যেহেতু সিরিজ বাই সিরিজ অধিনায়কত্বের দায়িত্বটি দেওয়া হচ্ছে। পূর্ণ মেয়াদে অধিনায়কত্ব দিলে, আমার কাছে অবশ্যই মনে হয় পরিকল্পনার জন্য সহায়ক হবে। তবে এটা সম্পূর্ণ বোর্ডের সিদ্ধান্ত। আমি এই মুহূর্তে আগামী সিরিজ নিয়েই ভাবছি।'

ঘরোয়া ক্রিকেটে নেতৃত্ব, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে দীর্ঘ অভিজ্ঞতা, সহজাত ঠাণ্ডা মাথার নেতৃত্বগুণ এবং পারিপার্শ্বিক নানা বাস্তবতায় এই মুহূর্তে মাহমুদউল্লাহই অধিনায়ক হিসেবে সেরা পছন্দ। কোচ রাসেল ডমিঙ্গো তার প্রতি পূর্ণ আস্থা রাখায় অবশ্য কৃতজ্ঞতা জানাতে ভোলেননি মাহমুদউল্লাহ, 'তার যদি আমার প্রতি আস্থা থাকে তাহলে ধন্যবাদ। রাসেল অনেক অভিজ্ঞ একজন কোচ এবং সে জানে, দলের প্রত্যেক ক্রিকেটারকে কিভাবে সামলাতে হয়। আমার মনে হয়, সবাই এই জিনিসটি বুঝে এবং তার পরামর্শ অনুযায়ী কাজ করার চেষ্টা করছেন।'

প্রায় সবগুলো দল চলতি বছরের শেষে অনুষ্ঠিতব্য টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য দল গঠন শুরু করে দিয়েছে। বাংলাদেশও পিছিয়ে নেই। মাহমুদউল্লাহ জানালেন, বাংলাদেশও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে কাজ শুরু করেছে, 'মোটামুটি কম-বেশি আমার সঙ্গে কথা হয়েছে। পাপন ভাইয়ের সঙ্গে কথা হয়েছে। যখন রাসেল (ডমিঙ্গো) বাইরে ছিল এবং আমরা বিপিএল খেলছিলাম, তখনও হোয়াটসঅ্যাপে আমাদের কথাবার্তা হয়েছে। তার আগে আমরা যখন ভারতে ছিলাম, তখন কথা হয়েছে কীভাবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দল গঠন করব।'

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা