kalerkantho

বুধবার । ২২ জানুয়ারি ২০২০। ৮ মাঘ ১৪২৬। ২৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

প্রচণ্ড মানসিক যন্ত্রণায় টিভি দেখা ছাড়েন অশ্বিন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১৭:৩৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রচণ্ড মানসিক যন্ত্রণায় টিভি দেখা ছাড়েন অশ্বিন

খারাপ সময় কাটিয়ে আবারও স্বরূপে ফিরেছেন ভারতের অভিজ্ঞ স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিন। সীমিত ওভারের ক্রিকেটে জাতীয় দল থেকে বাদ পড়া আর একের পর এক ইনজুরির কারণে একসময় আগের মতো ক্রিকেট উপভোগ করছিলেন না এই অফস্পিনার। তার মানসিক পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে গিয়ে পৌঁছেছিল যে, টিভিতেও ক্রিকেট খেলা দেখতেন না। প্রিয় খেলা থেকে নিজেকে যেন বিচ্ছিন্ন করে ফেলেছিলেন এই তারকা স্পিনার। গণমাধ্যমের কারছে অশ্বিন নিজেই প্রকাশ করেছেন সেইসব খারাপ সময়ের তথ্য।

ভারতের একটি দৈনিকে দেওয়া সাক্ষাতকারে অশ্বিন বলেছেন, 'আমি প্রত্যেক দিন খেলায় ডুবে থাকতে ভালোবাসি। কিন্তু সাদা বলের ক্রিকেট থেকে বাদ পড়া ও চোট-আঘাতের কারণে একসময় ক্রিকেট খেলার আনন্দই হারিয়ে বসেছিলাম। যা আমার ক্ষেত্রে বিপজ্জনক হয়ে উঠেছিল। আমি টিভিতেও খেলা দেখতাম না। আসলে ক্রিকেট উপভোগ করছিলাম না একদম। সৌভাগ্যবশত এখন সেই খারাপ সময় কাটিয়ে উঠেছি।'

দুই রিস্ট স্পিনার যুজবেন্দ্র চাহাল ও কুলদীপ যাদবের উত্থানের ফলে ওভারের ফরম্যাট থেকে ক্রমশ হারিয়ে গিয়েছিলেন অশ্বিন ও রবীন্দ্র জাদেজা। এর মধ্যে বাঁ-হাতি স্পিনার জাদেজা অবশ্য ওয়ানডে ক্রিকেটে ভারতের দলে ফিরেছেন। ইংল্যান্ডে কয়েক মাস আগে ৫০ ওভারের বিশ্বকাপেও খেলেছেন তিনি। কিন্তু অশ্বিন এখনও রঙ্গিন জার্সি গায়ে চাপাতে পারেননি। তবে চেন্নাইয়ের এই অফস্পিনার আশা ছাড়েননি না। আইপিএলে ভালো পারফরম্যান্স দেখিয়ে আগামী বছরের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দলে জায়গা করতে চান তিনি।

এই কঠিন লড়াই করতে অশ্বিন নিজের প্রেরণা হিসেবে ঠিক করেছেন যুবরাজ সিংকে। অশ্বিন বলেছেন, 'কে চায় না দেশের হয়ে বিশ্বকাপে খেলতে? ২০১৪ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ফিরে এসেছিল যুবরাজ সিং। ২০১৭ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতেও খেলেছিল ও। আর আমার বয়স তো মাত্র ৩৩। একজন স্পিনার হিসেবে আমি যদি ফিট থাকতে পারি, উন্নতি করতে পারি, তবে অভিজ্ঞতার জোরে আইপিএলে সফল হতেই পারি। আর এই ফরম্যাটে অভিজ্ঞতাই অন্যতম প্রধান অস্ত্র।'

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা