kalerkantho

রবিবার । ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১০ রবিউস সানি ১৪৪১     

ব্যালন ডি'অর

আরেকটু হলেই মেসিকে হারিয়ে দিচ্ছিলেন ফন ডাইক!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১৭:১৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আরেকটু হলেই মেসিকে হারিয়ে দিচ্ছিলেন ফন ডাইক!

সবাই জেনে গেছে এবারের ব্যালন ডি'অর জিতেছেন আর্জেন্টাইন ফুটবল জাদুকর লিওনেল মেসি। রেকর্ড ৬ষ্ঠবারের মতো এই পুরস্কার উঠেছে তার হাতে। কিন্তু এটা অনেকেই জানে না, ব্যালন ডি'অরের ভোটে মেসির চেয়ে মাত্র সাত পয়েন্ট কম পেয়েছেন ফন ডাইক। লিওনেল মেসি ৬৮৬ ভোট পেয়ে বর্ষসেরা, ভার্জিল ফন ডাইক মাত্র ৭ পয়েন্ট পিছিয়ে দ্বিতীয়। এত কম ব্যাবধানে কোনোদিন ব্যালন ডি'অর জিতেনন মেসি। আসলে আফ্রিকা অঞ্চলের ভোট পাননি ডাইক। সেই ভোটগুলো পেয়েছেন সাদিও মানে। বেচারা ফন ডাইক নিজেকে দূর্ভাগা ভাবতেই পারেন।

বিশ্বজুড়ে ১৭৬টি দেশের ১৭৬ জন সাংবাদিকদের ভোটে ফ্রান্স ফুটবল সাময়িকীর দেওয়া এই পুরস্কার নির্ধারণ করা হয়েছে। এই ১৭৬ ভোটের মধ্যে মেসি ৬১ ভোটারের চোখে সেরা, ৬৯ ভোটারের চোখে ফন ডাইক। তাহলে পার্থক্যটা হলো কোন জায়গায়? প্রায় সব ভোটারের সেরা পাঁচেই কোনো না কোনো অবস্থানে মেসি ছিলেন, কিন্তু ফন ডাইকের ক্ষেত্রে ব্যাপারটা তা নয়। ফিফা বিশ্বকে ছয়টি ফুটবল অঞ্চলে ভাগ করেছে- এশিয়া, ইউরোপ, ওশেনিয়া, আফ্রিকা, উত্তর আমেরিকা ও দক্ষিণ আমেরিকা। ইউরোপ ও এশিয়ার ভোটে এগিয়ে আছেন ফন ডাইক। বাকি চার অঞ্চলের ভোটে দাপট মেসির।

এখানেই ফন ডাইকের ভাত মেরেছেন তার ক্লাব সতীর্থ ও সেনেগালের ফরোয়ার্ড সাদিও মানে। আফ্রিকা অঞ্চলের ভোটারদের বেশির ভাগেরই সেরা দুইয়ে আছেন সাদিও মানে আর মেসি। এখানে ফন ডাইকের স্থান হয়নি। শুধু আফ্রিকান অঞ্চলের ভোটে মেসির চেয়ে ১৬ পয়েন্ট পিছিয়ে পড়েছেন ফন ডাইক। জিতলে তিন কিংবদন্তি ফ্রাঞ্জ বেকেনবাওয়ার, ম্যাথিয়াস সামার ও ফাবিও কানাভারোর পর ইতিহাসে মাত্র চতুর্থ ডিফেন্ডার হিসেবে বর্ষসেরা হওয়ার গর্ব সঙ্গী হতো চোখ ধাঁধানো এক মৌসুম কাটানো ফন ডাইকের। তবে এতে তার কোনো আক্ষেপে নেই। আর্জেন্টাইন জাদুকরকে অভিনন্দন জানিয়েছেন তিনি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা