kalerkantho

রবিবার । ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১০ রবিউস সানি ১৪৪১     

'স্পিরিট অব ক্রিকেট'

অমায়িক ব্যাবহার আর ধৈর্য্য দেখিয়ে উইলিয়ামসনেরা পুরস্কৃত

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১৭:৪০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অমায়িক ব্যাবহার আর ধৈর্য্য দেখিয়ে উইলিয়ামসনেরা পুরস্কৃত

বিশ্বের সবচেয়ে শান্তিপূর্ণ দেশের একটি নিউজিল্যান্ড। ওই দেশের সিংহভাগ মানুষের ব্যবহার অমায়িক। ক্রিকেটাররাও এর বাইরে নন। মাঠ এবং মাঠের বাইরে সদাচরণ ও অমায়িক ব্যবহারের জন্য নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটারদের বরাবরই সুনাম আছে। এবার এই আচরণের জন্যই পুরস্কৃত করা হলো তাদের। গত ওয়ানডে বিশ্বকাপের বিতর্কিত ফাইনালের পর ধৈর্যশীলতা দেখানোর জন্য কিউইদের মেরিলিবোর্ন ক্রিকেট ক্লাব (এমসিসি) মর্যাদাপূর্ণ 'স্পিরিট অব ক্রিকেট' পুরস্কার দিয়েছে।

এই পুরস্কার চালু করেন এমসিসির সাবেক সভাপতি ও বিবিসির টেস্ট ম্যাচের ধারাভাষ্যকার ক্রিস্টোফার মার্টিন জেনকিন্স। চলতি বছর এই মর্যাদাপূর্ণ পুরস্কার উঠল কেন উইলিয়ামসনের হাতে। হ্যামিল্টনে নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ ম্যাচ শেষে নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক দলের পক্ষে পুরস্কার গ্রহণ করেন। ম্যাচটি শেষ পর্যন্ত ড্র হয়েছে এবং ১-০ ব্যবধানে সিরিজ জিতে নিয়েছে কেন উইলিয়ামসনের দল।

উল্লেখ্য, দ্বাদশ বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিলে এই ইংল্যান্ড-নিউজিল্যান্ড। নির্ধারিত ১০০ ওভারের খেলা শেষে দুই দলের সংগ্রহ সমান ছিল। ম্যাচ গড়ায় সুপার ওভারে। সবাইকে অবাক করে দিয়ে সুপার ওভারেও দুই দলের সংগ্রহ সমানই হয়। তখনই আইসিসির বিতর্কিত এক নিয়ম কার্যকর করা হয়। বাউন্ডারির সংখ্যার ভিত্তিতে নির্ধারণ করা হয় বিজয়ী দলকে। যেখানে ১৭টি বাউন্ডারি হাঁকান কিউইদেরকে পেছনে ফেলে শিরোপা ওঠে ২৬টি বাউন্ডারি হাঁকানো ইংলিশদের হাতে।

পাশাপাশি ওই ম্যাচে বাজে আম্পায়ারিং করে কুমার ধর্মসেনা ইংল্যান্ডকে ১ রান বেশি দেন। এসব নিয়ে সাবেক- বর্তমান অনেক ক্রিকেটার ও ক্রিকেট বিশ্লেষকরা তুমুল সমালোচনা করেন। তবে কিউই ক্রিকেটাররা কথাবার্তায় ছিলেন ভীষণ সংযত। রাগ করলেও সেটা প্রকাশ করেননি। আর যা বলেছেন সবই সুন্দরভাবে। এজন্য বিপুল প্রশংসা পেয়েছিল নিউজিল্যান্ড। পরে অবশ্য আইসিসি পুনর্বিবেচনা করে এই আইনে পরিবর্তন এনেছে। যতক্ষণ না ম্যাচের স্পষ্ট ফলাফল নির্ধারণ করা যায়, ততক্ষণই সুপার ওভার আয়োজনের নিয়ম করা হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা