kalerkantho

শনিবার । ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৬ রবিউস সানি               

ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের চেয়েও চ্যালেঞ্জিং দিবা-রাত্রির টেস্ট : গাঙ্গুলী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ নভেম্বর, ২০১৯ ১৬:২৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের চেয়েও চ্যালেঞ্জিং দিবা-রাত্রির টেস্ট : গাঙ্গুলী

বাংলাদেশ বনাম ভারতের মধ্যকার দিবা-রাত্রির টেস্ট নিয়ে কলকাতাজুড়ে সাজ সাজ রব। আগামী ২২ তারিখ মাঠে গড়াবে ঐতিহাসিক এই ম্যাচ। ইতিমধ্যেই শহরজুড়ে টেস্টের প্রচারে লাগানো হয়েছে ১২টি বিশাল বিলবোর্ড। ৬টি এলইডি বোর্ড। আজ সোমবার থেকে গোলাপি রঙের ব্র্যান্ডেড বাস চলবে কলকাতায়। ইডেনের দেওয়াল জুড়ে তৈরি হচ্ছে গ্রাফিতি। কাজ করছেন ইন্ডিয়ান আর্ট কলেজের ২০ জন ছাত্র-ছাত্রী। আর তিন দিন পর আসতে চলেছে সেই মহেন্দ্রক্ষণ; যখন ইডেনের বাইশ গজে পড়বে গোলাপি বল।

বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলী বলেছেন, টেস্ট ক্রিকেটের পুনরুজ্জীবনের জন্য এই টেস্ট দরকার ছিল। তার ভাষায়, 'সামনের দিকে তাকানোর জন্য এটাই সবচেয়ে ভালো উপায় ছিল। বিশ্বের সর্বত্র এখন রাতে টেস্ট হয়। এটা ভারতে শুরু করা খুব দরকার ছিল।  আসল চ্যালেঞ্জ হলো, মানুষকে মাঠে ফিরিয়ে আনা। একটা ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ ঘোষণা হলেই বিশ্বের যে কোনো দেশের মাঠ ভরে যায়। এই টেস্ট আয়োজন করা ২০১৬ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের চেয়েও কঠিন।'

একেবারে 'ভার্জিন উইকেট' অর্থাৎ না ব্যবহৃত হওয়া পিচে হতে চলেছে গোলাপি বলে ঐতিহাসিক টেস্ট ম্যাচ। যা দেখতে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশ-ভারতের রাষ্ট্রনায়কেরা। এই আয়োজন কতটা কঠিন তা ব্যাখ্যা করে সৌরভ বলেন, 'প্রথম তিন দিন ৬৫ হাজার দর্শক মাঠে থাকবেন। এর চেয়ে বড় তৃপ্তির কিছু হয় না। বিরাটের মতো গ্রেট ক্রিকেটারদের এমন দর্শকে পূর্ণ স্টেডিয়ামেই খেলা উচিত। প্রথম দিন যখন মাঠে নামবে, ভরা মাঠ দেখে সে (কোহলি) নিশ্চিত ভাবেই খুশি হবে। ইডেনে দারুণ পরিবেশ থাকবে। কাজেই মাঠে আসুন।'

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা