kalerkantho

শনিবার । ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৯ রবিউস সানি ১৪৪১     

হারের পেছনে কম টেস্ট খেলাকেই দুষলেন মুমিনুল

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ নভেম্বর, ২০১৯ ০৯:৩১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হারের পেছনে কম টেস্ট খেলাকেই দুষলেন মুমিনুল

ভারত সফরের প্রথম টেস্টে ইনিংস ও ১৩০ রানের বিশাল ব্যবধানে হারের পেছনে কম টেস্ট ম্যাচ খেলাকেই দুষলেন বাংলাদেশ টেস্ট দলের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক মুমিনুল হক। তবে এমন হারের পরও খুশি মুমিনুল। কারণ আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ চালু হওয়ায় এখন থেকে বেশি বেশি টেস্ট ম্যাচ খেলতে পারবে বাংলাদেশ।

২০১৯-২০২১ টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অংশ হিসেবে আগামী বছর পাকিস্তান, অস্ট্রেলিয়া, শ্রীলঙ্কা এবং নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। এছাড়া এই সূচির বাইরে জিম্বাবুয়ে ও আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে একটি করে টেস্ট খেলার কথা রয়েছে টাইগারদের। 

ম্যাচ শেষে সাংবাদিকদের টাইগার অধিনায়ক মুমিনুল হক বলেন, ‘আমরা খুশি। কারণ যারা কম টেস্ট খেলে তাদের জন্য টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ একটা বড় সুযোগ। এটা অনেক বড় প্রতিযোগিতা। আইসিসি যদি এটার আয়োজন না করতো তাহলে আমরা এত টেস্ট খেলার সুযোগ পেতাম না। এটা সবার জন্যই ভালো হবে।  গত সাত মাসে আমরা মাত্র ২টি টেস্ট খেলেছি। অন্যরা আমাদের চেয়ে অনেক বেশি খেলেছে। আমি মনে করি এটাই মূল পার্থক্য।’

মুমিনুল বলেন, ‘ওদের (ভারতের) বোলিং আক্রমণ অনেক চ্যালেঞ্জিং। যদি ওপেনাররা ১৫-২০ ওভার খেলতে পারতো তাহলে বাকিদের সহজ হতো। ওদের বোলিং শক্তিশালী, কিন্তু আমরা ব্যাটিং ইউনিট হিসেবে ব্যর্থ। তাদের বোলিং আক্রমণ বিশ্বসেরা। আমরা আমাদের সুযোগ নিতে পারিনি।’

ইন্দোরে ব্যাটিং ব্যর্থতার জন্য ব্যাটসম্যানদের ধৈর্যের অভাবকে কারণ হিসেবে উল্লেখ করে মুমিনুল বলেন, ‘ব্যাটিংয়ের ধরন ঠিক আছে। হয়তো আমাদের এটা অনুধাবন করা উচিত ছিল যে ভারতের শক্তিশালী বোলিং আক্রমণের বিপক্ষে আরও ধৈর্য ধরে খেলতে হবে। কারণ তারা খুব কমই বাজে ডেলিভারি দিয়েছে।’ 

আসন্ন দিবা-রাত্রির টেস্টে ভালো করার সম্ভাবনা দেখছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। কারণ বাংলাদেশ অধিনায়কের মতে, ‘আমরা দুই দলের কেউই গোলাপি বলে খেলিনি, ফলে আমি মনে করি এটা আমাদের জন্য নতুন সুযোগ। দলে এটা নিয়ে উত্তেজনা আছে কারণ আমরা জানি না আবার কবে গোলাপি বলে খেলার সুযোগ পাব।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা