kalerkantho

রবিবার । ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯। ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৭ রবিউস সানি                    

কোহলিকে রাজী করাতে লেগেছে ৩ সেকেন্ড : গাঙ্গুলী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২ নভেম্বর, ২০১৯ ২০:৫৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কোহলিকে রাজী করাতে লেগেছে ৩ সেকেন্ড : গাঙ্গুলী

কোহলি-রোহিতদের সঙ্গে সৌরভ গাঙ্গুলীর বৈঠক। ছবি : বিসিসিআই

আগামী ২২ নভেম্বের একসঙ্গে ইতিহাসে নাম লেখাতে যাচ্ছে বাংলাদেশ আর ভারতের ক্রিকেট। এদিন থেকেই কলকাতার ইডেন গার্ডেনে প্রথমবারের মতো দিবা-রাত্রির টেস্ট খেলবে দুই দল। এই ম্যাচ আয়োজন নিয়ে জোর প্রস্তুতি শুরু হয়ে গেছে। এদিকে বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলী বলেছেন, মাত্র তিন সেকেন্ডেই নাকি দিবা-রাত্রির টেস্ট ম্যাচের সম্মতি দিয়েছিলেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি। দায়িত্ব গ্রহণের পর গত ২৪ অক্টোবর কোহলিদের সঙ্গে আলোচনায় বসেন গাঙ্গুলী।

সাইমন টফেলের লেখা ‘ফাইন্ডিং দ্য গ্যাপস’-এর বই প্রকাশ অনুষ্ঠানে এসে সৌরভ বলেন, 'প্রায় এক ঘণ্টার কাছাকাছি আমাদের মধ্যে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কথাবার্তা হয়। প্রথম প্রশ্নটাই ছিল দিবা-রাত্রির টেস্ট নিয়ে। ৩ সেকেন্ডের মধ্যেই বিরাট দিবা-রাত্রির টেস্টের পক্ষে সায় দেয়। অতীতে কী হয়েছিল তা আমার জানা নেই। ফাঁকা গ্যালারিতে টেস্ট ম্যাচ খেলা যে ভালো বিজ্ঞাপন নয়, সেটা হয়তো বুঝতে পেরেছে বিরাট। সেই কারণেই দ্রুত সম্মতি দিয়ে দেয় দিবা-রাত্রির টেস্ট ম্যাচের পক্ষে।'

২০১৫ সালের নভেম্বরে অ্যাডিলেডে প্রথমবার দিবা-রাত্রির টেস্ট ম্যাচ হয়েছিল অস্ট্রেলিয়া আর নিউজিল্যান্ডের মধ্যে। তাতে ৩ উইকেটে জিতেছিল অস্ট্রেলিয়া। এ বছরের শুরুতে নিউজিল্যান্ডে একটি দিবা-রাত্রির টেস্ট খেলার প্রস্তাব পেলেও সম্মত হয়নি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। এর আগে ২০১৮ সালে অ্যাডিলেডে দিবা-রাত্রির টেস্ট ম্যাচ খেলতে অস্বীকার করেছিল ভারত। তাই এই আয়োজনকে বলা হচ্ছে বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট হিসেবে সৌরভ গাঙ্গুলীর প্রথম চমক।

গাঙ্গুলী আরও বলেন, 'এমসিজিতে বক্সিং ডে টেস্টে ভারত-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচ দেখতে ৭০ হাজার দর্শক উপস্থিত ছিলেন। সেটা ছিল আমার ১০০ তম টেস্ট ম্যাচ। অ্যাশেজে একটা সিটও ফাঁকা থাকে না। ২০০১ সালে ইডেনে ভারত-অস্ট্রেলিয়া টেস্ট ম্যাচের সময়ে দেড় লক্ষ মানুষ উপস্থিত ছিল। এখন মানুষের জীবনযাত্রা বদলে গেছে। টেস্ট ম্যাচ দেখার জন্য কেউই এখন আর অফিস কামাই করবে না। তাই টেস্ট ক্রিকেটে মানুষকে টেনে আনতে হবে। এজন্যই দিবা-রাত্রির টেস্টের ভাবনাটা আমার পছন্দের।'

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা