kalerkantho

সোমবার । ১৮ নভেম্বর ২০১৯। ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

সৌম্যকে নিয়ে হাবিবুলের আফসোস

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ অক্টোবর, ২০১৯ ২১:৩৩ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সৌম্যকে নিয়ে হাবিবুলের আফসোস

ক্রিকেট বোদ্ধারা এক কথায় তাকে বাংলাদেশের ক্রিকেটের ভবিষ্যত হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে দেন। কিন্তু বারবার সবাইকে হতাশ করেন সৌম্য সরকার। অধারাবাহিক ক্রিকেটার কাকে বলে, তার যেন জ্বলন্ত প্রমাণ সৌম্য। ভারত সফরের আগে বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড়দের জাতীয় লিগের দুটি রাউন্ড খেলা বাধ্যতামূলক করেছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। প্রথম রাউন্ডে কিছু করতে না পারলেও দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলেছেন ম্যাচ জেতানো ইনিংস। দেশের সুপার স্টাইলিস্ট এই তরুণ ব্যাটসম্যানকে নিয়ে তাই আফসোসের কথাই শোনালেন নির্বাচক হাবিবুল বাশার।

বহুদিন ধরেই বাংলাদেশের ক্রিকেট সমালোচকদের প্রধান টার্গেটের নাম সৌম্য সরকার। ধারাবাহিক রান না করেও বারবার জাতীয় দলে সুযোগ পাওয়ায় অনেকেই বিরক্ত। আসন্ন ভারত সফরের টি-টোয়েন্টি দলেও নাম আছে তার। এর আগে নিজেকে প্রমাণ করার মঞ্চ হিসেবে চলতি জাতীয় লিগে পারফর্মের সুযোগ পেয়েছেন সৌম্য। প্রথম রাউন্ডে সুবিধা করতে না পারলেও দ্বিতীয় রাউন্ডে আজ রাজশাহী বিভাগের বিপক্ষে খুলনা বিভাগকে জয় এনে দিয়েছেন তিনি। খেলেছেন ৫৯ বলে ৩ চার ৩ ছক্কায় অপরাজিত ৫০ রানের ইনিংস। পাশাপাশি পার্টটাইম বোলার হিসেবেও ঘরোয়া এবং আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অধিনায়কদের ভরসার জায়গা হয়ে উঠেছেন।

এই সৌম্যই যখন ম্যাচের পর ম্যাচ ব্যর্থ হতে থাকেন, তখন সেটা যেমন ক্রিকেটপ্রেমীদের পীড়া দেয়; নির্বাচকদের জন্যও কষ্টের কারণ হয়ে দাঁড়ায়। যেমন সৌম্যর আজকের ইনিংস নিয়ে হাবিবুল বললেন, 'সৌম্য যখন ব্যাটিং করে তখন মনে হয় কেন সে আন্তর্জাতিক ম্যাচে রান পায় না? আজ রাজশাহীর বোলিং আক্রমণ তো খারাপ ছিল না। যখন ব্যাটিং করছিল মনে হচ্ছিল এই খেলাটা কেন যে সৌম্য আন্তর্জাতিক ম্যাচে খেলে না! তবে জাতীয় লিগের দুই রাউন্ডে সবাই কমবেশি রান করেছে। মাহমুদউল্লাহ রান পেয়েছে।'

জাতীয় দলের তারকাদের মধ্যে জাতীয় লিগে সবচেয়ে ভালো করেছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। এক সেঞ্চুরি আর দুটি হাফ সেঞ্চুরি এসেছে তার ব্যাট থেকে। ৬৩, ৬৩ ও ১১১ রানের তিনটি ইনিংস খেলে ভারত সফরের প্রস্তুতি ভালোভাবে সেরে নিয়েছেন এই 'সাইলেন্ট কিলার'। তার ভায়রা ভাই মুশফিকও কিন্তু দারুণ ছন্দে আছেন। খেলেছেন ৭৫, ২১, ২৪, ৪৪ রানের ইনিংস। তবে ইনিংস বড় হচ্ছে না। লিটন দাসও সিপিএল থেকে ফিরে সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন। অন্যদিকে হতাশ করেছেন 'বিশ্রাম' শেষে ফেরা তামিম ইকবাল। প্রথম রাউন্ডে ৩০ আর ৪৬ করলেও ইনজুরিতে পরে দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলতে পারেননি। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা